প্রকাশিত: ০৩/০৭/২০১৭ ৫:০০ পিএম , আপডেট: ১৭/০৮/২০১৮ ৫:২৩ পিএম
টেকনাফ প্রতিনিধি ::
টেকনাফে স্কুলে না গিয়ে ১৭ বছর ধরে এক স্কুল শিক্ষক বেতন তুলছেন। তিনি শিক্ষকতার পাশাপাশি আইনজীবী পেশায় জড়িত। কক্সবাজার জেলা আইনজীবী সমিতির এ সদস্য হোয়াইক্যং নয়াপাড়া বটতলী এলাকার মৃত মাস্টার আবুল মঞ্জুরের পুত্র রহমত উল্লাহ বলে জানা গেছে। সে শাহপরীর দ্বীপ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক হিসেবে কাগজে কলমে কর্মরত আছেন।
অভিভাবকরা জানান, রহমত উল্লাহ কোন দিন স্কুলে আসেননি। এমনকি অভিভাবক এবং ছাত্র-ছাত্রীদের অনেকে তাকে চিনেন না। কিন্তু বছরের পর বছর ঐ স্কুল থেকে তিনি বেতন ভাতা তুলছেন।
সুত্র জানায়, স্কুল শিক্ষক রহমত উল্লাহ ২০০০ সালে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীনে সরকারি চাকরিতে প্রবেশ করেন। তিনি শুরু থেকেই এভাবে স্কুল ফাঁকি দিয়ে কক্সবাজার আদালতে ওকালতি করছেন।
প্রধান শিক্ষক কলিমুল্লাহ জানান, মাঝে মধ্যে শিক্ষক রহমত উল্লাহ কোর্টে যান। স্কুলে না এসে কিভাবে তিনি বেতন ভাতা উত্তোলন করছেন প্রশ্ন করলে প্রধান শিক্ষক সাথে সাথে মুঠোফোনের সংযোগ কেটে দেন।
অভিযুক্ত রহমত উল্লাহ বলেন, আমরা মতো অনেকেই আছেন। পেনশনের সুবিধা পর্যন্ত এ রকম ভেতরে ভেতরে অনেকে কোর্টে ওকালতি করছেন।
কক্সবাজার জেলা আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট৬ জিয়া উদ্দিন আহমেদ জানান, অন্য পেশায় জড়িত ছিল না এবং নেই এ ধরণের অঙ্গিকার দিয়েই কিন্তু আইন পেশায় আসতে হয়। কাজেই শিক্ষকতা পেশায় থেকে তথ্য গোপন করে ওকালতি করা জঘন্য অপরাধ।
উপজেলা শিক্ষা অফিসার মো. এমদাদ হোছাইন চৌধুরী জানান, আমিতো আসলে কেবল দায়িত্ব নিয়েছি। তদন্ত করে তিনি বিষয়টি দেখবেন বলে জানান।
জেলা শিক্ষা অফিসার ওসমান গণি বলেন, এ বিষয়ে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এ ঘটনায় জড়িতদের বিরুদ্ধে তিনি বিভাগীয় ব্যবস্থা নিবেন বলে জানান।

পাঠকের মতামত

মিয়ানমারের আরেক গুরুত্বপূর্ণ শহর বিদ্রোহীদের দখলে

মিয়ানমারের বিদ্রোহীরা দেশটির আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ শহরের দখল নিয়েছে। মিয়ানমারের জান্তাবিরোধী সশস্ত্র রাজনৈতিক গোষ্ঠী তা’আং ...

চট্টগ্রাম-কক্সবাজার ও দূরপাল্লার ট্রেন পটিয়া স্টেশনে যাত্রা বিরতির দাবি

চট্টগ্রাম–কক্সবাজার ও দূরপাল্লার ট্রেন পটিয়া স্টেশনে যাত্রা বিরতিসহ বিভিন্ন দাবিতে রেলমন্ত্রী জিল্লুল হাকিমকে স্মারকলিপি দিয়েছেন ...