প্রকাশিত: ০৪/১০/২০১৬ ৭:৪৭ এএম

আপনার কোনো ফেসবুক বন্ধুর অ্যাকাউন্ট থেকে ইমেজ বা ভিডিও লিংকসহ ম্যাসেজ এলেই আগ্রহী হবেন না। ব্যবহারকারীদের এ আগ্রহকে পুঁজি করেই সম্প্রতি ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়েছে স্প্যাম বা ভাইরাস। এ ধরনের ম্যাসেজ ওপেন করার সঙ্গে সঙ্গেই একই ধরনের ম্যাসেজ চলে যাবে আপনার সব বন্ধুর কাছে, তারা ওপেন করলে তাদের সব বন্ধুর কাছে। এভাবেই ছড়িয়ে পড়বে সবার অ্যাকাউন্টে। অথচ সরল মনে দেখতে গিয়ে আপনার অ্যাকাউন্টের ব্যক্তিগত তথ্য চলে যাবে হ্যাকারদের কাছে।

সম্প্রতি এমনই বিড়ম্বনার শিকার হচ্ছেন ফেসবুকের কয়েক লাখ ব্যবহারকারী। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম হিসেবে জনপ্রিয় এ সাইটে এ ধরনের স্প্যাম আগেও বেশ কয়েকবার ছড়ানো হয়েছিল। এর আগে ব্যবহারকারী বা বন্ধুর ছবিসহ ম্যাসেজ ছড়িয়ে দিয়ে লাখ লাখ ব্যবহারকারীর অ্যাকাউন্টের ব্যক্তিগত তথ্য হ্যাক করে নেওয়া হয়েছিল। এবার ছড়ানো হচ্ছে ব্যবহারকারীর ছবিসহ ভিডিও লিংক। ক্লিক করলেই সর্বনাশ! হ্যাকাররা ভাইরাসযুক্ত একটি ভিডিও লিংক ফেসবুকে আপনার যে প্রোফাইল পিক রয়েছে, সেটি ভাইরাসযুক্ত ভিডিওতে প্রদর্শন করা হচ্ছে কৌশলে।

ফলে ব্যবহারকারীদের ইনবক্সে যখন ভিডিও লিংকটি আসছে, তখন অনেকেই কৌতূহলী হয়ে সেটি দেখার জন্য ক্লিক করছেন। দেখার জন্য ক্লিক করলেই আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্ট এন্ট্রি পেয়ে যাচ্ছে ভাইরাসটি। আর আপনার অ্যাকাউন্টে এই ভাইরাসের প্রবেশ মানেই অ্যাকাউন্টের তথ্য পাচার হওয়ার আশঙ্কা। শুধু তাই নয়, আপনার নামে আসা ভিডিও ভাইরাসের লিংকটিতে ক্লিক করা মাত্রই আপনার ফ্রেন্ডলিস্টে থাকা সব বন্ধু এই ভিডিও ভাইরাসটিতে ট্যাগ হয়ে যাবে এবং তাদের ইনবক্সে আপনার মাধ্যমে তা মেসেজ হিসেবে পৌঁছে যাবে। এতে বিব্রত হতে হবে সামাজিকভাবে।

সুতরাং ম্যাসেজ বক্সে বন্ধুদের কাছ থেকে আসা আপনার প্রোফাইল পিক সংবলিত ভিডিও লিংকটিতে ক্লিক করা থেকে বিরত থাকুন। যদিও-বা ভুলে ভাইরাসটি ওপেন করে ফেলেন, তবে জলদি অ্যাকাউন্টের পাসওয়ার্ড পরিবর্তন করে ফেলুন এবং সেটিংস অপশনে গিয়ে যত অপরিচিত অ্যাপলিকেশন ইনস্টল দেওয়া রয়েছে- সবগুলো রিমুভ করে দিন। এরপরও না হলে যোগাযোগ করুন কোনো তথ্যপ্রযুক্তি বিশেষজ্ঞের সঙ্গে।

পাঠকের মতামত

টেলিটকের ৪৮ লক্ষ গ্রাহকের সমস্যা দূর করার জন্য যাদুকরি পদক্ষেপ : পলক

ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্য প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনায়েদ আহম্মেদ পলক বলেছেন, জীবন কানক্টেভিটি হবে বিটিসিএলর লাইফ ...