প্রকাশিত: ২৯/০৬/২০১৭ ৭:৫৮ এএম , আপডেট: ১৭/০৮/২০১৮ ৫:৩৭ পিএম

উখিয়া নিউজ ডটকম::
ঈদের আনন্দ উপভোগ করতে গিয়ে সমুদ্র ও নদীতে ডুবে পর্যটক, শিক্ষার্থী, শিশুসহ ১১ জন প্রাণ হারিয়েছে। এর মধ্যে পাঁচজনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। আরো পাঁচজন নিখোঁজ রয়েছে। উদ্ধার তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে। সংশ্লিষ্ট ব্যক্তিরা বলছেন, নিখোঁজ শিশু-কিশোরদের বেঁচে থাকার আর কোনো সম্ভাবনা নেই। এসব ঘটনায় সাগরপার ও নদীর তীরে স্বজনের আহাজারিতে পরিবেশ ভারী হয়ে ওঠে।

গত তিন দিনে কক্সবাজারে ছয়জনের ডুবে যাওয়ার খবর পাওয়া গেছে। এর মধ্যে শিশুসহ তিনজনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। ঢাকার দোহারে পদ্মা নদীতে বিশ্ববিদ্যালয় ও কলেজের তিন ছাত্র ডুবে গেছে। এর মধ্যে এক ছাত্রের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। বাকিদের সন্ধানে অভিযান চলছে। মুন্সীগঞ্জের লৌহজংয়ে মাওয়া পুরাতন ফেরিঘাট এলাকায় বেড়াতে এসে পদ্মায় নিখোঁজ হয়েছে এক এসএসসি পরীক্ষার্থী।

ঈদে বন্ধুদের সঙ্গে সুনামগঞ্জের টাঙ্গুয়ার হাওরে গোসল করতে গিয়ে ডুবে মারা গেছে সিলেট এমসি কলেজের অনার্স শেষ বর্ষের ছাত্র হাসান আহমেদ। গতকাল বুধবার বিকেলে এ ঘটনা ঘটে। নিহত হাসান আহমেদ শহরের হাজীপাড়া এলাকার বাসিন্দা।

বিস্তারিত আমাদের আঞ্চলিক অফিস, নিজস্ব প্রতিবেদক ও প্রতিনিধিদের পাঠানো খবরে—

কক্সবাজারে ঈদের পরের দিন মঙ্গলবার সকালে সাগরপারের লাবণী পয়েন্টে গোসল করতে ঢাকা থেকে আসা এক পর্যটক কলেজ ছাত্র নিখোঁজ রয়েছে। তার নাম সুদীপ্ত দে (১৭)। সে পরিবারের অন্য সদস্যদের সঙ্গে বেড়াতে এসেছিল। গতকাল পর্যন্ত তার সন্ধান মেলেনি। বিকেলে টেকনাফের নাফ নদে মিয়ানমার ট্রানজিট জেটিঘাট এলাকায় নৌকাডুবির ঘটনা ঘটে। এতে তিন শিশু-কিশোর নিখোঁজ রয়েছে। এ ঘটনায় ১৪ জনকে উদ্ধার করেছে স্থানীয় লোকজন।

নিখোঁজ শিশু-কিশোররা হলো টেকনাফ পৌরসভা এলাকার ইসলামাবাদের মনু মিয়ার ছেলে আমিন (৯), মৌলভীপাড়ার মীর আহমদের ছেলে আনোয়ার সাদেক (১৪) ও নাজিরপাড়ার হামিদ হোসেনের ছেলে সাদ্দাম হোসেন (১৫)। এ ছাড়া গতকাল সকালে সাদ্দাম হোসেনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। নিখোঁজ শিশু-কিশোরদের উদ্ধারে ফায়ার সার্ভিস ও কোস্ট গার্ড সদস্যরা তৎপরতা অব্যাহত রেখেছেন।

এদিকে কক্সবাজারের উখিয়া উপজেলার রত্না পালং ইউনিয়নের ভালুকিয়া পালং গ্রামে পুকুরের পানিতে পড়ে আয়েশা ছিদ্দিকা (৭) নামের এক শিশুর সলিলসমাধি ঘটেছে। বাঁকখালী নদীর পানিতে ঈদের দিন সাঁতরাতে গিয়ে আবু বকর (১১) নামের এক স্কুল ছাত্র নিখোঁজ হয়। কক্সবাজারের রামু উপজেলার ওমখালী গ্রামের এই শিশুর লাশ গতকাল সকালে উদ্ধার করা হয়েছে।

টেকনাফ কোস্ট গার্ড স্টেশনের লে. কমান্ডার জাফর ইমাম সজীব জানান, নিখোঁজ শিশু-কিশোরদের উদ্ধারে কোস্ট গার্ড সদস্যরাও তৎপরতা চালিয়ে যাচ্ছেন। কক্সবাজারের জেলা প্রশাসক মো. আলী হোসেন জানিয়েছেন, নিখোঁজ পর্যটকের খোঁজে নৌবাহিনীর সদস্যরা কাজ করছেন।

মুন্সীগঞ্জের লৌহজংয়ে মাওয়া পুরাতন ফেরিঘাট এলাকায় বেড়াতে এসে পদ্মায় নিখোঁজ হয়েছে এক এসএসসি পরীক্ষার্থী। তার নাম হাসান। তার বাড়ি রাজধানীর ফার্মগেটের পূর্ব নাখালপাড়া। সে ফার্মগেট বয়েজ উচ্চ বিদ্যালয়ের এসএসসি পরীক্ষার্থী।

মাওয়া নৌ পুলিশ ফাঁড়ির এসআই মো. জামশেদ আলী জানান, গত মঙ্গলবার বিকেলে এসএসসি পরীক্ষার্থী হাসান ও তার বন্ধু টিপু ফেরিঘাট এলাকায় বেড়াতে আসে। এ সময় তারা দুজন পদ্মা নদীতে গোসল করতে নামে। এর মধ্যে টিপু কোনো রকম তীরে উঠতে সক্ষম হলেও পদ্মার প্রবল স্রোতে হাসান ভেসে যায়।

হাসানের মামা বাচ্চু জানান, সকাল ১১টার দিকে মাওয়া থেকে ভাটির দিকে পদ্মার ডান পাশ ধরে শরীয়তপুরের শুরেশ্বর পর্যন্ত খোঁজা হয়েছে। কিন্তু গতকাল সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত তার কোনো সন্ধান মেলেনি। হাসানের মা তাকে বেড়াতে যেতে নিষেধ করেছিলেন। হাসান বলেছিল, ‘মা, পরীক্ষার আগে আর কোথাও যাব না, একটু যাই। ’

ঢাকার দোহারের মৈনট পদ্মা নদীতে গোসল করতে নেমে রাজধানীর বিভিন্ন কলেজের তিন শিক্ষার্থী নিখোঁজ রয়েছেন। এর মধ্যে ইসতিয়াক আহমেদ মাহিন (২২) নামে একজনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তিনি ঢাকার ইউনাইটেড ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটির বিবিএর ছাত্র। এখনো নিখোঁজ রয়েছেন ঢাকা কমার্স কলেজের শিক্ষার্থী সুপ্রিয় ঢালী (১৯) ও মিরপুরের মনিপুর স্কুল অ্যান্ড কলেজের শিক্ষার্থী সালমান বিন জামাল (১৯)।

জানা যায়, গত মঙ্গলবার দুপুরে মাহিন, সুপ্রিয়, সালমান, অপূর্ব ও ফাহিম এই পাঁচ বন্ধু ঢাকা থেকে একটি প্রাইভেট কার নিয়ে মৈনট বেড়াতে আসেন। বিকেল ৪টার দিকে মাহিন, সুপ্রিয় ও সালমান মৈনট ঘাটের অদূরে পদ্মা নদীতে নেমে লাফালাফি করতে থাকেন। এ সময় একই সঙ্গে বেড়াতে আসা বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) শিক্ষার্থী অপূর্ব ও মনিপুর হাই স্কুল অ্যান্ড কলেজের উচ্চ মাধ্যমিক দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী ফাহিম আল ইসলাম নদীপারে দাঁড়িয়ে তাঁদের উচ্ছ্বাস প্রত্যক্ষ করছিলেন। নিমিষেই পানির স্রোতে তলিয়ে যান মাহিন, সুপ্রিয় ও সালমান। তাত্ক্ষণিকভাবে ঘটনাটি ঘাট কর্তৃপক্ষ ও পুলিশকে জানান অপূর্ব ও ফাহিম।

একমাত্র ছেলের লাশ দেখে কান্নায় ভেঙে পড়েন বৃদ্ধ বাবা হাজি মো. শাহ আলম। তিনি বলেন, ‘আমার একমাত্র ছেলেটা এভাবে চলে যাবে ভাবতে পারিনি। কয়েক দিন আগে আমার কাছে একটি মোটরসাইকেল কিনে দেওয়ার আবদার করেছিল, আমি দিইনি। বলেছিলাম বিবিএ পাস করো, তোকে মার্সিডিঞ্জ গাড়ি কিনে দেব। ভেবেছিলাম ছেলেটা লেখাপড়া শেষ করে আমার সব ব্যবসার দায়িত্ব তুলে নেবে। কিন্তু সব স্বপ্ন যে শেষ হয়ে গেল। ’ একইভাবে নদীপারে ছুটে আসে নিখোঁজের স্বজনরা।

জানা যায়, উদ্ধার ইসতিয়াক আহমেদ মাহিন ঢাকার মোহাম্মদপুর এলাকার হাজি মো. শাহ আলমের ছেলে, সালমান বিন জামাল মিরপুর এলাকার বাসিন্দা জামাল উদ্দিনের ছেলে এবং সুপ্রিয় মুন্সীগঞ্জের শ্রীনগর গজারিয়া এলাকার নাসির ঢালীর ছেলে।

দোহার থানার ওসি সিরাজুল ইসলাম শেখ বলেন, ‘নদীতে না নামার জন্য প্রশাসন ও ঘাট কর্তৃপক্ষের পক্ষ থেকে সারা দিন মাইকে ঘোষণা করা হয়। কিন্তু নিষেধ না মেনেই নদীতে নামার কারণে এমন দুর্ঘটনা ঘটেছে। ’

দোহার উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা কে এম আল-আমিন বলেন, ‘যেকোনো উৎসবে দর্শনার্থীরা এখানে আসে। আর এসেই নদীতে নামতে শুরু করে। পারিবারিকভাবে তাদের সচেতন করতে হবে। ’

সুনামগঞ্জে টাঙ্গুয়ার হাওরে ঈদে বেড়াতে এসে কলেজ ছাত্রের মৃত্যু হয়েছে। পুলিশ ও এলাকাবাসী সূত্রে জানা যায়, বুধবার বন্ধুদের সঙ্গে নৌকাযোগে হাসান আহমেদ টাঙ্গুয়ার হাওরে বেড়াতে যায়। সারা দিন হাওরে ঘুরে বেড়ায় তারা। পাশের খাসিয়া পাহাড় লাগোয়া টেকেরঘাট খনিজ প্রকল্পের নীলাভ লেকটিতে নেমে বন্ধুদের সঙ্গে গোসলও করেছে। ফেরার পথে গোলাবাড়ি এলাকায় অবস্থিত ওয়াচ টাওয়ারে নৌকা ভিড়িয়ে গোসল করতে নামে তারা। গোসল করে সবাই নৌকায় উঠলেও সবার অগোচরে হাসান থেকে যায়। নৌকায় ওঠেনি। বন্ধুরা নৌকা অনেক দূরে যাওয়ার পর নৌকায় হাসানকে না পেয়ে খোঁজাখুঁজি শুরু করে। না পেয়ে আবার ওয়াচ টাওয়ারে ফিরে আসে তারা। সেখানে চারপাশে খোঁজাখুঁজি করে হঠাৎ টাওয়ারে নিচে টাঙ্গুয়ার হাওরে পানির নিচে তাকে পড়ে থাকতে দেখে দ্রুত উদ্ধার করে নৌকায় তোলে। তার সাড়া না পেয়ে তাহিরপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসা হলে কর্তব্যরত ডাক্তার হাসানকে মৃত ঘোষণা করেন।

পাঠকের মতামত

মিয়ানমারের আরেক গুরুত্বপূর্ণ শহর বিদ্রোহীদের দখলে

মিয়ানমারের বিদ্রোহীরা দেশটির আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ শহরের দখল নিয়েছে। মিয়ানমারের জান্তাবিরোধী সশস্ত্র রাজনৈতিক গোষ্ঠী তা’আং ...

চট্টগ্রাম-কক্সবাজার ও দূরপাল্লার ট্রেন পটিয়া স্টেশনে যাত্রা বিরতির দাবি

চট্টগ্রাম–কক্সবাজার ও দূরপাল্লার ট্রেন পটিয়া স্টেশনে যাত্রা বিরতিসহ বিভিন্ন দাবিতে রেলমন্ত্রী জিল্লুল হাকিমকে স্মারকলিপি দিয়েছেন ...