প্রকাশিত: ২১/০৬/২০১৭ ৯:২৩ এএম , আপডেট: ১৭/০৮/২০১৮ ৫:৫৭ পিএম

বিবাহিত আপন খালাকে ফুঁসলিয়ে বিয়ে করেছিল ধামরাইয়ের হাজিপুর গ্রামের মো. অপু মিয়া। এরপর কিছুদিন যেতে না যেতেই তিনি প্রতিবেশী সৌদি প্রবাসী মো. সানোয়ার হোসেনের স্ত্রী দুই সন্তানের জননী লাইজু আক্তারের সঙ্গে পরকীয়া প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন।

তারপর গত সোমবার দিবাগত রাতে অসামাজিক কাজে লিপ্ত থাকা অবস্থায় জনতার হাতে আটক হয় অপু আর লাইজু। রাতভর আটকে রেখে তাদেরকে গতকাল মঙ্গলবার সকালে গ্রামবাসী পুলিশে সোপর্দ করে। পরে দুপুরে ধামরাই থানার মধ্যেই তাদের বিয়ে দেয়া হয়। তবে বিয়ের কিছু সময় আগে অপু তার স্ত্রী (খালা) ও লাইজু তার স্বামী সানোয়ারকে ডিভোর্স দেন।

স্থানীয়রা জানায়, ধামরাই সদর ইউনিয়নের হাজিপুর গ্রামের মো. আইয়ুব খান মমিনের ছেলে মো. অপু মিয়া। বছর খানেক আগে সাভারের রাজাশন এলাকায় তার নানার বাড়ি থেকে বিবাহিত আপন খালাকে ফুঁসলিয়ে বিয়ে করে। পরে প্রবাসী সানোয়ার হোসেনের স্ত্রী লাইজুর সঙ্গে পরকীয়ার সম্পর্ক গড়ে ওঠে। প্রতিবেশীরা বিষয়টি টের পেয়ে সানোয়ার হোসেনকে জানায়।

সপ্তাহ খানেক আগে তিনি দেশে আসেন। সোমবার রাতে সানোয়ার বাড়ির পাশের মসজিদে তারবিহ নামাজ পড়ছিলেন। এসময় তার স্ত্রী লাইজু আক্তার গোপন অভিসারে মিলিত হয় অপু মিয়ার সঙ্গে। পরে আশপাশের লোকজন তাদের আটক করে পুলিশে সোপর্দ করে।

এ ব্যাপারে ধামরাই থানার ওসি শেখ মোহাম্মদ রিজাউল হক দীপু বলেন, বিষয়টি শুনেছি। তবে কোনো পুলিশ সদস্য এ প্রেমিক যুগলের বিয়ে ও তালাকের রেজিস্ট্রিতে জড়িত নয়। গ্রামবাসী ও প্রেমিকযুগলের পরিবারের লোকজন মিলে বিবাহ বিচ্ছেদ ও বিয়ে সম্পন্ন করেছে।

পাঠকের মতামত

রামুর ফতেখাঁরকুলে উপ-নির্বাচনে প্রতীক পেয়ে প্রচারনায় ৩ চেয়ারম্যান প্রার্থী

রামু উপজেলার ফতেখাঁরকুল ইউনিয়ন পরিষদের উপ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে প্রতিদ্বন্ধি ৩ প্রার্থীকে প্রতীক বরাদ্ধ দেয়া ...

টেকনাফের পৌর কাউন্সিলর মনিরুজ্জামানের সম্পদ জব্দ দুদকের মামলা

টেকনাফ পৌরসভার কাউন্সিলর মো. মনিরুজ্জামানের সম্পদ জব্দ করেছে দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। কক্সবাজার জ্যেষ্ঠ স্পেশাল ...