প্রকাশিত: ১০/০৩/২০১৭ ১০:৪৫ পিএম

উখিয়া নিউজ ডেস্ক::

বৈরী আবহাওয়া ও সর্তক সংকেট তবুও কক্সবাজারের টেকনাফ সেন্টমার্টিনে গেলেন নৌ-পরিবহন মন্ত্রী শাহজাহান খান। কিন্তু সকাল থেকে সর্তক সংকেট থাকায় ভ্রমণে আসা প্রায় পাচঁ হাজার পর্যটক সেন্টমার্টিনে যেতে পারেনি। এতে পর্যটকদের মাঝে ক্ষোভ দেখা দিয়েছে। বৈরী আবহাওয়ার কারণে ৩নং সতর্ক সংকেত প্রদান করেছে কক্সবাজার আবহাওয়া অফিস।

দেখা গেছে, শুক্রবার বেলায় ১২টার দিকে গাড়ীর বহর নিয়ে টেকনাফ স্থলবন্দরে পৌছেন নৌ-পরিবহন মন্ত্রী শাহজাহান খান।  এরপর তিনি বন্দরের মালঞ্চ রেষ্ট হাউজে স্থানীয় দলীয় নেতা, ব্যবসায়ী ও শ্রমিক নেতাদের সঙ্গে বৈঠকে বসেন।
এসময় তিনি বলেন, আওয়ামীলীগ সরকার দেশের গ্রামে গঞ্জে উন্নয়ন করে যাচ্ছে। এ উন্নয়ন অব্যাহত রাখতে আওয়ামীলীগ সরকারকে আবারো ক্ষমতায় আসতে হবে। তাই সকলকে এক যোগে কাজ করার আহবান জানান। পাশাপাশি টেকনাফ স্থল বন্দের অবকাঠামো উন্নয়ন করতে বন্দর কতৃপক্ষকে নির্দেশ দেন।
এসময় উপস্থিত ছিলেন, কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মো. আলী হোসেন, টেকনাফ ২ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল আবু জার আল জাহিদ, উপজেলা আওয়ামীলীগের সভাপতি ও সাবেক সাংসদ অধ্যাপক মো. আলী, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক নুর বশর, টেকনাফ মডেল থানার ওসি মাঈন উদ্দিন খান, টেকনাফ সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান ও উপজেলা শ্রমিকলীগের সভাপতি মো. শাহাজান, টেকনাফ স্থল বন্দরের অপারশন কর্মকর্তা জসিম উদ্দিন ও টেকনাফ সিএন্ডএফ এজেন্ট এসোসিয়েশনের (সিএন্ডএফ) সাধারন সম্পাদক এহেতেশামুল হক বাহাদুর প্রমুখ। এদিকে কক্সবাজার আবহাওয়া অফিস সর্তক সংকেট প্রদান করা হলেও বিকেল আড়াই টার দিকে স্পীড যোগে সেন্টমার্টিন পৌছেন মন্ত্রী। তাকে সেখানে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান নুর আহমদসহ নেতা কর্মিরা ফুল দিয়ে বরণ করে নেন। এরপর তিনি সেন্টমার্টিনে লাইট হাউজ ভবনের কাজ উদ্ধোধন করে টেকনাফের উদ্দ্যেশে  সেন্টমার্টিন ত্যাগ করেন।

সেন্টমার্টিন যেতে না পেরে আক্ষেপ করে মো. ইকবাল হোসাইন ও শাহেদা পারভিন বলেন, ছেলে মেয়েদের নিয়ে স্বর্গের দ্বীপ সেন্টমার্টিন যাবার জন্য খুব সকালে টেকনাফে পৌছি। এরপর দেখা যায় দমদমিয়া জেটিঘাটে সকল জাহাজ নোঙ্গলে রয়েছে। পরে জানতে পারি বৈরী আবহাওয়ার কারণে সর্তক সংকেট রয়েছে। তাই টেকনাফ থেকে কোন জাহাজ সেন্টমার্টিন যাচ্ছে না। খুবই দুঃখজনক দ্বীপে যেতে না পেয়ে আবার কক্সবাজার ফিরে যেতে হচ্ছে। আমাদের সঙ্গে আরো আড়াই শতাধিক পর্যটক ছিল যারা সেন্টমার্টিন যাওয়ার জন্য আসছিল।

পর্যটকবাহি জাহাজ কেয়ারি সিন্দাবাদের ব্যবস্থাপক মোহাম্মদ শাহ আলম জানান, বৈরী আবহাওয়া ও ৩ নম্বার সর্তক সংকেট থাকায় টেকনাফ থেকে কোন জাহাজ চলাচল করতে দেয় স্থানীয় প্রশাসন। ফলে ভ্রমনে আসা হাজারো পর্যটক সেন্টমার্টিনে যেতে পারেনি। তবে স্পীড বোট যোগে নৌ-পরিবহন মন্ত্রী শাহজাহান খান সেন্টমার্টিন যাওয়ার খবর শুনেছি।

কক্সবাজার আবহাওয়া অফিসের আবহাওয়াবিদ একেএম নাজমুল হক বলেন, সঞ্চালনশীল মেঘমালার জন্য সাগর উত্তাল থাকতে পারে। সেজন্য বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর থেকে ৩নং সতর্ক সংকেত প্রদান করা হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত নৌ-রুটে সকল যানবাহন চলাচল বন্ধ রাখার নির্দেশ দেন।

পাঠকের মতামত

আজ পহেলা বৈশাখ

আজ রোববার (১৪ এপ্রিল) পহেলা বৈশাখ-বাংলা নববর্ষ। বাংলা বর্ষপঞ্জিতে যুক্ত হলো নতুন বাংলা বর্ষ ১৪৩১ ...

বান্দরবানে যৌথ বাহিনীর অভিযান পরিচালিত এলাকায় ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা

বান্দরবানে সন্ত্রাসবিরোধী অভিযান পরিচালিত রুমা,রোয়াংছড়ি ও থানচি এলাকায় পর্যটকদের ভ্রমণ নিরুৎসাহিত করছে বান্দরবান জেলা প্রশাসন। ...

বাসের সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার সড়কে দুই মোটরসাইকেল আরোহী নিহত

পটিয়ায় মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় দুই আরোহী নিহত হয়েছে। নিহতরা হলেন- বোয়ালখালী উপজেলার পশ্চিম গোমদন্ডী এলাকার মোঃ ...