প্রকাশিত: ২৩/১০/২০১৭ ৮:৪৭ পিএম , আপডেট: ১৭/০৮/২০১৮ ১১:৫০ এএম
ফাইল ছবি

হাফেজ মুহাম্মদ কাশেম, টেকনাফ::
টেকনাফের সাবরাং লাফারঘুনা থেকে ২ কোটি ৪০ লক্ষ টাকা মুল্যের ৮০ হাজার পিস ইয়াবা বড়ি উদ্ধার করেছে বিজিবি। তবে গভীর রাতের অন্ধকারের সুযোগে ইয়াবা চোরাকারবারীরা পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়েছে বলে জানা গেছে। উদ্ধারকৃত ইয়াবা ট্যাবলেটগুলো ব্যাটালিয়ন সদরে জমা রাখা হয়েছে। যা পরবর্তীতে উর্দ্ধতন কর্মকর্তা, মাদকদ্রব্য অধিদপ্তরের প্রতিনিধি, স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও মিডিয়া কর্মীদের উপস্থিতিতে ধ্বংস করা হবে।

অভিযানের সত্যতা নিশ্চিত করে ২৩ অক্টোবর টেকনাফ-২ বিজিবি’র পরিচালক অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল এসএম আরিফুল ইসলাম বলেন ‘বিশ্বস্ত গোয়েন্দা সূত্রের মাধ্যমে জানা যায় সাবরাং ইউপিস্থ লাফারগোনার পূর্ব পাশে মাঠের মধ্য দিয়ে ইয়াবার একটি চালান মিয়ানমার হতে বাংলাদেশে প্রবেশ করতে পারে। উক্ত সংবাদের ভিত্তিতে ২ বর্ডার গার্ড ব্যাটালিয়নের অধীনস্থ সাবরাং বিওপির হাবিলদার মোঃ মাহবুবুল আলমের নেতৃত্বে একটি বিশেষ টহল দল ২২ অক্টোবর গভীর রাতে বর্ণিত এলাকায় গমন করতঃ মাঠের এক পাশে ওঁৎ পেতে থাকে। এসময় টহল দল চারজন ব্যক্তিকে ব্যাগ হাতে আসতে দেখে সন্দেহ হওয়ায় চ্যালেঞ্জ করে। আকস্মিক বিজিবি টহলদলের উপস্থিতি লক্ষ্য করা মাত্রই বর্ণিত ব্যক্তিগণ অন্ধকারের সুযোগ নিয়ে কাঁদার মধ্য দিয়ে দ্রুত দৌঁড়ে পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করলে টহলদল তাদের পিছু ধাওয়া করে। এক পর্যায়ে ইয়াবা পাচারকারীরা তাদের কাছে থাকা দুইটি ব্যাগ ফেলে পার্শ্ববর্তী গ্রামের ভেতর পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে টহলদল ইয়াবা পাচারকারী কর্তৃক ফেলে যাওয়া ব্যাগ দুইটি খুলে গণনা করে ২ কোটি ৪০ লক্ষ টাকা মূল্যমানের ৮০ হাজার পিস ইয়াবা ট্যাবলেট উদ্ধার করতে সক্ষম হয়। উদ্ধারকৃত ইয়াবা ট্যাবলেটগুলো ব্যাটালিয়ন সদরে জমা রাখা হয়েছে। যা পরবর্তীতে উর্দ্ধতন কর্মকর্তা, মাদকদ্রব্য অধিদপ্তরের প্রতিনিধি, স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও মিডিয়া কর্মীদের উপস্থিতিতে ধ্বংস করা হবে’।

পাঠকের মতামত

নিজের সম্মানির টাকা মেধাবী শিক্ষার্থীকে দিলেন নাইক্ষ্যংছড়ির ইউএনও

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাকারিয়া নিজের প্রাপ্ত সম্মানির টাকা আর্থিক অনুদান হিসেবে প্রদান করলেন ...