প্রকাশিত: ০৫/০৩/২০১৮ ৭:৪২ এএম , আপডেট: ১৭/০৮/২০১৮ ৫:৫০ এএম

সীতাকুণ্ড প্রতিনিধি::

উপজেলার বিভিন্ন হাট–বাজারে বিষাক্ত রং মিশিয়ে অবাধে বিক্রি হচ্ছে সামুদ্রিক নানা প্রজাতির মাছ। রং মেশানো এসব মাছের মধ্যে রয়েছে পোপা, লইট্যা, ছোট চিংড়িসহ বিভিন্ন প্রজাতির মাছ। ক্রেতারা তাজা মাছ মনে করে বেশি দাম দিয়ে এসব বিষাক্ত রং মেশানো মাছ কিনে নিয়ে প্রতারিত হচ্ছে। উপজেলার বিভিন্ন বাজারে বিক্রি করতে আসা সব ধরনের মাছে বিষাক্ত রং মিশিয়ে বিক্রি হচ্ছে বলে অভিযোগ করেন এলাকাবাসী। জানা গেছে, বিশেষ করে সাগরের সন্নিকটে বাড়বকুণ্ড, কুমিরা ঘাট, ফৌজদারহাট, ভাটিয়ারী,বাঁশবাড়িয়া, সীতাকুণ্ড ঘাট দিয়ে বিভিন্ন প্রজাতির সাগরের মাছ কূলে নিয়ে আসে জেলেরা। আর কিছু অসাধু ব্যবসায়ী মাছগুলো অল্পদামে ক্রয় করে বিভিন্ন বাজারে প্রেরণ করে। উক্ত মাছগুলো বাজারে নিয়ে যাওয়ার সময় ক্ষতিকারক রং মিশিয়ে সীতাকুন্ড এলাকার ভাটিয়ারি বাজার, মাদামবিবিরহাট বাজার, জলিল বাজার, ফৌজদারহাট বাজার, কুমিরা বাজার, সীতাকুণ্ড বাজারসহ বিভিন্ন পাড়া মহল্লায় অবাধে বিক্রি হচ্ছে। কিন্তু কোনো প্রকার পদক্ষেপ নেয়া হয়নি প্রশাসনের পক্ষ থেকে। এব্যাপারে সীতাকুণ্ড মৎস্য অফিসার সেলিম রেজা বলেন, মাছে ক্ষতিকারক রং মেশানোর বিরুদ্ধে আমরা সবসময় তৎপর। কারণ রং মেশানো মাছ মানুষের দেহে নানা জটিল রোগ সৃষ্টি করে। তাই মাছে ক্ষতিকারক রং মেশানোর সাথে জড়িত অসাধু ব্যবসায়ীদের হাতেনাতে ধরতে পারলে জেল হাজতে প্রেরণ করি। মাছে ক্ষতিকারক রং মেশানোর বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত থাকবে।

পাঠকের মতামত

কক্সবাজারে হচ্ছে ‘বাংলাদেশ সুপ্রিম কোর্ট রিসার্চ ইনস্টিটিউট’

প্রধান বিচারপতি ওবায়দুল হাসান বলেছেন, ন্যায়বিচার পাওয়ার অধিকার বাংলাদেশের সব নাগরিকের রয়েছে, এটা সংবিধানে গ্যারান্টি ...

ইনানীতে হচ্ছে ফায়ার সার্ভিসের পূর্ণাঙ্গ প্রশিক্ষণ কেন্দ্র

অবশেষে কক্সবাজারে হচ্ছে ফায়ার সার্ভিসের পূর্ণাঙ্গ আঞ্চলিক প্রশিক্ষণ কেন্দ্র এবং অত্যাধুনিক ফায়ার স্টেশন। অর্থনৈতিক এবং ...