প্রকাশিত: ২৯/০৬/২০১৭ ৮:৫৬ এএম , আপডেট: ১৭/০৮/২০১৮ ৫:৩৭ পিএম

উখিয়া নিউজ ডটকম::
কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতে গোসল করার সময় গুপ্তখালে পড়ে নিখোঁজ রয়েছে সুদীপ্ত দের (১৮) সন্ধান মেলেনি। ডুবুরিরা সম্ভাব্য সবকটি পয়েন্টে খোঁজাখোজি করেছে। কিন্তু বুধবার সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত তার লাশের সন্ধান পাওয়া যায়নি। এ কারণে সাগর পাড়ে সুদীপ্তের পরিবারের সদস্যদের বিলাপ থামছে না। গত মঙ্গলবার সকাল সাড়ে সাতটার দিকে সৈকতের সী গাল পয়েন্টের কাছে সে নিখোঁজ হয়। সুদীপ্ত দে পিলখানা বীরশ্রেষ্ঠ নুর মোহাম্মদ স্কুল এন্ড কলেজ থেকে এবার এসএসসি পরীক্ষা দিয়েছে। তার বাসা ১০৪ আরএম দাশ রোড, সুত্রাপুর। তার বাবা শীতল চন্দ্র দে জানান, আজ সকালে তারা কক্সবাজার পৌঁছে মোটেল লাবনীতে উঠেন। পরিবারের অন্য সদস্যদের অগোচরে সুদীপ্ত তার বন্ধু মেহেদীসহ সৈকতে ছুটে গিয়ে পানিতে নেমে পড়ে। পরে মেহেদী হোটেলে ফিরে এসে সুদীপ্ত ভেসে যাওয়ার খবর জানায়। সুদীপ্তের মামা সুমন দে জানান, মঙ্গলবার থেকে সৈকতের বিভিন্ন পয়েন্টে ডুবুরি দল সুদীপ্তের খোঁজে তল্লাশি চালায় কিন্তু তাকে পাওয়া যায়নি। ধারণা করা হচ্ছে তার সলিল সমাধি হয়েছে।
সৈকতে রবি উদ্ধারকারী দলের ব্যবস্থাপক সৈয়দ নুর জানান, বর্ষাকালে সাগর সবসময় উত্তাল থাকে। এসময় সৈকতে গুপ্তখালের সৃষ্টি হয়। গুপ্ত খালে থাকে প্রচণ্ড গতির ঘুর্ণিস্রোত। সুদীপ্ত এরকম ঘুর্ণিস্রেতাতে পড়ে মুহূর্তের মধ্যে অদৃশ্য হয়ে যায়।
ডুবুরি মোস্তফা কামাল জানান, সকালে জোয়ার শুরুর সময় এই ঘটনা ঘটে। এসময় পানিতে না নামার জন্য লাল পতাকা সংকেত দেয়া থাকলেও অনেক পর্যটক তা মানেন না। ফলে দূর্ঘটনা ঘটে যায়। ঘুর্ণিস্রোতে পড়লে উদ্ধারের সময় পাওয়া যায় না। সুদীপ্তের বেলায়ও তাই ঘটেছে। কক্সবাজার ট্যুরিস্ট পুলিশের সহকারি পুলিশ সুপার রায়হান কাজেমি জানান, সুদীপ্তের সন্ধানে অভিযান চলছে।

পাঠকের মতামত

মিয়ানমারের আরেক গুরুত্বপূর্ণ শহর বিদ্রোহীদের দখলে

মিয়ানমারের বিদ্রোহীরা দেশটির আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ শহরের দখল নিয়েছে। মিয়ানমারের জান্তাবিরোধী সশস্ত্র রাজনৈতিক গোষ্ঠী তা’আং ...

চট্টগ্রাম-কক্সবাজার ও দূরপাল্লার ট্রেন পটিয়া স্টেশনে যাত্রা বিরতির দাবি

চট্টগ্রাম–কক্সবাজার ও দূরপাল্লার ট্রেন পটিয়া স্টেশনে যাত্রা বিরতিসহ বিভিন্ন দাবিতে রেলমন্ত্রী জিল্লুল হাকিমকে স্মারকলিপি দিয়েছেন ...