প্রকাশিত: ২৩/০৯/২০১৬ ৮:১৮ পিএম

img_4774শামীম ইকবাল চৌধুরী,নাইক্ষ্যংছড়ি::
পার্বত্য বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার বাইশারী ইউনিয়নের অভ্যন্তরীন সড়কগুলো বেহাল দশায় পরিণত হয়েছে। বর্তমানে সড়কগুলো দিয়ে চলাচল অনুপযোগী হয়ে পড়েছে। যার ফলে ইউনিয়ন সদরের সাথে অধিকাংশ সড়কে প্রায়ই যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। বান্দরবান জেলার বাইশারী ইউনিয়নের অভ্যন্তরে ইউনিয়ন সদরের সাথে যোগাযোগের জন্য প্রায় ২০ কি.মি পর্যন্ত লম্বা সড়ক রয়েছে। সড়কগুলো হল কাগজিখোলা-বাইশারী সড়ক, ছাগল খাইয়া-বাইশারী সড়ক, করলিয়া মুরা-বাইশারী বাজার সড়ক, আলীক্ষ্যং- থুইহ্লাঅং পাড়া সড়ক, বাইশারী বাজার-লম্বাবিল সড়ক, বটতলী বাজার- নারিচবুনিয়া সড়ক, বাইশারী চাকপাড়া সড়কসহ বিভিন্ন ছোট খাটো অনেক সড়ক রয়েছে। এর মধ্যে অধিকাংশ সড়ক ইট বিছানো। বর্তমানে সড়কগুলো কাদা মাটিতে পরিণতসহ বিভিন্ন জায়গায় খান খন্দ ও ছোট ছোট পুকুর ও কুয়ায় রূপ ধারণ করেছে। বিগত দিনে এসব সড়ক দিয়ে জীপ, মাইক্রো, সিএনজি, অটো রিক্সা, মটর সাইকেল চলাচল করে থাকত। বর্তমানে যানবাহন চলাচল তো দূরের কথা মানুষ পায়ে হেঁটে পর্যন্ত চলাচলের উপায় নেই।

বাইশারীর অভ্যন্তরীন প্রতিটি সড়কের উভয় পার্শ্বে বিভিন্ন গ্রাম সহ ফল-ফলাদির আবাদ রয়েছে। এছাড়া বাইশারী-বাঁকখালী সড়ক, বাইশারী-লম্বাবিল সড়ক দিয়ে রাবার বাগানের লক্ষ লক্ষ টাকার দৈনিক পণ্য সামগ্রী আনায়ন করতে হয়। বর্তমানে সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়ায় কাঁধে বহন করে দূর্গম পাহাড় থেকে রাবার সংগ্রহ করে নিয়ে আসা, আয়-ব্যয় সমান হয়ে যাচ্ছে বলে জানালেন নাজমা খাতুন রাবার বাগানের ম্যানেজার আল আমিন। তিনি আরো বলেন, বর্তমানে রাবারের দর পতনের কারণে বাগান মালিকেরাও বাগান ছেড়ে দিতে বাধ্য হওয়া উপক্রম। এর ভিতর আবার সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়ায় প্রতিদিন কাঁধে বহন করে রাবার পণ্য অফিসে পৌঁছানো দ্বিগুণ খরচ পড়ে যায়।

সরজমিনে বাইশারীর অভ্যন্তরীন সড়কগুলো ঘুরে দেখা যায়, বর্তমানে সড়কগুলো অত্যন্ত খারাপ অবস্থায় রয়েছে। দুর্গম এলাকায় উৎপাদিত শাকসবজি, ফল-ফলাদি পচন ধরে যাচ্ছে। এছাড়া কৃষকেরা উৎপাদিত পণ্য নায্য মূল্য থেকে বঞ্চিত হচ্ছে।

কৃষক আবুল শামা বলেন, বিগত বছরগুলোতে শাকসবজি চাষ করে নিজের সংসার ভালভাবে চালাতে পারলেও এ বছর সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়ার কারণে তিনি তেমন কোন লাভ করতে পারে নাই।

সরজমিনে ঘুরে আরো দেখা যায়, অভ্যন্তরীন সড়কগুলো পাহাড়ী ঢলে ভেঙ্গে যাওয়ায় যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে। এ পর্যন্ত সড়কগুলো কোন প্রকার মেরামত বা সংস্কার করা হয় নাই। যার কারণে যানবাহন চলাচল বন্ধ রয়েছে এবং জনসাধারণের পায়ে হেঁটে বাইশারী সদরে আসা ছাড়া আর কোন বিকল্প পথ নেই।

এ বিষয়ে বাইশারী ইউনিয়ন পরিষদ চেয়ারম্যান মোঃ আলম কোম্পানী বলেন, সড়কগুলোর বিষয়ে তিনি অবগত রয়েছে। অচিরেই পরিষদের মাধ্যমে রেজুলেশন করে উপজেলা প্রশাসনকে অবহিত করা হবে।

পাঠকের মতামত

বেইলি রোডে আগুন কবর খুঁড়ে নাতনি-বৌমা ও ছেলের মরদেহের অপেক্ষায় উখিয়ার আবুল কাশেম!

কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলার হলদিয়াপালং ইউনিয়নের পশ্চিম মরিচ্যা গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা ডা. আবুল কাশেমের বাড়িটি একেবারে ...

কক্সবাজারের পথে কাস্টমস কর্মকর্তা, স্ত্রী ও সন্তানের লাশ, জানাজা রবিবার

বেইলি রোডের আগুনে নিহত কাস্টমস কর্মকর্তা, স্ত্রী ও সন্তানের মরদেহ কক্সবাজারের উখিয়া হলদিয়াপালং পশ্চিম মরিচ্যা ...

বেইলি রোডে আগুন স্ত্রী-সন্তানসহ সাজেক যাওয়া হল না রাজস্ব কর্মকর্তা উখিয়ার শাহজালালের

রাজধানীর বেইলি রোডের ‘কাচ্চি ভাই ভবনে’ লাগা আগুনে স্ত্রী ও সন্তানসহ প্রাণ হারিয়েছেন এনবিআরের কাস্টমস ...

বেইলি রোডের অগ্নিকান্ডে স্ত্রীসন্তানসহ প্রান হারালো উখিয়ার শাহজালাল

রাজধানীর বেইলি রোডের কাচ্চি ভাই রেষ্টুরেন্টের ভবনের অগ্নিকান্ডে দগ্ধ হয়ে কক্সবাজারের উখিয়ার হলদিয়া পালং ইউনিয়নের ...