প্রকাশিত: ০৪/১২/২০১৬ ৯:৩২ পিএম

শাহজাহান চৌধুরী শাহীন, কক্সবাজার::

কক্সবাজার জেলা পরিষদ নির্বাচনে দ্বিতীয় দিনে মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই ৬ জনের মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে। চেয়ারম্যান পদে ২ জন সহ মোট প্রার্থী রয়েছে ৮৭ জন।

রবিবার ৪ডিসেম্বর সকাল দশটা থেকে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে বাছাই কার্যক্রম চলে।

এতে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) ও ভারপ্রাপ্ত রিটার্নিং অফিসার কাজি মোঃ আবদুর রহমান, জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মোঃ মোজাম্মেল হোসেন, কক্সবাজার সদর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা শিমুল শর্মা, চকরিয়া উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও সহকারী রিটার্নিং অফিসার শাখাওয়াত হোসেন, মহেশখালী উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা মো. বেদারুল আলমসহ সংশ্লিষ্ট প্রার্থীরা উপস্থিত আছেন।

এতে ৯ নং ওয়ার্ডের প্রার্থী সোহেল জাহান চৌধুরীর বিরুদ্ধে মামলা সংক্রান্ত অভিযোগ উত্তাপিত হলেও তা প্রমাণিত হয়নি।

রোববার শুধু ১ জন প্রার্থীর আবেদন বাতিল করা হয়। এর আগে শনিবার দুই চেয়ারম্যান ও সংরক্ষিত আসনের প্রার্থীসহ সাধারণ ৫টি ওয়ার্ডের মনোনয়নপত্র বাছাই সম্পন্ন হয়।

একইদিন সাধারণ সদস্য পদে ৭ জনের প্রার্থীতা বাতিল করেছে নির্বাচন কমিশন। তারা বিভিন্ন সময় ব্যাংকের কাছ থেকে ঋণ নিয়েও পরিশোধ করেননি। ফলে ব্যাংকের তালিকায় তাঁরা ঋণ খেলাপী।

বাছাইয়ের প্রথম দিনেই টিকে যান চেয়ারম্যান পদে দুই হেভিওয়েট প্রার্থী মোস্তাক আহমদ চৌধুরী ও এ.এইচ সালাহউদ্দিন মাহমুদ এবং সংরক্ষিত ৫টি আসনের সব প্রার্থী।

মনোনয়নপত্র বাতিল হওয়া প্রার্থীরা আগামী ৬ ডিসেম্বর পর্যন্ত অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনারের কাছে আপীল করতে পারবেন। সেখানে বাতিলকৃত মনোনয়নপত্র টিকে গেলে আসন্ন নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে পারবেন। আর বাতিল হলে একমাত্র উচ্চ আদালতের সিদ্ধান্ত তাঁদের নির্বাচনে অংশগ্রহণে সহায়ক ভূমিকা পালন করতে পারবে। আগামী ১১ ডিসেম্বর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন।

১২ ডিসেম্বর প্রতীক বরাদ্দ এবং ২৮ ডিসেম্বর ভোট গ্রহণ।

গত ১ ডিসেম্বর মনোনয়পত্র জমাদানের শেষ দিনে দুইজন চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ ৯৩ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। সেখানে সদস্য পদে ৭১ জন ও সংরক্ষিত পদে ২০ নারী সদস্য ছিল।

পাঠকের মতামত

সীমান্তে পরিবর্তন হতে পারে এসএসসির পরীক্ষাকেন্দ্র

বাংলাদেশ-মিয়ানমার সীমান্তে চলমান সংঘাতকে কেন্দ্র করে পরিস্থিতি বিবেচনায় বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলায় অবস্থিত উখিয়া উপজেলার নিকটবর্তী ...

ঘুমধুম সীমান্তে অবিস্ফোরিত মর্টার শেল নিষ্ক্রিয়

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি উপজেলার ঘুমধুম-তুমব্রু সীমান্তের নোয়াপাড়া এলাকায় পরিত্যক্ত অবস্থায় উদ্ধার করা অবিস্ফোরিত মর্টার শেল নিষ্ক্রিয় ...