প্রকাশিত: ২১/০৮/২০১৭ ৬:৫৮ এএম , আপডেট: ১৭/০৮/২০১৮ ২:৪৯ পিএম

জসিম উদ্দিন টিপু, টেকনাফঃঃ
টেকনাফে বিজিবি জওয়ানেরা পৃথক অভিযান চালিয়ে ৫৮হাজার ৭শ ৫০পিস ইয়াবা বড়িসহ ১জন মিয়ানমার নাগরিককে আটক এবং অপর এক ব্যক্তিকে পলাতক আসামী করে মামলা দায়ের করা হয়েছে।

সুত্র জানায়,২০আগষ্ট ভোররাত ৫টারদিকে টেকনাফ ২বিজিবি ব্যাটালিয়নের দমদমিয়া বিওপির নায়েক মোঃ হাবিবুর রহমানের নেতৃত্বে বিশেষ একটি টহলদল মিয়ানমার হতে ইয়াবার চালান আসার সংবাদ পেয়ে সাবরাং ইউপির নাফনদীর বকজোড়া পয়েন্টে অবস্থান নেয়। কিছুক্ষণ পর মিয়ানমার হতে একটি কাঠের নৌকা নিয়ে ৩/৪জন লোক কেওড়া বাগানে পৌঁছলে বিজিবি জওয়ানেরা চ্যালেঞ্জ করা মাত্র পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। বিজিবি জওয়ানেরা ধাওয়া করে মিয়ানমারের আকিয়াব জেলার মন্ডু থানার মুন্নী পাড়ার মৃত ওমর মিয়ার পুত্র ওমর ফারুক (৩২)কে একটি স্কুল ব্যাগ ও মুঠোফোনসহ আটক করে। ব্যাগটি ব্যাটালিয়ন সদরে নিয়ে গণনা করে ৮৫লক্ষ ৭১হাজার টাকার ২৮হাজার ৫শ ৭০পিস ইয়াবা বড়ি পাওয়া যায়। ধৃত আসামীকে অবৈধভাবে বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ এবং নিষিদ্ধ মাদক ইয়াবা বহনের দায়ে টেকনাফ মডেল থানায় পৃথক দুইটি মামলা দায়ের করতঃ ধৃত আসামীকে জব্দকৃত ইয়াবা ট্যাবলেটসহ টেকনাফ মডেল থানায় সোপর্দ করা হয়েছে। অপরদিকে গত ১৯আগষ্ট বিকাল সোয়া ৩টারদিকে শাহপরীর দ্বীপ বিওপির নায়েক মনিরুল ইসলামের নেতৃত্বে বিশেষ টহলদল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শাহপরীর দ্বীপ গোলা পাড়ার মৃত মুসা আলীর পুত্র নুর মোহাম্মদ (৩৫) মাটির নীচে লুকানো অবস্থা হতে ইয়াবা ভর্তি একটি ব্যাগ বাড়িতে নেওয়ার সংবাদ পেয়ে তার বাড়ি ঘেরাও করে তল্লাশী চালিয়ে উক্ত ব্যাগটি উদ্ধার করে। তা ব্যাটালিয়ন সদরে নিয়ে গণনা করে ৯০লক্ষ ৫৪হাজার টাকার ৩০হাজার ১শ ৮০পিস ইয়াবা বড়ি পাওয়া যায়। এই ঘটনায় নুর মোহাম্মদকে পলাতক আসামী করে মামলা দায়েরের পর জব্দকৃত ইয়াবা বড়ি টেকনাফ মডেল থানায় হস্তান্তর করা হয়েছে। টেকনাফ ২বিজিবি ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লেঃ কর্ণেল এসএম আরিফুল ইসলাম অভিযানের সত্যতা নিশ্চিত করেন।

পাঠকের মতামত

নিজের সম্মানির টাকা মেধাবী শিক্ষার্থীকে দিলেন নাইক্ষ্যংছড়ির ইউএনও

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জাকারিয়া নিজের প্রাপ্ত সম্মানির টাকা আর্থিক অনুদান হিসেবে প্রদান করলেন ...