প্রকাশিত: ২০/০৩/২০১৭ ১০:৪৬ এএম

সোয়েব সাঈদ, রামু:
টানা ১১দিন নিজ নির্বাচনী এলাকায় বিরতিহীন বিভিন্ন সভা-সমাবেশ, সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের অনুষ্ঠানে অংশগ্রহণ পূর্বক কর্মব্যস্ত সময় পার করে নজির স্থাপন করলেন, কক্সবাজার-৩ (সদর-রামু) আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব সরওয়ার কমল।
জানা গেছে, গত ৮ মার্চ হতে ১৮ মার্চ পর্যন্ত সাংসদ কমল কক্সবাজার-রামু আসনের ৬৫টি সভা-সমাবেশে যোগদান করেছেন। সভা-সমাবেশ ছাড়াও যেসব এলাকায় গিয়েছেন সেখানেই তিনি সর্বস্তুরের নেতা কর্মীদের নিয়ে সাধারণ মানুষের সাথে গণসংযোগ করেছেন। এসময় তিনি নবনির্মিত অনেক সড়ক, সেতু, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান উদ্বোধন সহ সরকারি বিভিন্ন প্রকল্প পরিদর্শন ও নির্মাণ কাজের ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেছেন।
দলীয় নেতা কর্মী ও স্থানীয় জনসাধারণ মনে করছেন, অতীতে কোন সাংসদ নির্বাচনী এলাকা এভাবে চষে বেড়াননি। তাদের মতে, সাংসদ কমলের এমন ত্যাগ এলাকার উন্নয়নের পাশাপাশি মানুষের কল্যাণেও ব্যাপক ভূমিকা রাখবে।
জানা গেছে, সংসদ সদস্য আলহাজ্ব সাইমুম সরওয়ার কমল ১৭ মার্চ কক্সবাজারে জেলা প্রশাসন ও জেলা আওয়ামীলীগ আয়োজিত বঙ্গবন্ধুর জন্ম বার্ষিকী ও জাতীয় শিশু দিবসে র‌্যালী ও আলোচনা ও অন্যান্য কর্মসূচিতে অংশ নেন। এরআগে ৯ মার্চ সাংসদ কমল কক্সবাজার শহরের কস্তুরাঘাট থেকে মহেশখালি জেটিঘাট পর্যন্ত অংশের খননকাজে উদ্বোধন অনুষ্ঠানে যোগদান করেন। একইদিনে তিনি জেলা সড়ক পরিবহন মালিক শ্রমিক ঐক্য পরিষদের মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন।
ওইদিন বিকালে সাংসদ কমল রামু উপজেলার দক্ষিণ মিঠাছড়িতে ইউনুচ ভূট্টো গোল্ডকাপ ফুটবল টূর্ণামেন্টের ফাইনাল খেলায় বিজয়ীদের পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির ভাষন দেন। এছাড়া ওইদিন সাংসদ কমল দক্ষিণ মিঠাছড়ি ইউনিয়নের জ্বিনের ঘোনা এলাকায় নব প্রতিষ্ঠিতি ইউনুচ ভূট্টো বেসরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে শিক্ষা কার্যক্রমের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন।
১৫ মার্চ কক্সবাজারের ঐতিহ্যবাহি ঈদগাহ ফরিদ আহমদ ডিগ্রী কলেজে নবীন বরণ ও এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন। একইদিন তিনি রামু উপজেলার জোয়ারিয়ানালা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের বার্ষিক ক্রীড়া, সাহিত্য-সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি’র বক্তৃতা করেন। এ অনুষ্ঠানে যোগদানের পূর্বে সংসদ সদস্য আলহাজ্ব সাইমুম সরওয়ার কমল জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়নের মাদরাসা গেইট এলাকায় গণসংযোগ করেন এবং রামু রাবার বাগান রেস্ট হাউসে ছাত্রলীগ নেতৃবৃন্দের সাথে মত বিনিময় করেন। রাতে জোয়ারিয়ানালা এলাকায় সৃষ্ট দাঙ্গা নিরসনে দুপক্ষের লোকজন ও ব্যক্তিবর্গকে নিয়ে সমঝোতা বৈঠক করেন করেন।
১৬ মার্চ কক্সবাজার সদর উপজেলার বৃহত্তর ঈদগাহ এর পোকখালী মুসলিম বাজারে আয়োজিত বিশাল জনসভায় প্রধান অতিথির ভাষন দেন সাংসদ কমল। একই দিন তিনি ইসলামাবাদ ইউনিয়নের ইউসুফেরখিল বৈদ্যঘোনা এলাকায় ৬০ লাখ টাকা ব্যয়ে নবনির্মিত সেতুর উদ্বোধন করেন এবং জলদাশ পাড়া এলাকায় আয়োজিত পথসভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন। পরে ইউসুপেরখিল সমাজ কমিটির বৈঠকে অংশ নেন। ওই রাতে সাংসদ কমল রামুর জোয়ারিয়ানালা ইউনিয়নের উত্তর মিঠাছড়ি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের বার্ষিক পুরস্কার বিতরণ ও আলোচনা সভায়ও প্রধান অতিথি হিসেবে যোগদান করেন।
গত ১৮ মার্চ রামু উপজেলার সর্বোচ্চ বিদ্যাপীঠ রামু বিশ্ববিদ্যালয় কলেজে বর্ণাঢ্য আনুষ্ঠানিকতায় ছাত্রলীগ আয়োজিত নবীন বরণ উৎসব ও এইচএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন।
গত ১৪ মার্চ সাংসদ কমল রামু উপজেলার ঐতিহ্যবাহি জোয়ারিয়ানালা এইচএম সাঁচি উচ্চ বিদ্যালয়ের বার্ষিক ক্রীড়া, সাহিত্য-সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি’র বক্তৃতা করেন।
এ ব্যাপারে জানতে চাইলে সংসদ সদস্য আলহাজ্ব সাইমুম সরওয়ার কমল বলেন, বঙ্গবন্ধু তনয়া প্রধানমন্ত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে কক্সবাজার ও রামুতে অভূতপূর্ব উন্নয়ন কর্মকান্ড বাস্তবায়িত হচ্ছে। কক্সবাজার আর্ন্তজাতিক বিমানবন্দর এর কাজ চলছে। রেল লাইনের কাজও শীঘ্রই শুরু হবে। রামুতে এক লাখ দর্শক ধারন ক্ষমতার একটি স্টেডিয়াম, বিকেএসপি ভবন, ক্যাডেট কলেজ নির্মাণ, ২০৩ কোটি টাকা ব্যয়ে বন্যা নিয়ন্ত্রন প্রকল্পের কাজ শুরু হবে। এছাড়া বিদ্যুৎবিহীন এলাকাগুলোতে বিদ্যুতায়ন, গ্রামীণ সড়ক-সেতু নির্মাণ ও সংস্কারসহ ব্যাপক উন্নয়ন কর্মকান্ড এগিয়ে চলছে। এসব কাজের অগ্রগতি আর মানুষের সমস্যার কথা জানার জন্যই আমি সময় পেলে তৃণমূল এলাকায় যাওয়ার চেষ্টা করি। গত ১১দিনে কক্সবাজার ও রামু উপজেলার প্রায় ৬৫টি সভা-সমাবেশ ও সরকারি-বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের অনুষ্ঠানে অংশ নিয়েছি এবং এসব এলাকায় গণসংযোগ করে আগামি সংসদ নির্বাচনে উন্নয়নের প্রতীক নৌকা মার্কায় ভোট দেয়ার জন্য ভোটারদের উদ্বুদ্ধ করেছি।
তিনি আরো বলেন, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগের সভানেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধিন সরকার সারাদেশে ব্যাপক উন্নয়ন কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছে। যার ছোঁয়া এখন কক্সবাজার ও রামুর আনাচে কানাচে ছড়িয়ে পড়ছে। এখন বিদ্যুতের লোডশেডিং নেই। ১০ টাকা দরে চাল পাচ্ছে অসহায় গরিব জনতা। বেড়ে গেছে মাথা পিছু আয়। দারিদ্র পরিবারের শিশুরাও এখন শিক্ষা লাভের সুযোগ পাচ্ছে। উন্নয়নের এ ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে তিনি আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনে সকলের দোয়া কামনা করেছেন।

পাঠকের মতামত

আজ পহেলা বৈশাখ

আজ রোববার (১৪ এপ্রিল) পহেলা বৈশাখ-বাংলা নববর্ষ। বাংলা বর্ষপঞ্জিতে যুক্ত হলো নতুন বাংলা বর্ষ ১৪৩১ ...

বান্দরবানে যৌথ বাহিনীর অভিযান পরিচালিত এলাকায় ভ্রমণে নিষেধাজ্ঞা

বান্দরবানে সন্ত্রাসবিরোধী অভিযান পরিচালিত রুমা,রোয়াংছড়ি ও থানচি এলাকায় পর্যটকদের ভ্রমণ নিরুৎসাহিত করছে বান্দরবান জেলা প্রশাসন। ...

বাসের সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষে চট্টগ্রাম-কক্সবাজার সড়কে দুই মোটরসাইকেল আরোহী নিহত

পটিয়ায় মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় দুই আরোহী নিহত হয়েছে। নিহতরা হলেন- বোয়ালখালী উপজেলার পশ্চিম গোমদন্ডী এলাকার মোঃ ...