প্রকাশিত: ০৭/০৬/২০১৬ ৮:০৫ এএম , আপডেট: ০৭/০৬/২০১৬ ৮:০৭ এএম

বেলাল আজাদ::
গত ৪জুন ইউপি নির্বাচনে রামু উপজেলার খুনিয়াপালং ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ড দারিয়ারদীঘি ভোট কেন্দ্রে পরাজিত মেম্বার প্রার্থী ছব্বির আহমদের লোকজন কর্তৃক ভোট বাক্স ছিনতাইয়ের অপচেষ্টায় পুলিশের এএসপি ছত্রধর ত্রিপুরার গাড়ি ভাংচুর ও পুলিশের উপর হামলার ঘটনায় কর্তব্যরত এএসআই. মোঃ অহিদ বাদী হয়ে পরাজিত প্রার্থী ছব্বির আহমদ(৫০), তার পুত্র মিজান(৩০) ও আইয়ুব আলী(৪০) সহ ৪/৫শ’ অজ্ঞাত আসামীর বিরুদ্ধে রামু থানায় দ্রুত বিচার আইনে দায়েরকৃত (নং-০৩, তাং-০৫/০৬/২০১৬ইং, জিআর-১৭১/২০১৬) মামলায় এজাহার নামীয় আসামী মিজান ও আইয়ুব আলীকে রামু থানার পুলিশ গ্রেপ্তার করে আদালতে সোপর্দ করেছেন। মামলার ১নং আসামী পরাজিত মেম্বার প্রার্থী ছব্বির আহমদ পলাতক থাকলেও হামলায় সরাসরি সম্পৃক্ত দারিয়ার দীঘি মন্ডলপাড়া গ্রামের নাছির আহমদের পুত্র মোঃ দিদার(৩৮) ও ছালেহ আহমদ(৩২), মোজাফ্ফর আহমদের পুত্র আব্দুল খালেক(৩৮) ও রেজাউল করিম(৩২), আবুল কালামের পুত্র ফেরদাউস(৩২) ও মন্নান(২৪), বশির আহমদের পুত্র ফয়েজুল করিম(৩০) ও মোঃ হুমায়ুন(৩৮), মৃত নুর আলীর পুত্র আব্দু শুক্কুর(৪৮), মৃত আব্দুল আজীজের পুত্র মোজাফ্ফর আহমদ(৫৫), মৃত নজির আহমদের পুত্র আবুল কালাম(৪২), আবছার মিয়া(৪০), আজীজ মিয়া(৩৮), মুফিজ মিয়া(৩৬) ও রহিম মিয়া(৩৪), হোছন আহমদ সওঃ এর পুত্র মোঃ ফারুক সওঃ(৩০),মৃত রশিদ আহমদের পুত্র কামাল হোসন(৩৮), মৃত আব্দু ছমদের পুত্র আব্দুল মাজেদ(৪৫), আব্দুর রহিম বাহাদুর(৩৫), বার্মাইয়া নাছির আহমদের পুত্র রফিক(৩০), গোলাম ছোবহানের পুত্র কাউছার(২৪),  ইউসুফ আলীর পুত্র শফিউল আলম(৩০) ও রফিক আলম, ছৈয়দ আলমের পুত্র আক্তার মিয়া সওঃ(৪০), থোয়াইংগাকাটা গ্রামের  জাফর আলমের পুত্র কামাল উদ্দিন(৩৫), মেহের আলীর পুত্র সাইফুল ইসলাম(২২), কালুর দোকান এলাকার মৃত কবির আহমদের পুত্র আব্দুল খালেক(৩৫), আব্দুর রহমানের পুত্র ফরিদ আলম(৪০), মৃত রশিদ আহমদের পুত্র আব্দুল গফুর(৩৮), ইসমাঈলের পুত্র নাছির উদ্দিন(৩৫), দক্ষিণপাড়ার মৃত পাগলা কাদিরের পুত্র ভুট্টু(২৫), পরাজিত প্রার্থী ছব্বির আহমদের স্ত্রী খালেদা বেগম(৪৫), কন্যা রেশমা আক্তার(৩৫), লুৎফা বেগম(৩৩), বোন সিরাজ খাতুন(৪৮), মৃত মৌঃ ইলিয়াছের পুত্র মৌঃ কেফায়ত উল্লাহ(৪৫), ছৈয়দ আলমের পুত্র আব্দুর রহিম(২৮) ও মোঃ এনাম, আবুল বন্দর এলাকার জবির আহমদের পুত্র নুরুল আলম(৩২), পুর্বপাড়া নুরুল আলমের পুত্র জহির উল্লাহ(৪০), মৌলভী পাড়ার সিরাজ উল্লার পুত্র রহিম উল্লাহ(২৮) ও শহিদুল্লাহ(১৮) সহ তাদের সাঙ্গপাঙ্গরা এলাকায় অস্ত্রসস্ত্র নিয়ে শক্তির মহড়া দিচ্ছে।  রামু থানার অফিসার ইনচার্জ শুভাষ চন্দ্র ধর জানান, আসামীদের গ্রেফতারে অভিযান অব্যাহত আে

পাঠকের মতামত

নাইক্ষ্যংছড়িতে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে পরিবেশ আইন লঙ্ঘনের অভিযোগ

নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মো. শফিউল্লাহর বিরুদ্ধে পরিবেশ আইন লঙ্ঘনের অভিযোগ উঠেছে। উপজেলা সদরে নিজ ...