প্রকাশিত: ০৯/০৮/২০১৭ ৮:১৪ এএম , আপডেট: ১৭/০৮/২০১৮ ৩:২৯ পিএম

নিউজ ডেস্ক::
এবার আট হাজার পিচ ইয়াবা নিয়ে স্ত্রীসহ এক পুলিশ সদস্য ধরা খেলেন বিজিবি’র হাতে। ধৃত মো. এরশাদ আলম (৩০) পুলিশ সদস্য হিসেবে চকোরিয়া থানায় কর্মরত রয়েছেন। ৭ আগস্ট সোমবার রাত পৌনে ১২টার সময় কক্সবাজার-টেকনাফ সড়কের হোয়াইক্যং বিজিবি চেকপোস্টে এ দম্পতিকে আটক করা হয়।

পরে মঙ্গলবার বিকাল সাড়ে ৩টার সময় ধৃত পুলিশ সদস্য ও স্ত্রী কামরুন নাহারকে টেকনাফ মডেল থানায় সোর্পদ করে মামলা রুজু করে বিজিবি। ইয়াবা নিয়ে পুলিশের বহুল আলোচিত গ্রেপ্তার বাণিজ্যের পর এবার ইয়াবার চালান নিয়ে সীমান্তে খোদ পুলিশ সদস্য ধরা খাবার ঘটনায় সর্বত্র তোলপাড় চলছে।

বিজিবি হোয়াইক্যং বিওপির হাবিলদার মো. হায়দার আলী শেখ জানান, রাতে কক্সবাজারগামী যাত্রীবাহী একটি মাইক্রোতে তল্লাশি করে ধৃত কুমিল্লা বুড়িচং উপজেলার পীর যাত্রাপুর এলাকার মৃত আলী আজমের ছেলে মো. এরশাদ আলম ও স্ত্রী কক্সবাজার পিএমখালী ছনখোলা এলাকার আব্দুল হামিদের মেয়ে কামরুন নাহারের কাছে রক্ষিত শপিং ব্যাগ হতে ৪০টি ছোট পলিব্যাগ পাওয়া যায়।

যা গণনা করে ৮ হাজার পিচ ইয়াবা পাওয়া যায়। যার বাজার মূল্য ২৪ লাখ টাকা। এছাড়া ধৃতদের কাছ থেকে ৪টি মোবাইল সেটও উদ্ধার করা হয়। তবে ধৃত ব্যক্তি কোনো সরকারি বাহিনীর সদস্য কিনা তা অবগত নন বলে জানান।

টেকনাফ মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) শেখ আশরাফুজ্জামান এ বিষয়টি এড়িয়ে গেলেও মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই জয়নাল বলেন, মামলাটি যথাযথ তদন্ত করা হবে বলে জানান।

এদিকে চকোরিয়া থানার ওসি বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী জানান, মো. এরশাদ আলম ৭/৮ মাস ধরে চকোরিয়া থানায় পুলিশ কনস্টেবল হিসেবে কর্মরত রয়েছেন। তবে গত তিনদিন ধরে সে কর্মস্থলে অনুপস্থিত রয়েছে। বিষয়টি তিনি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবগত করেছেন বলেও জানান। সুত্র: কক্সবাংলা

পাঠকের মতামত

ছু'রি'কা'ঘাতে মৃ'ত্যুর পথযাত্রী যুবক,টাকা লুট অনিরাপদ ঘুমধুমের টিভি টাওয়ার গরুর হাট

কক্সবাজার-টেকনাফ মহাসড়ক লাগোয়া নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুমের টিভি টাওয়ার গরুর হাটে প্রতিনিয়তই ঘটছে অপ্রীতিকর ঘটনা। হাট ...

নিজের সম্মানির টাকা মেধাবী শিক্ষার্থীকে দিলেন নাইক্ষ্যংছড়ির ইউএনও

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাকারিয়া নিজের প্রাপ্ত সম্মানির টাকা আর্থিক অনুদান হিসেবে প্রদান করলেন ...