প্রকাশিত: ২৫/১২/২০১৬ ১০:৫৭ এএম

প্রথম আলো::
কক্সবাজার-৪ (উখিয়া-টেকনাফ) আসনের আওয়ামী লীগের সাংসদ আবদুর রহমান বদি আর কোনো সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীর গায়ে হাত তুলবেন না। এই ওয়াদা তিনি মন্ত্রিপরিষদ সচিবকে দিয়েছেন। গতকাল শনিবার কক্সবাজার শহরের হিলটপ সার্কিট হাউসের সম্মেলনকক্ষে সরকারি কর্মকর্তাদের নিয়ে অনুষ্ঠিত এক সভায় সাংসদ বদির ওয়াদার কথা শোনান মন্ত্রিপরিষদ সচিব মো. শফিউল আলম। জেলার বিভিন্ন উন্নয়ন কর্মকাণ্ডের অগ্রগতি নিয়ে ওই সভা হয়।
সভায় জেলা শিক্ষা কর্মকর্তা (অতিরিক্ত দায়িত্ব) রাম মোহন সেন মন্ত্রিপরিষদ সচিবের দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলেন, কক্সবাজারে মারাত্মক শিক্ষক-সংকট চলছে। এ কারণে শিক্ষা কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে। এ প্রশ্নের উত্তরে মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘শুধু শিক্ষা ক্ষেত্রে নয়, কক্সবাজারের সব দপ্তরে জনবল-সংকট আছে। বিশেষ করে উখিয়া ও টেকনাফ উপজেলায় এই সংকট অনেক বেশি। শুনেছি সেখানকার (উখিয়া-টেকনাফ) অনেক সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীকে সাংসদ আবদুর রহমান বদি মারধর করেছেন। এ কারণে মারধরের ভয়ে ওখানে কেউ যেতে চান না।’
সভায় মন্ত্রিপরিষদ সচিব বলেন, ‘সাংসদ বদির সঙ্গে আমার কথা হয়েছে। তিনি আমাকে ওয়াদা দিয়েছেন, আর কোনো সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীকে মারধর করবেন না।’
রাম মোহন সেন সাংসদ বদিকে নিয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিবের বক্তব্যের সত্যতা প্রথম আলোকে নিশ্চিত করেছেন।
কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মো. আলী হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত ওই সভায় বিশেষ অতিথি ছিলেন চট্টগ্রামের অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার মামুনুর রশিদ আমিন, কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের (কউক) চেয়ারম্যান ফোরকান আহমদ, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) কাজী আবদুর রহমান। সভায় জেলার বিভিন্ন উপজেলার ইউএনও, জেলা প্রশাসনসহ বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। সভায় প্রতিটি দপ্তরের প্রধানদের মতামত শোনেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব।  সৌজন্যে প্রথম আলো

পাঠকের মতামত

বান্দরবানে কেএনএফের আস্তানায় যৌথ বাহিনীর অভিযান, নিহত ৩

বান্দরবানের রুমা উপজেলার রনিন পাড়ার কাছে ডেবাছড়া এলাকায় কেএনএফের একটি আস্তানায় সেনাবাহিনীর নেতৃত্বে যৌথ বাহিনীর ...