প্রকাশিত: ১২/১২/২০১৬ ৭:৫০ এএম

চবি প্রতিনিধি::

চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) সংঘর্ষের ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে ছয় নেতাকে সংগঠন থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করেছে কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগ।

বহিষ্কৃতরা হলেন- বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সহসভাপতি মো. রকিব উদ্দিন, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আবু তোরাব পরশ, সাংগঠনিক সম্পাদক মো. আরমান মিয়া, আপ্যায়ন সম্পাদক মিজানুর রহমান, সদস্য সাইদুল ইসলাম সাঈদ ও আরেফুল হক অপু।

বহিষ্কৃতরা সবাই বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি আলমগীর টিপুর অনুসারী গ্রুপের নেতা হিসেবে ক্যাম্পাসে পরিচিত এবং নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সিটি মেয়র আ জ ম নাসিরের অনুসারী।

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের ছাত্র সংগঠনটির কেন্দ্রীয় দপ্তর সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন শাহজাদা রোববার (১১ ডিসেম্বর) বিকালে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ‌্যালয় শাখার ছয় নেতাকে বহিষ্কারের কথা নিশ্চিত করেন।

দেলোয়ার বলেন, “দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গ ও সংগঠন বহির্ভূত কাজে জড়িত থাকায় ছয়জনকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে।”

শনিবার (১০ ডিসেম্বর) সন্ধায় চট্টগ্রাম নগরীর ২নং গেইট এলাকায় চবি ছাত্রলীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক আবু সাঈদ মারজান ও সহ-সম্পাদক আজিজুল হকের উপর হামলা করে ছাত্রলীগের একটি গ্রুপ। বহিষ্কৃতরা ওই হামলার সাথে জড়িত বলে অভিযোগ রয়েছে।

বিশ্ববিদ‌্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক যুগ্ম সম্পাদক ও কেন্দ্রীয় সহ সম্পাদক দিয়াজ ইরফানের ঝুলন্ত লাশ ক‌্যাম্পাস এলাকায় তার বাসা থেকে উদ্ধারের পর সংগঠনটির বিভিন্ন পক্ষের মধ্যে কয়েকবার সংঘর্ষ হয়।

দিয়াজকে হত‌্যার পর লাশ ঝুলিয়ে রাখা হয় বলে সংগঠনটির এক পক্ষের অভিযোগ। দিয়াজের মায়ের করা মামলায় সভাপতি টিপুকেও আসামি করা হয়েছে।

দিয়াজের মৃত‌্যুর পর ছাত্রলীগের কোন্দল এবং সংঘর্ষের ঘটনা তদন্তে চার কেন্দ্রীয় নেতা চট্টগ্রাম এসেছিলেন। তারা হলেন কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি কাজী এনায়েত, আরিফুর রহমান লিমন, সাকিব হাসান ও যুগ্ম সম্পাদক চন্দ্রশেখর মণ্ডল।

পাঠকের মতামত