প্রকাশিত: ২৭/০৩/২০১৭ ১০:৩৭ এএম

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় হাসপাতালের বিছানায় শুয়ে জীবনের হিসাব মেলাতে গিয়ে বার বার তাল কেটে যাচ্ছে রুম্পার। এত তাড়াতাড়ি পৃথিবী তাকে বিদায় করে দেবে! অনেকটা ভাবলেশহীন দু’টি চোখ। শুধু চোখের পাতা ভেজা বন্ধু, সহপাঠী আর স্বজনদের। দু’টি কিডনিই অকেজো হয়ে গেছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের মাস্টার্সের মেধাবী শিক্ষার্থী নাজনীন সুলতানা রুম্পার।

চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, নাজনীনের দুটি কিডনিই সম্পূর্ণরূপে অকেজো হয়ে গেছে। জরুরিভিত্তিতে তার কিডনি পরিবর্তন করতে হবে। এজন্য প্রায় ৪০ লাখ টাকা প্রয়োজন।

নাজনীনের বড় ভাই আল রাশেদ বলেন, ‘গত বছর অক্টোবর মাসে হঠাৎ করেই নাজনীন অসুস্থ হয়ে যায়। তখন ধরা পড়ে যে নাজনীনের দুটো কিডনিই নষ্ট। এরপর থেকেই তাকে হাসপাতালে ভর্তি করে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে। এখন সপ্তাহে তিনটি করে ডায়ালাইসিস করাতে হচ্ছে যা অত্যন্ত ব্যয়বহুল। ‘

‘বর্তমানে নাজনীনের শারীরিক অবস্থা খুবই খারাপ (স্টেজ-৫ ওপরে অবস্থান করছে)। ডাক্তার বলেছে- যত দ্রুত সম্ভব কিডনি ট্রান্সপ্লান্ট করতে হবে’ কান্নাজড়িত কণ্ঠে বলেন রাশেদ।

নাজনীনের বাবা অবসরপ্রাপ্ত সরকারি কর্মকর্তা। পরিবারের পক্ষে এত টাকা যোগাড় করা অসম্ভব। সমাজের বিত্তবানদের একটু সাহায্যই পারে নাজনীনকে পৃথিবীর আলো-বাসাতে বাঁচিয়ে রাখতে।

সহযোগিতা করার মাধ্যম: হিসাব নম্বর- ১২৩.১০১.০১৬০২৯২। ডাচ বাংলা ব্যাংক লিমিটেড, এলিফ্যান্ট রোড ঢাকা।

পাঠকের মতামত

নিরাপত্তারক্ষীর কাজ করে বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়েছেন, এখন বিসিএস ক্যাডার

গল্প-আড্ডায় বিশ্ববিদ্যালয়জীবনটা উপভোগের সুযোগ আবদুল মোত্তালিবের হয়নি। দুপুর গড়ালেই তাঁকে ছুটতে হতো কাজে। অসচ্ছলতার কারণে ...