প্রকাশিত: ০৭/১২/২০১৬ ৪:৩৫ পিএম , আপডেট: ০৭/১২/২০১৬ ৪:৪১ পিএম

ডেস্ক রিপোর্ট ::

বৌদ্ধ অধ্যুষিত মিয়ানমারের রাখাইনে রোহিঙ্গা মুসলিমদের ওপর সেনাবাহিনীর কঠোর অভিযান নিয়ে মালয়েশিয়ার প্রতিবাদের জেরে দুই দেশের সম্পর্কের টানাপড়েন শুরু হয়েছে। রোহিঙ্গা ইস্যুতে দুই দেশের মাঝে চলমান উত্তেজনায় এবার মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ মালয়েশিয়া গমনে মিয়ানমারের শ্রমিকদের ওপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে সু চি নেতৃত্বাধীন বার্মার ক্ষমতাসীন সরকার।

রাখাইন গণহত্যায় মিয়ানমারের নেত্রী অং সান সু চির অনুমতি রয়েছে এমন অভিযোগ এনে কুয়ালালামপুরে গত রোববার এক সমাবেশে তীব্র সমালোচনা করেন মালয়েশিয়ার প্রধানমন্ত্রী নাজিব রাজাক। হাজার হাজার মানুষের ওই প্রতিবাদ সমাবেশের পর শ্রমিকদের মালয়েশিয়া গমনে সাময়িক নিষেধাজ্ঞা আরোপ করলো মিয়ানমার।

গত ৯ অক্টোবর মিয়ানমারের রাখাইনের বাংলাদেশ সীমান্তের কাছে বিদ্রেহীদের সশস্ত্র হামলায় পুলিশসহ ৯ জনের প্রাণহানি ঘটে। এর পরে রোহিঙ্গা মুসলিমদের বিরুদ্ধে ব্যাপক সাড়াশি অভিযান শুরু করেছে মিয়ানমার সেনাবাহিনী। রোহিঙ্গাদের একটি সংগঠন বলছে, সেনাবাহিনীর রক্তাক্ত অভিযানে এখন পর্যন্ত আড়াই শতাধিক রোহিঙ্গার প্রাণহানি ঘটেছে।

বার্তাসংস্থা এএফপি এক প্রতিবেদনে বলেছে, রাখাইনে দমন-পীড়নের হাত থেকে বাঁচতে ২০ হাজারেরও বেশি রোহিঙ্গা বাংলাদেশে প্রবেশ করেছে। সেনা অভিযানে জীবিত রোহিঙ্গারা বলছেন, মিয়ানমার নিরাপত্তাবাহিনী ধর্ষণ, হত্যা ও ভয়াবহ নির্যাতন চালাচ্ছে রোহিঙ্গাদের ওপর। রাখাইন থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশের চেষ্টার এক ডজনেরও বেশি রোহিঙ্গা মারা গেছে।

সাম্প্রতিক এই দমন-পীড়নের বিরুদ্ধে সরব হয়ে উঠেছে মালয়েশিয়াসহ এই অঞ্চলের মুসলিম দেশগুলো। মালয়েশিয়ার এক মন্ত্রী ইতোমধ্যে আঞ্চলিক জোট আসিয়ানে মিয়ানমারের সদস্যপদ পর্যালোচনার আহ্বান জানিয়েছেন।

মঙ্গলবার রাতে মিয়ানমারের অভিবাসন মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে বলেছে, মালয়েশিয়া গমনে ইচ্ছুক শ্রমিকদের জন্য নতুন লাইসেন্স প্রদান বন্ধ করা হয়েছে। কোনো ধরনের ব্যাখ্যা না দিয়ে বিবৃতিতে আরো বলা হয়েছে, মালয়েশিয়ার সাম্প্রতিক পরিস্থিতি বিবেচনা করে গত ৬ ডিসেম্বর থেকে সেদেশে শ্রমিক পাঠানো সাময়িকভাবে বন্ধ রাখা হয়েছে।

মিয়ানমারের ১০ হাজার শ্রমিক ইতোমধ্যে মালয়েশিয়ায় কাজ করছে। মালয়েশিয়ায় এদের অনেকেই নিম্ন মজুরিতে বিভিন্ন কারখানা খাদ্য ও হোটেল শিল্পে কাজ করছেন।

মালয়েশিয়া বলছে, সাম্প্রতিক বছরগুলোতে রাখাইনে বৈষম্য ও দারিদ্রতার শিকার অন্তত ৫৬ হাজার রোহিঙ্গা নৌকাযোগে মালয়েশিয়ায় পাড়ি জমিয়েছে। সূত্র : স্টার অনলাইন।

পাঠকের মতামত

রাখাইনে গোলাগুলি নেই /কাজে ফিরেছেন সীমান্তের মানুষ

গোলাগুলি থেমেছে মিয়ানমারের রাখাইনে। গতকাল সারাদিন বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুমধুম থেকে টেকনাফের সেন্টমার্টিন পর্যন্ত সীমান্তের ওপারে ...

সংঘাতের মধ্যেই মিয়ানমারে নির্বাচনের তোড়জোড় জান্তার

গোষ্ঠীগুলোর সঙ্গে বিভিন্ন প্রদেশে সশস্ত্র চলমান সংঘাতের মধ্যেই মিয়ানমারে জাতীয় নির্বাচনের প্রস্তুতি নিচ্ছে ক্ষমতাসীন জান্তা। ...

আত্মসমর্পণের দায়ে ৩ ব্রিগেডিয়ার জেনারেলকে মৃত্যুদণ্ড দিল জান্তা

জান্তাবিরোধী ৩ সশস্ত্র গোষ্ঠীর জোট থ্রি বাদারহুড অ্যালায়েন্সের কাছে আত্মসমর্পণের অভিযোগে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর ৩ জন ...

দাবি ব্রাদারহুড অ্যালায়েন্সের পুরো রাখাইনের নিয়ন্ত্রণ নেওয়ার দ্বারপ্রান্তে বিদ্রোহীরা

মিয়ানমারের তিন সশস্ত্র গোষ্ঠীর জোট ব্রাদারহুড অ্যালায়েন্স জানিয়েছে, রাখাইন রাজ্যের যুদ্ধে হারছে বাহিনী। রোববার (১৮ ...