প্রকাশিত: ১৪/০৫/২০১৭ ৭:৫৯ এএম

ইমাম খাইর,
জেলা বিএনপির তৃণমূল প্রতিনিধি সভায় নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সাবেক মন্ত্রী সালাহউদ্দিন আহমদ ভারতের শিলং থেকে ধারণকৃত ভিডিওতে বলেছেন, আমি দুঃসহ যাতনার মধ্য দিয়ে নির্বাসিত জীবন পার করছি। নির্বাসিত জীবন থেকে আমি বিজয়ের স্বপ্ন দেখছি। এই অমানিশা কেটে যাবে। আপনারা সকলেই ঐক্যবদ্ধ থাকুন। সাংগঠনিক শক্তি বৃদ্ধির কোন বিকল্প নেই।আপনাদের ঐক্যই শক্তি। গণতন্ত্র পূনরুদ্ধারের আন্দোলন, সার্বজনিন মৌলিক অধিকার ফিরিয়ে আনার আন্দোলন, নির্বাচনের মাধ্যমের স্বৈরাচার পতন আন্দোলন, ভোটের অধিকার নিশ্চিত করার আন্দোলন- যাই হোক সাংগঠনিক শক্তি বৃদ্ধি ছাড়া এসব আন্দোলনে জয়লাভ করা সম্ভব হবে না। তিনি বলেছেন, তৃণমূলে সাংগঠনিক শক্তি বৃদ্ধি ও ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের মাধ্যমে জনগণের ভোটের অধিকার নিশ্চিত করতে হবে। আমি নির্বাসিত দুঃসহ জীবনে এই আশা নিয়ে বেঁচে আছি।

কক্সবাজার শহরের পাঁচ তারকা মানের হোটেল সী-প্যালেসের সম্মেলন কক্ষে শনিবার বিকালে জেলা বিএনপি আয়োজিত তৃণমূল প্রতিনিধি সভায় সালাহউদ্দিন আহমদ কথাগুলো বলছিলেন।

তিনি বলেন, সকল স্বৈরাচারের কর্তৃত্বমূলক শাসন, জবদস্তিমূলক শাসন- অবশ্যই নির্মম পতনের মাধ্যমে পরিসমাপ্তি ঘটবে।

পৃথিবীর ইতিহাসে, সভ্যতার ইতিহাসে কোন স্বৈরাচারই বেশীদিন টিকে থাকতে পারে নি-পারবেও না। বাংলাদেশের মানুষের সামনে আমরা আশার আলো দেখতে পাচ্ছি।

প্রায় ১০ মিনিটের আবেগ মিশ্রিত বক্তৃতার শুরুতে সালাহউদ্দিন আহমদ বলেন, যারা আমার মুক্তির জন্য আন্দোলন করেছে, মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামীনের কাছে প্রার্থনা করেছেন তাদের সকলের প্রতি আমি গভীর কৃতজ্ঞতা জানাচ্ছি। বিশেষ করে ইলেক্ট্রনিক, প্রিন্ট ও অনলাইন মিডিয়ার সাংবাদিকদের ধন্যবাদ জানাচ্ছি। আপনাদের কলমযুদ্ধ আমার মুক্তি আন্দোলনকে সফল করে তুলেছে। বাংলাদেশের গণমাধ্যমকর্মীদের ভূমিকা স্বাধীনতাযুদ্ধ থেকে শুরু করে আজ পর্যন্ত সকল আন্দোলনকে মহিমান্বিত করেছে। সুদৃঢ় করেছে, সমৃদ্ধ করেছে এবং সফল করেছে। আমি সবাইকে আমার অন্তরের অন্তঃস্থল থেকে স্বশ্রদ্ধ সালাম জানাচ্ছি।

নির্বাসিত বিএনপি নেতা সালাহউদ্দিন আহমদ বলেন, কোন স্বৈরাচারী শক্তি বেশী দিন ক্ষমতায় টিকে থাকতে পারেনা। বাংলাদেশের মানুষ ঐক্যবদ্ধ হয়েছে। দেশকে স্বৈরাচারমুক্ত করতে হবে। খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে দেশকে এগিয়ে নিতে হবে। আওয়ামী দুঃশাসনের অবসান হবে। আমাদের বিজয় আসেই ইনশাল্লাহ।

সালাহ উদ্দিনের বক্তব্যকালে পুরো সভাস্থল নিরব নিস্তব্ধ ছিল। নেমে আসে ভিন্ন এক পরিবেশ। প্রিয় নেতার বক্তৃতা শুনে এ সময় অনেককে কাঁদতে দেখা গেছে।এই জনপদের উন্নয়নের রূপকার জাতীয় নেতা সালাহউদ্দিন আহমদের সম্মানে সভায় নির্ধারিত আসনটি খালি রাখা হয়।

পাঠকের মতামত

মিয়ানমারের আরেক গুরুত্বপূর্ণ শহর বিদ্রোহীদের দখলে

মিয়ানমারের বিদ্রোহীরা দেশটির আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ শহরের দখল নিয়েছে। মিয়ানমারের জান্তাবিরোধী সশস্ত্র রাজনৈতিক গোষ্ঠী তা’আং ...

চট্টগ্রাম-কক্সবাজার ও দূরপাল্লার ট্রেন পটিয়া স্টেশনে যাত্রা বিরতির দাবি

চট্টগ্রাম–কক্সবাজার ও দূরপাল্লার ট্রেন পটিয়া স্টেশনে যাত্রা বিরতিসহ বিভিন্ন দাবিতে রেলমন্ত্রী জিল্লুল হাকিমকে স্মারকলিপি দিয়েছেন ...