ডেস্ক নিউজ
প্রকাশিত: ২১/০৪/২০২৩ ৯:৪২ এএম

চকরিয়া উপজেলার কাকারা ইউনিয়নের এসএমচর দিঘিরপাড় এলাকার বাসিন্দা গোলাম কাদের এর ছেলে টমটম গাড়ির গ্যারেজ মালিক গিয়াস উদ্দিনকে অবৈধ অস্ত্র দিয়ে ফাঁসাতে গিয়ে উল্টো জাফর আলম নামের একজন অস্ত্রসহ আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর হাতে আটক হয়েছেন।

বৃহস্পতিবার ২০ এপ্রিল বিকেলে চকরিয়া পৌরশহরে সংবাদ সম্মেলনে ঘটনার বিস্তারিত তুলে ঘটনার সঙ্গে জড়িত চক্রের বিরুদ্ধে আইনী পদক্ষেপ নেওয়ার জন্য আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর জরুরি হস্তক্ষেপ চেয়েছেন ভুক্তভোগী গিয়াস উদ্দিন।

টমটম গাড়ির গ্যারেজ মালিক গিয়াস উদ্দিন বলেন, দীর্ঘ বছর আগে আমার টমটম গ্যারেজের নিরাপত্তা নিশ্চিতকল্পে গ্যারেজ লাগোয়া সড়কে সিসি ক্যামেরা স্থাপন করি। এলাকার কতিপয় লোকজন যে কোন ধরনের অপরাধমূলক কোন কাজে জড়িত থাকলে তা সিসি ক্যামেরায় ধরা পড়ে। অনুরূপভাবে গতবছর গরু চুরি করে পাচারকালে আমার সিসি ক্যামেরায় ধরা পড়ে কাকারা ইউনিয়নের ২ নং ওয়ার্ডের উত্তর লোটনী এলাকার আবুল কাশেম এর ছেলে তৌহিদুল ইসলাম।

ভুক্তভোগী গিয়াস উদ্দিন দাবি করেন, আমার সিসি ক্যামেরায় গরু চুরির বিষয়টি ধরা পড়ার পর থেকে অভিযুক্ত তৌহিদ আমাকে নানাভাবে হুমকি ধমকি দিয়ে আসছে। সিসি ক্যামেরা খুলে নিতে একাধিকবার হাঁকা বকা করেছে। তাতে আমার সাড়া দিইনি।

এতে ক্ষিপ্ত হয়ে গত ৭ রমজান রাত আনুমানিক এগারোটার দিকে অভিযুক্ত তৌহিদ সহযোগী দুবৃর্ত্তদের নিয়ে আমার টমটম গাড়ির গ্যারেজে হামলা চালায়। এসময় ব্যাপক ভাংচুর চালিয়ে গ্যারেজ থেকে নগদ ২ লাখ ৪৭ হাজার টাকা লুট করে নিয়ে যায়। এ ঘটনায় আমি তাদের বিরুদ্ধে চকরিয়া থানায় মামলা করি।

টমটম গ্যারেজ মালিক গিয়াস উদ্দিন বলেন, সিসি ক্যামেরা নিয়ে বিরোধ ও হামলা লুটের ঘটনায় মামলার প্রেক্ষিতে ক্ষিপ্ত হয়ে অভিযুক্ত তৌহিদ সহযোগী জাফর আলমকে দিয়ে বুধবার ১৯ এপ্রিল রাতে আমার বাড়িতে অবৈধ অস্ত্র ঢুকিয়ে দিয়ে আমাকে ফাঁসানোর চেষ্টা করে। এসময় আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা অবৈধ অস্ত্রসহ জাফর আলম নামের ওই ব্যক্তিকে আটক করে চকরিয়া থানায় হস্তান্তর করেছে।

র‌্যাব-১৫ কক্সবাজার ক্যাম্পের প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযানে উপস্থিত সাক্ষীদের সম্মুখে আটককৃত জাফর আলমের দেহ তল্লাশী করে তার হেফাজত হতে লাইসেন্স বিহীন একটি দেশীয় তৈরী এলজি উদ্ধার করা হয়। আটক জাফর আলম (৩৮) চকরিয়া পৌরসভার ৯ নং ওয়ার্ডের নিজপানখালী এলাকার মৃত জামাল হোসেনের ছেলে।

প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে আটক জাফর আলম জানান, সে দীর্ঘদিন যাবৎ কক্সবাজার চকরিয়া থানা এলাকা হতে দেশীয় তৈরী অস্ত্র সংগ্রহ করে গোপনে দেশের বিভিন্ন স্থানে দুস্কৃতিকারীদের নিকট অস্ত্র বিক্রয় করে আসছে।

উদ্ধারকৃত আগ্নেয়াাস্ত্রসহ আটক ব্যক্তির বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণার্থে চকরিয়া থানায় লিখিত এজাহার দাখিল করা হয়েছে।

পাঠকের মতামত

সেন্টমার্টিন নিয়ে গুজবে কান না দেওয়ার অনুরোধ আইএসপিআরের

মিয়ানমারের অভ্যন্তরে চলমান সংঘর্ষকে কেন্দ্র করে সোশ্যাল মিডিয়ায় সেন্টমার্টিনের নিরাপত্তা নিয়ে বিভিন্ন স্বার্থান্বেষী মহলের গুজবে ...

ঈদের ছুটিতে পর্যটক বরণে প্রস্তুত কক্সবাজার কক্সবাজার প্রতিবেদক

পবিত্র ঈদুল আজহার টানা ছুটিতে ভ্রমণপিপাসুদের বরণে পুরোপুরি প্রস্তুত হয়েছে সমুদ্র শহর কক্সবাজার। আগত পর্যটকের ...

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে বড় চ্যালেঞ্জ জন্মনিয়ন্ত্রণ

কক্সবাজারে রোহিঙ্গা আশ্রয়শিবিরগুলোতে বড় চ্যালেঞ্জ হয়ে দেখা দিয়েছে জন্মনিয়ন্ত্রণ। সরকারি-বেসরকারি নানা উদ্যোগের পরও ক্যাম্পগুলোয় জন্মহার ...