প্রকাশিত: ৩০/০৮/২০১৬ ৯:৪০ পিএম

Kawkhali olama humanchain News- 30-08-2016 [Max Width 320 Max Height 240]জয়নাল আবেদীন, কাউখালী থেকে::
দেশব্যাপী চলমান জঙ্গি হামলা ও সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে মনববন্ধন কাউখালী করেছে কওমী ওলামা কল্যাণ ফাউন্ডেশন। মঙ্গলবার (৩০ আগষ্ট) সকাল ১১টায় কাউখালী প্রেসক্লাব চত্ত্বরে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

কওমী ওলামা কল্যাণ ফাউন্ডেশন কাউখালী শাখার সভাপতি মাওলানা আব্দুর রহিমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত মানববন্ধনে প্রধান অতিথি হিসিবে উপস্থিত ছিলেন, চট্টগ্রাম জেলা পুলিশ লাইন মসজিদের খতীব আলহাজ্ব হযরত মাওলানা মনসরুল হক জিহাদী। বিশেষ অতিথি ছিলেন, রাঙামাটি রিজার্ভ বাজার জামে মসজিদের খতীব মাওলানা শহিদ উল্লাহ, কাউখালী উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার বাহার মিয়া, ফাউন্ডেশনের উপদেষ্টা মাওলানা আবুল হাসেম।

বক্তব্য রাখেন, কওমী ওলামা কল্যাণ ফাউন্ডেশনের সাধারন সম্পাদক হাফেজ আবুল হোসেন, যুগ্ম সম্পাদক মাওলানা আনোয়ার হোসেন, অর্থ সম্পাদক মাওলানা সানা উল্লাহ, সদস্য মাওলানা মুছা, ওমর ফারুক, মোঃ নুর হোসেন, মাওলানা জয়নাল আবেদীন, মাওলানা ইউসুফ আলী, মাওলানা গোলাম ফারুক প্রমুখ।

প্রধান অতিথি বলেন, ইসলামে জঙ্গীবাদের কোন স্থান নেই, জঙ্গীরা দেশ ও মানবতার শত্রু। তাদের বিরুদ্ধে আলেম সমাজ ও সকল শ্রেণী পেশার মানুষকে ঐক্যবদ্ধ প্রতিরোধ গড়ে তোলতে হবে। তিনি বলেন, জঙ্গী ও সন্ত্রাবাদের সাথে কোন মাদ্রাসা ছাত্র বা আলেম সমাজ জড়িত রয়েছে এমন কোন প্রমান কেউ দিতে পারেনি, ভবিষ্যতেও পারবে না। আলেম সমাজ ঐক্যবদ্ধ হলে সন্ত্রাসী ও জঙ্গীরা পালানোর সুযোগ পাবে না।

এছাড়া বক্তারা বলেন, আন্তর্জাতিক চক্র মুসলমানদেরকে ধ্বংস করতে বাংলাদেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রে লিপ্ত রয়েছে। সন্ত্রাবাদ ও জঙ্গীবাদ এটি একটি রাষ্ট্রীয় সমস্যা। সাধারণ মানুষকে হয়রানি না করে প্রকৃত সন্ত্রাসীদের ধরতে আলেম সমাজ সরকার ও প্রশাসনকে সবধরণের সহযোগীতা দিতে প্রস্তুত রয়েছে।

বক্তারা বলেন, শিক্ষা ব্যবস্থাকে ধ্বংস করে দিতে এটি পরিকল্পিত আক্রমন। এমন পরিস্থিতি থেকে দেশ ও জাতিকে রক্ষা করতে হলে সকল শ্রেণী পেশার মানুষকে ঐক্যবদ্ধ করতে হবে। পাশাপাশি অভিভাবকদের আরো বেশী সচেতন হতে হবে। উদাসীন ছাত্র-ছাত্রীদের ব্যাপারে অভিভাবকরা বিশেষ নজর দিতে হবে। হতাশাগ্রস্থ ছাত্র-ছাত্রীদের দূরে ঠেলে না দিয়ে তাদের সাথে বন্ধুত্বসূলভ আচরণের মাধ্যমে সমস্যাগুলো চি‎িত করতে হবে।

পাঠকের মতামত

সীমান্তে কঠোর নজরদারি, এতো তেল মিয়ানমারে যাচ্ছে কীভাবে?

মিয়ানমারে সংঘাতময় পরিস্থিতিতে বাংলাদেশ থেকে আশঙ্কাজনক হারে পাচার হচ্ছে জ্বালানি তেলসহ প্রয়োজনীয় খাদ্যপণ্য। তবে সীমান্ত ...