প্রকাশিত: ০৮/১২/২০১৬ ৭:৪৫ এএম

নিউজ ডেস্ক::
কক্সবাজার জেলা পরিষদ নির্বাচনে সদস্য পদে ১৭টি আসনে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর প্রতিপক্ষ দলের বিদ্রোহী প্রার্থীরা। কয়েকটি আসনে রয়েছে আওয়ামী লীগের একাধীক বিদ্রোহী প্রার্থী। যার ফলে বেকায়দায় পড়েছেন দলের মনোনীত সদস্য প্রার্থীরা। দলের নির্দেশনা মোতাবেক একটি সংরক্ষিত আসন ও একটি সাধারণ আসনে দলের বিদ্রোহী প্রার্থীরা মনোনয়নপত্র প্রত্যহার করলেও অন্য আসনে দলের বিদ্রোহী প্রার্থীরা এখনো অনড় অবস্থানে রয়েছেন। এরপরও মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন ১১ ডিসেম্বর পর্যন্ত চান জেলা আওয়ামী লীগ নেতৃবৃন্দ। এরপরই কেন্দ্রিয় নির্দেশনা মোতাবের ব্যবস্থা নেবেন জেলা আওয়ামী লীগ।
জেলা পরিষদ নির্বাচনে বিএনপি সহ সমমাননা দলগুলো নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা না করলেও স্ব-স্থিতে নেই আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীরা। ইতোমধ্যে সিদ্ধান্ত মেনে নিয়ে মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করায় সংরক্ষিত আসন- থেকে বিনাপ্রতিদ্বীতায় নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী আশরাফ জাহান কাজল। সাধারণ আসন-১৫ থেকে বিজয়ের পথে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী শফিক মিয়া।
প্রাপ্ত তথ্যমতে সংরক্ষিত আসন ১ থেকে আওয়ামী লীগ মনোনীত মাশরফা জান্নাত, প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ নেত্রী প্রীতি কণা শর্মা। ২ নং আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত সৈয়দা নিঘাত আমিন এর প্রতিদ্বন্দ্বী জেলা আওয়ামী লীগ নেত্রী উম্মে কুলসুম ও জাহানারা পারভীন। ৩ নং আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত ফিরোজা বেগম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থক লুৎফুন নাহার, শাহনা বেগম, রেহেনা বেগম, ও আনোয়ারা বেগম। ৪ নং আসনে প্রতিদ্বন্দ্বীতা করছেন আওয়ামী লীগের তিন জন নেত্রী হামিদা তাহের, শাহেনা আকতার ও তাহমিনা চৌধুরী লুনা।
সাধারণ সদস্য পদে ১ নং আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মিজানুর রহমান এর প্রতিদ্বন্দ্বী কুতুবদিয়া উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি মাষ্টার আহমদ উল্লাহ, ২ আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মোহাম্মদ রুহুল আমিন এর প্রতিদ্বন্দ্বী সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মু কামাল উদ্দিন, মোহাম্মদ ইকবাল চৌধুরী ও শ্রমিকলীগ নেতা লুৎফুর রহমান । ৩ নং আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত আনোয়ার পাশা চৌধুরী প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থক মোহাম্মদ আয়ুবর রহমান ও আওয়ামী লীগ প্রার্থীর ছেলেমোস্তফা আনোয়ার চৌধুরী। । ৪ নং আসনে আওয়মাী লীগ মনোনীত প্রার্থী আবু হেনা মোস্তফা কামাল এর প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থক রিয়াজ খান রাজু, মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম, এ.টি.এম জায়েদ মোর্শেদ, আবুল কাসেম, মোহাম্মদ তারেক ছিদ্দিকী, মেহদি হাসান। ৫ নং আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী কমরউদ্দিন এর মনোনয়নপত্র বাতিল হওয়ায় এখনো সিদ্ধান্ত হয়নি। তবে এ আসনে জেলা ও উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতাসহ ৬ জন জন্নাতুল বকেয়া, মোহাম্মদ বদরুদোজ্জা, এ.টি.এম জিয়াউদ্দিন চৌধুরী, ফিরোজ আহমদ চৌধুরী, এস এম জাহাঙ্গীর বুলবুল, মাহবুব রহমান প্রার্থী রয়েছেন। ৬ নং আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত আবু তৈয়ব এর প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থক এম আজিজুর রহমান, ও আকতার আহমদ। ৭ নং আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী ওয়ালিদ মিল্টন এর বিরুদ্ধে লড়ছেন চকরিয়া পৌর আওয়ামী লীগরে সভাপতি জাহেদুল ইসলাম লিটু, মোহাম্মদ জাহাঙ্গীর আলম, আবদুর রহিম ও মোজাফ্ফর হোসেন পল্টু । ৮ নং আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মোক্তার আহমদ চৌধুরীর বিরুদ্ধে অনড় অবস্থানে আছেন আওয়ামী লীগ সমর্থক মোহাম্মদ শাহনেওয়াজ চৌধুরী, আ.ন.ম আমিনুল এহছান, মোহাম্মদ ওমর ফারুক ও সোলতান আহমদ। ৯ নং আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মনজুরুল হক চৌধুরীর প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থক মোহাম্মদ জুনায়েদ কবির, সোহেল জাহান চৌধুরী, মিজানুল হক ও আজিজুর রহমান। ১০ নং আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত উজ্জ্বল কর এর বিরুদ্ধে ভোট যুদ্ধে নেমেছেন সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মাহমুদুল করিম। ১১ নং আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত পলক বড়–য়ার একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বী রামু উপজেলা আওয়ামী লীগ নেতা শামসুল আলম মন্ডল। ১২ নং আসনে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল হওয়ায় একক প্রার্থী হিসাবে আছেন আওয়ামী লীগ মনোনীত শামসুল আলম। ১৩ নং আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী নুরুল হক এর বিরুদ্ধে এখনো মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেনি আওয়ামী লীগ সমর্থক আবদুর রহিম ও রাহমত উল্লাহ। ১৪ নং আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত হুমায়ুন কবির চৌধুরীর প্রতিদ্বন্দ্বী এড. খাইরুল আমিন ও খুরশিদা বেগম আওয়ামী লীগ নেতা। ১৫ নং আসনে আওয়ামী লীগ মনোনীত মোহাম্মদ শফিক মিয়া একক প্রার্থী হিসাবে বিজয়ী হতে যাচ্ছেন।
জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান চেয়ারম্যান জানান, কেন্দ্রিয় নির্দেশ মোতাবেক জেলা, উপজেলা ও পৌর আওয়ামী লীগের সর্বসম্মতিক্রমে সদস্য পদে দলের মনোয়ন দেওয়া হয়েছে। যারা দলের নির্দেশ অমান্য করে দলীয় শৃংখলা ভঙ্গ করবে তাদের ব্যাপারে কেন্দ্রিয় নির্দেশ মোতাবেক সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।
সুত্র দৈনিক কক্সবাজার

পাঠকের মতামত

বান্দরবানে কেএনএফের আস্তানায় যৌথ বাহিনীর অভিযান, নিহত ৩

বান্দরবানের রুমা উপজেলার রনিন পাড়ার কাছে ডেবাছড়া এলাকায় কেএনএফের একটি আস্তানায় সেনাবাহিনীর নেতৃত্বে যৌথ বাহিনীর ...