প্রকাশিত: ২৫/০৫/২০১৬ ৯:৩৯ পিএম

Chakaria Team Shillong 25.05.2016~1নিজস্ব প্রতিবেদক

ভারতের মেঘালয় রাজ্যের রাজধানী শিলংয়ে অবস্থানরত কক্সবাজারের কৃতিপুরুষ, বিএনপির কেন্দ্রীয় নেতা ও সাবেক যোগাযোগ প্রতিমন্ত্রী সালাহউদ্দিন আহমদের সাথে আরও একটি প্রতিনিধি দল দেখা করে এসেছেন। চকরিয়া পৌর বিএনপির সভাপতি ও সাবেক পৌর মেয়র নুরুল ইসলাম হায়দারের নেতৃত্বে চার সদস্যের ওই প্রতিনিধি দলটি তিনদিন শিলংয়ে অবস্থান করেন। ওই সময় সালাহউদ্দিন আহমদ প্রতিনিধি দলটির সাথে কক্সবাজার জেলার সামগ্রিক বিষয়াদির পাশাপাশি দেশের রাজনৈতিক বিষয় নিয়ে মতবিনিময় করেছেন।

ওই প্রতিনিধি দলের সাথে আলোচনায় সালাহউদ্দিন আহমদ দলীয় নেতা-কর্মীদের ঐক্যবদ্ধ থেকে সবধরণের রাজনৈতিক কর্মসূচি চালিয়ে যাবার পরামর্শ দিয়েছেন। তিনি বলেন, ‘আমি রাজনীতি করি দেশের মানুষের কল্যাণের জন্য। গণতন্ত্র রক্ষার জন্য আমার রাজনীতি।’

সালাহউদ্দিন আহমদ মনে করেন, দেশের বর্তমান দূর্দশা কেটে যাবে। তার জন্য বিএনপি নেতা-কর্মীদের ঐক্যবদ্ধ ভাবে কাজ করে যেতে হবে।

তিনি কক্সবাজার জেলার রাজনীতি ছাড়াও দেশের সামগ্রিক রাজনীতি নিয়েও কথা বলেন প্রতিনিধি দলের সাথে।

চকরিয়ার সাবেক পৌর মেয়র নুরুল ইসলাম হায়দারের নেতৃত্বাধীন ওই দলে আরও ছিলেন চকরিয়া পৌর বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক ও সাবেক পৌর কাউন্সিলর নুরুল আমিন, যুগ্ম সম্পাদক ও সাবেক পৌর কাউন্সিলর নাজেম উদ্দিন ও স্ব্ছোসেবক দল জেলা শাখার প্রবাসী কল্যাণ বিষয়ক সম্পাদক ও চকরিয়া উপজেলা শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক সাহাবউদ্দিন লাল্টু।

প্রতিনিধি দলের প্রধান নুরুল ইসলাম হায়দার জানান, তারা গত ২০ মে মেঘালয় রাজ্যের শিলংয়ে পৌছান। তৃতীয় দিনের মাথায় ২২ মে তারা দেশে ফিরে আসেন।

তিনি বলেন, ‘আমরা আমাদের প্রিয় নেতা সালাহউদ্দিন আহমদের সাথে দেখা করতে গিয়েছিলাম। তিনি অসুস্থ আছেন, তাঁকে দেখতে যাওয়া আমাদের দায়িত্ব।’

নুরুল ইসলাম হায়দারের মতে, সালাহউদ্দিন আহমদ ভারতে অসুস্থ থাকলেও তিনি দেশের কথা ভুলে যাননি। তাঁর অন্তরজুড়েই বাংলাদেশ। তিনি প্রতিনিয়তই দেশের মানুষের ও দলীয় নেতা-কর্মীদের খোঁজখবর রাখছেন।

প্রতিনিধি দলের অন্যতম সদস্য সাবেক কাউন্সিলর নুরুল আমিন বলেন, ‘সালাহউদ্দিন আহমদ এমন একজন নেতা, যিনি দুঃসময়ে সুসময়ে কখনোই নিজের নেতা-কর্মীদের ভুলে যান না।’

তিনি জেলার বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতা-কর্মীদের ঐক্যবদ্ধ হয়ে কাজ করে যাওয়ারও নির্দেশ দিয়েছেন বলেও দাবি করেন নুরুল আমিন।

ওই প্রতিনিধি দলের আরেক সদস্য স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা সাহাবউদ্দিন লাল্টু বলেন, ‘সালাহউদ্দিন আহমদ কেবল কক্সবাজারের নেতা নন, তিনি এই দেশের অমূল্য সম্পদ। এই মুহুর্তে তাঁকে বাংলাদেশের বিশেষ প্রয়োজন।’

লাল্টু মনে করেন, সালাহউদ্দিন আহমদ যদি এখন ক্ষমতায় থাকতেন কক্সবাজার রেললাইন, গভীর সমুদ্র বন্দরসহ উন্নয়নের উৎসব চলতো এই অঞ্চলে।

সাহাবউদ্দিন লাল্টু জানান, সালাহউদ্দিন আহমদ আইনি মারপ্যাঁচে পড়ে ভারতে অবস্থান করলেও তাঁর অন্তর পড়ে আছে এই দেশে। তিনি ফিরে আসতে চান দ্রুততর সময়ে। আইনি প্রক্রিয়া শেষে তিনি দ্রুতই দেশে ফিরে আসতে পারবেন বলেও আশাবাদী তরুণ এই স্বেচ্ছাসেবক দল নেতা।

প্রসঙ্গত, ২০১৫ সালে সরকার বিরোধী রাজনৈতিক কর্মসূচি চলাকালে বিএনপি মুখপাত্র সালাহউদ্দিন আহমদ ১০ মার্চ রাতে ঢাকার উত্তরা এলাকার একটি ভবন থেকে আইন শৃংখলা বাহিনী পরিচয়ে একদল মুখোশধারী সশস্ত্র লোকের হাতে ‘অপহৃত’ হয়ে দীর্ঘ দুই মাস দুই দিন ‘গুম’ ছিলেন। পরে ২০১৫ সালের ১২ মে ভারতের পাহাড় ও পাথরের রাজ্য মেঘালয়ের শিলং শহরে ফেলে আসা হয়। ওখানেই ভারতে অনুপ্রবেশের ‘মিথ্যা’ অভিযোগে গ্রেপ্তার হন। পরে আদালতে অনুপ্রবেশের দায় অস্বীকার করে আইনি মোকাবিলা চালিয়ে যাচ্ছেন সালাহউদ্দিন আহমদ।

পাঠকের মতামত

মিয়ানমারের আরেক গুরুত্বপূর্ণ শহর বিদ্রোহীদের দখলে

মিয়ানমারের বিদ্রোহীরা দেশটির আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ শহরের দখল নিয়েছে। মিয়ানমারের জান্তাবিরোধী সশস্ত্র রাজনৈতিক গোষ্ঠী তা’আং ...

চট্টগ্রাম-কক্সবাজার ও দূরপাল্লার ট্রেন পটিয়া স্টেশনে যাত্রা বিরতির দাবি

চট্টগ্রাম–কক্সবাজার ও দূরপাল্লার ট্রেন পটিয়া স্টেশনে যাত্রা বিরতিসহ বিভিন্ন দাবিতে রেলমন্ত্রী জিল্লুল হাকিমকে স্মারকলিপি দিয়েছেন ...