প্রকাশিত: ০৫/০৫/২০১৭ ৭:৫০ এএম

নিউজ ডেস্ক::

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আগামীকাল শনিবার আসছেন। ২০০৯ সালে ক্ষমতায় আসার পর চারবার কক্সবাজারে এসেছেন তিনি। কাল পঞ্চম সফরে আসছেন।

সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত ব্যস্ত সময় কাটাবেন প্রধানমন্ত্রী। কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভ, কক্সবাজার বিমানবন্দরে বোয়িং বিমান চলাচল এবং পাঁচটি ভবন উদ্বোধন করবেন। আরো ৯টি প্রকল্পের উদ্বোধন করবেন তিনি।

কক্সবাজার বিমানবন্দরে চলাচল করবে বাংলাদেশ বিমানের বোয়িং ৭৩৭-৮০০ উড়োজাহাজ। এর আগে কখনো এ বিমানবন্দরে বোয়িং ওঠানামা করেনি।

বিকেলে সাগরপারের শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে কক্সবাজার জেলা আওয়ামী লীগের জনসভায় ভাষণ দেবেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি আসছেন, তাই দলের নেতাকর্মী ও সমর্থকদের মধ্যে সাজ সাজ রব।

জেলা প্রশাসন সূত্রে জানা গেছে, আগামীকাল সকাল ৯টা ৪০ মিনিটে কক্সবাজার আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে অবতরণ করবেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। সেখানে বোয়িং ৭৩৭-৮০০ বিমান চলাচল উদ্বোধন করবেন তিনি। এ জন্য রানওয়ের সম্প্রসারণ করা হয়েছে।

সেখান থেকে সকাল ১০টায় ইনানীর উদ্দেশে যাত্রা করবেন প্রধানমন্ত্রী। সকাল ১১টায় সেখানে কক্সবাজার-টেকনাফ মেরিন ড্রাইভের উদ্বোধন করবেন। তাঁর সঙ্গে থাকবেন সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রী ওবায়দুল কাদের এবং সেনাবাহিনী প্রধান জেনারেল আবু বেলাল মোহাম্মদ শফিউল হক। সংশ্লিষ্ট প্রকল্পের তত্ত্বাবধায়ক লে. কর্নেল কে এম মেহেদী হাসান জানান, এটি বিশ্বের দীর্ঘতম মেরিন ড্রাইভ (সাগরপারের সড়ক), যেটি ৮০ কিলোমিটার দীর্ঘ।

জেলা প্রশাসক মো. আলী হোসেন জানান, প্রধানমন্ত্রী বিকেলে শেখ কামাল আন্তর্জাতিক ক্রিকেট স্টেডিয়ামে জেলা আওয়ামী লীগের জনসভায় যোগ দেবেন। সেখানে তিনি কক্সবাজার সরকারি কলেজের একাডেমিক ভবন ও পরীক্ষা হল, কক্সবাজার সরকারি কলেজ ও সরকারি মহিলা কলেজের ছাত্রীনিবাস এবং মহেশখালী-আনোয়ারা গ্যাস সঞ্চালন লাইন উদ্বোধন করবেন।

জনসভামঞ্চের পাশে এক জায়গায় বাঁকখালী নদীর ওপর একটি ব্রিজ, কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের অফিস ভবন, কক্সবাজার মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল, কক্সবাজার আইটি পার্ক, এলএনজি টার্মিনাল, এসপিএম (ইনস্টলেশন অব সিঙ্গেল পয়েন্ট মুরিং), নাফ ট্যুরিজম পার্ক, উখিয়া বঙ্গমাতা ফজিলাতুননেসা মুজিব মহিলা কলেজের একাডেমিক ভবন ও কুতুবদিয়া কলেজের একাডেমিক ভবনের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করবেন প্রধানমন্ত্রী।

এ উপলক্ষে গতকাল বৃহস্পতিবার বিকেল সাড়ে ৫টায় সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে জেলা আওয়ামী লীগ। এতে উপস্থিত ছিলেন কেন্দ্রীয় নেতা এনামুল হক শামীম, শাহজাদা মহিউদ্দীন, আমিনুল ইসলাম আমিন, প্রধানমন্ত্রীর বিশেষ সহকারী সাইফুজ্জামান শিখর ও জেলা সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান চেয়ারম্যান। জেলা সভাপতি অ্যাডভোকেট সিরাজুল মোস্তফা বলেন, ‘আমরা প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানাতে প্রস্তুত। প্রয়োজনীয় সব আয়োজন সম্পন্ন করা হয়েছে। ’

ওঠানামা করবে বোয়িং কক্সবাজার আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে চলাচল করবে বাংলাদেশ বিমানের বোয়িং ৭৩৭-৮০০ উড়োজাহাজ। এখন কক্সবাজার রুটে ছোট আকারের বিমান চলাচল করে। বোয়িংয়ের জন্য রানওয়ে সম্প্রসারণ ও আনুষঙ্গিক যন্ত্রপাতি স্থাপন করা হয়েছে। আপাতত অভ্যন্তরীণ রুটে বাণিজ্যিকভাবে চালু করা হবে।

আগামীকাল সকালে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ফ্লাইট উদ্বোধন করবেন। ওই ফ্লাইটে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে সাধারণ যাত্রীরাও যেতে পারবে বলে বিমান সূত্র জানিয়েছে। এরই মধ্যে এ উড়োজাহাজ পরীক্ষামূলকভাবে অবতরণ করানো হয়েছে।

আগামী বছরের শেষ দিকে কক্সবাজার বিমানবন্দর সম্পূর্ণভাবে আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে রূপান্তরিত হবে। তখন বিদেশি ফ্লাইটও সরাসরি ওঠানামা করবে। ২০০৯ সালে বিমানবন্দর সম্প্রসারণের কাজ শুরু হয়। ব্যয় ধরা হয় এক হাজার ১৩২ কোটি ৩২ লাখ টাকা।

সিভিল এভিয়েশনের এক কর্মকর্তা বলেন, ব্রিটিশ আমলে কক্সবাজার বিমানবন্দর নির্মাণ করা হয়। সময়ের পরিক্রমায় পর্যটন এলাকায় পরিণত হয়েছে কক্সবাজার। তাই বিমানবন্দরটিকে আন্তর্জাতিক মানে উন্নীত করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়।

বিমানের মহাব্যবস্থাপক (জনসংযোগ) শাকিল মেরাজ বলেন, বাংলাদেশ বিমানকে লাভজনক করতে সরকার নানা উদ্যোগ নিয়েছে। কক্সবাজার রুটে বোয়িং ফ্লাইট চালু হবে আগামীকাল। সকালে প্রধানমন্ত্রী ফ্লাইট উদ্বোধন করবেন।

পাঠকের মতামত

মিয়ানমারের আরেক গুরুত্বপূর্ণ শহর বিদ্রোহীদের দখলে

মিয়ানমারের বিদ্রোহীরা দেশটির আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ শহরের দখল নিয়েছে। মিয়ানমারের জান্তাবিরোধী সশস্ত্র রাজনৈতিক গোষ্ঠী তা’আং ...

চট্টগ্রাম-কক্সবাজার ও দূরপাল্লার ট্রেন পটিয়া স্টেশনে যাত্রা বিরতির দাবি

চট্টগ্রাম–কক্সবাজার ও দূরপাল্লার ট্রেন পটিয়া স্টেশনে যাত্রা বিরতিসহ বিভিন্ন দাবিতে রেলমন্ত্রী জিল্লুল হাকিমকে স্মারকলিপি দিয়েছেন ...