আজাহারীর কাছে ধর্মান্তরিত সেই ১১ জনকে পাঠানো হলো ভারতে

লক্ষ্মীপুরের রামগঞ্জে ড. মিজানুর রহমান আজহারীর কাছে কলেমা পড়ে মুসলমান হওয়া সেই ১১ জনকে যশোরের বেনাপোল চেকপোস্ট দিয়ে পাঠানো হলো ভারতে।
সোমবার সকাল ৮টার সময় বিশেষ নিরাপত্তার মধ্যে দিয়ে তাদের ভারত ফেরত পাঠানো হয়।

ফেরত যাওয়া ভারতীয় নাগরিকরা হলেন- সুজাতা, শেফালি, রাজা, সমা, রেখা সুর্য, শ্যামলী, কোয়েল, মিতালী ও শঙ্কর অধিকারী। এদের মধ্যে ২ জন শিশু ও ৪ জন কিশোর-কিশোরী রয়েছে।

তাদের সঙ্গে আসা পুলিশ সদস্যদের কেন ভারত পাঠানো হচ্ছে এ প্রশ্ন করলে তারা কোনো কথা বলেননি। নেমপ্লেট বিহীন পুলিশের এক এসআই বলেন, তাদের উপরের নির্দেশ অনুযায়ী ফেরত পাঠানো হয়েছে।

ধর্মান্তরিত যাত্রী শঙ্কর অধিকারী ওরফে মনির হোসেন বলেন, আমরা গত ২০১৯ সালের আগস্ট মাসে ২ মাসের ভিসা নিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করি। এরপর আমরা আমাদের পৈতৃক বাড়ি লক্ষ্মীপুর জেলার রামগঞ্জ থানার ইছাপুর গ্রামে থেকে যাই। আমার মা সংরক্ষিত নারী আসনের চন্ডীপুর ইউপির একজন মেম্বার। তার নাম ফাতেমা।

তিনি আরো বলেন, আমরা মুসলমান হয়েছি। ভারত আর ফেরত যেতে চাই না। পুলিশ আমাদের ঢাকা নিয়ে যাওয়ার কথা বলে বেনাপোল দিয়ে ভারত পাঠাল। আমরা ভারত গিয়ে কি করব। সবকিছু বিক্রি করে আমরা বাংলাদেশে এসে মুসলমান হয়েছি। বেনাপোল ইমিগ্রেশন ওসি মাসুম বিল্লাহ বলেন, তারা পাসপোর্টধারী যাত্রী, নিয়ম অনুযায়ী নিজ দেশে ইমিগ্রেশনের আনুষ্ঠানিকতা শেষ করে ফিরে গেছে। যদি তেমন কোনো সমস্যা থাকত, আমরা সে বিষয়টি দেখতাম।

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন