প্রকাশিত: ১৫/০৮/২০১৬ ৮:০৭ এএম

উখিয়া নিউজ ডেস্ক::

বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটনমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন বলেছেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান শিল্পেরও জনক। তিনি বিশ্ববাসীর কাছে অপরূপ বাংলাদেশের ছবি তুলে ধরতে চেয়েছেন। কক্সবাজারকে সুইজারলান্ডের জেনেভা শহরের মতো আন্তর্জাতিক হাবে পরিণত করতে চেয়েছিলেন। স্বাধীনতার আগেই ৩২ নম্বরের বাড়িতে তাঁর সঙ্গে একান্ত আলাপে বঙ্গবন্ধু এ আকাঙ্ক্ষা ব্যক্ত করেছিলেন বলে জানান মন্ত্রী।

জাতির জনক বঙ্গবন্ধুর ৪১তম শাহাদাতবার্ষিকী উপলক্ষে বাংলাদেশ ট্যুরিজম বোর্ড আয়োজিত ‘সংগ্রামী জীবন থেকে সোনার বাংলা’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় রাশেদ খান মেনন এ কথা বলেন। তিনি বলেন, ‘কক্সবাজারের সমুদ্র সৈকতে যে ঝাউবন তা বঙ্গবন্ধু লাগিয়েছিলেন। পর্যটনশিল্পের মাধ্যমে দেশকে অর্থনৈতিকভাবে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার লক্ষ্যে বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশন প্রতিষ্ঠা করেছিলেন তিনি।’

স্মৃতিচারণা করতে গিয়ে মন্ত্রী আরো বলেন, “আজকে বর্তমান সরকারের যে উন্নয়ন ভাবনা তার সূচনা করেছিলেন বঙ্গবন্ধু। তাঁরই আজন্ম লালিত স্বপ্ন ‘সোনার বাংলা’ প্রতিষ্ঠার জন্য সরকারের নিরন্তর প্রয়াস অব্যাহত আছে। জঙ্গিবাদী সন্ত্রাস চালিয়ে এ প্রয়াস রুদ্ধ করা যাবে না। এ সন্ত্রাস জাতির কাছে অপরিচিত নয়। ১৯৭১ সালেও ধর্মের নামে সন্ত্রাস চালিয়ে বাংলাদেশের স্বাধীনতাকে নস্যাৎ করার পাঁয়তারা হয়েছিল, কিন্তু আমরা সম্মিলিত প্রতিরোধে তাদের পরাজিত করে স্বাধীন বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠা করেছি। আজও উগ্রবাদ ও জঙ্গিবাদকে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় জাতি পরাজিত করবে।”

বিটিবির সিইও আখতারুজ জামান খান কবিরের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য দেন বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটনসচিব এস এম গোলাম ফারুক, বিপিসির চেয়ারম্যান ড. অপরূপ চৌধুরী ও বিটিবির পরিচালক ভুবন চন্দ্র বিশ্বাস।সুত্র কালেরকন্ঠ

পাঠকের মতামত

মিয়ানমারে সংঘাত / এপারে থামানো যাচ্ছে না নিত্যপণ্য, জ্বালানি ও ভোজ্যতেল পাচার

সমুদ্রপথে মিয়ানমারে প্রতিনিয়ত পাচার হচ্ছে জ্বালানি ও ভোজ্যতেলসহ নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য সামগ্রী। গ্রেফতার ও আইন শৃঙ্খলা ...