প্রকাশিত: ১৬/০৮/২০১৭ ৪:৪২ পিএম , আপডেট: ১৭/০৮/২০১৮ ৩:০৩ পিএম

সীতাকুণ্ড প্রতিনিধি: চট্টগ্রামের সীতাকুণ্ডে বেড়াতে গিয়ে সাগরে ডুবে নিখোঁজ চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (চুয়েট) সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ১৩তম ব্যাচের ছাত্র নাকিব মোহাম্মদ খাব্বাবের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে।
আজ বুধবার দুপুর দেড়টার দিকে ঘটনাস্থল সীতাকুণ্ডের মুরাদপুর ইউনিয়নের গুলিয়াখালী সাগরে জেলেদের জালে আটকা পড়ে লাশটি পরে তা উদ্ধার করে। বিষয়টি নিশ্চিত করেছে সীতাকুণ্ড ফায়ার সার্ভিস।

বিষয়টি নিশ্চিত করে চুয়েটের উপ-ছাত্রকল্যাণ পরিচালক অধ্যাপক ড. জি. এম সাদিকুল ইসলাম বলেন, ‘জেলেদের জালে খাব্বাবের মরদেহ পাওয়া গেছে। আমরা মরদেহটি নিয়ে আসার চেষ্টা করছি।’

এর আগে মঙ্গলবার বিকেল তিনটার দিকে সীতাকুণ্ডের মুরাদপুর গুলিয়াখালী সৈকতে সহপাঠীদের সঙ্গে বেড়াতে যান খাব্বাব। তার সঙ্গে ছিলেন ইমতিয়াজ, নিশাত, পিউলি, সিঁথি, তমাল ও আশিক। তারা দুটি নৌকা ভাড়া করে সাগরে ঘুরে বেড়ান। খাব্বাব ও ইমতিয়াজের নৌকায় স্থানীয় দুজন নারীও ছিলেন। বাকি পাঁচ শিক্ষার্থী অন্য নৌকায় ছিলেন।

একপর্যায়ে দুই নারী সাগরে পড়ে যান। তখন সাঁতার জানা ইমতিয়াজ ঝাঁপিয়ে পড়েন তাদের উদ্ধারের জন্য। সাগর উত্তাল থাকায় একসময় খাব্বাবও পড়ে যান সাগরে। ইমতিয়াজ দুই নারীসহ তাকে আঁকড়ে ধরেন। কিন্তু সাঁতার না জানায় খাব্বাব হাল ছেড়ে দিলে তলিয়ে যান। দুই নারীর মধ্যে একজনকে ইমতিয়াজ ও অন্যজনকে শেষপর্যন্ত জেলেরা উদ্ধার করতে সক্ষম হন।

খবর পাওয়ার পর ঘটনাস্থলে গিয়ে খাব্বাবকে উদ্ধারে ফায়ার সার্ভিসের দুটি টিম অভিযান পরিচালনা করে। এর মধ্যে আগ্রাবাদ বিভাগীয় অফিস থেকে আসা ডুবুরি দলও ছিল। কিন্তু এদিন তাকে উদ্ধার করা না গেলে অভিযান শেষ করে তারা। পরদিন (বুধবার) সকাল থেকে আবারও খাব্বাবকে উদ্ধারে অভিযান শুরু করা হয়।

এর মধ্যেই দুপুর দেড়টার দিকে জেলেদের জালে তার মরদেহ মিলল। কুমিল্লার বরুড়া থানায় খাব্বাবের গ্রামের বাড়ি। চার ভাইয়ের মধ্যে খাব্বাব সবার বড়।

পাঠকের মতামত

ইউএনওর নির্দেশে পল্লী বিদ্যুৎ কর্মচারীকে বেঁধে রাখল আনসার

জামালপুরের দেওয়ানগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার (ইউএনও) নির্দেশে এক পল্লী বিদ্যুৎ কর্মচারীকে খুঁটির সঙ্গে বেঁধে রাখার ...