ডেস্ক নিউজ
প্রকাশিত: ২৯/০১/২০২৪ ১০:২৯ পিএম
ফাইল ছবি

৫৭তম বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব শুরু হচ্ছে খুব শিগগিরই। এরই মধ্যে দেশের নানা প্রান্ত ও বিদেশ থেকে আগত মুসল্লিদের জন্য ময়দান প্রস্তুত প্রায় শেষ হয়েছে।

আগামী ০২ ফেব্রুয়ারি থেকে ০৪ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত গাজীপুরের টঙ্গীতে তুরাগ নদীর তীরে পালিত হবে বিশ্ব ইজতেমার প্রথম পর্ব। এই পর্বে অংশ নিবেন ৫০ লাখ মুসল্লি। তাদের মধ্যে দশ হাজারেরও বেশি বিদেশি মুসল্লিরা থাকবেন বলে জানান আয়োজক কমিটি।

ইজতেমার আয়োজকরা জানান, মুসল্লিদের থাকা-খাওয়ার জন্য প্রস্তুত করা হয়েছে টিনের তৈরি অস্থায়ী শেড৷ এছাড়া ময়দানের পশ্চিম পাড়ের কামারপাড়া এলাকায় মুসল্লিদের যাতায়াত নির্বিঘ্ন করতে সেনাবাহিনীর সহায়তায় প্রস্তুত করা হয়েছে বেশ কয়েকটি ভাসমান অস্থায়ী সেতু৷

মূল মঞ্চের প্রস্তুতি প্রায় সম্পন্ন৷ চলছে ধোয়া মোছার কাজ৷ মঞ্চের কাজ বাকি কাজটুকু সেরে নিচ্ছেন স্বেচ্ছাসেবীরা৷ ১৬০ একরের বিশাল ময়দানে টানানো হয়েছে সামিয়ানা৷ খুঁটিতে লাগানো হয়েছে মাইক। সংযোগ দেয়া হয়েছে বিদ্যুতের৷ প্রতিবারের মতো নিরাপত্তার জন্য পর্যাপ্ত পরিমাণে বসানো হয়েছে সিসি ক্যামেরা৷

এদিকে ইজতেমা আয়োজনে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে স্বেচ্ছাশ্রম চলছে জোরেশোরে। স্বেচ্ছাসেবকদের কেউ নিচ্ছেন বাঁশ, কেউবা দড়ি দিয়ে বাঁধতে ব্যস্ত সর্বশেষ খুঁটি৷ শুধু সৃষ্টিকর্তার অনুগ্রহ লাভের আশায় দূরদূরান্ত থেকে ছুটে এসেছেন হাজারো স্বেচ্ছাসেবী৷

টঙ্গী পশ্চিম থানার ওসি সাখাওয়াত হোসেন বলেন, বিশ্ব ইজতেমা ময়দানে প্রস্তুতির প্রায় শেষ। অন্যবারের চেয়ে এবার ময়দানে আগত দেশ-বিদেশের মুসল্লিদের নিরাপত্তা নিশ্চিতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী অধিক তৎপর থাকবে।

উল্লেখ্য, প্রথম ধাপের আয়োজন শেষে চার দিন বিরতি দিয়ে ৯ ফেব্রুয়ারি শুরু হবে তিন দিনের দ্বিতীয় ধাপের ইজতেমা।

পাঠকের মতামত

সমুদ্রপথে সেনা ও সীমান্তরক্ষীদের ফিরিয়ে নিতে চায় মিয়ানমার

বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া মিয়ানমারের সেনাবাহিনী, সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিজিপি), পুলিশ, ইমিগ্রেশনসহ বিভিন্ন সংস্থার সদস্যদের দেশটি নৌবাহিনীর ...