প্রকাশিত: ১৬/০৬/২০১৭ ৯:০৩ এএম , আপডেট: ১৭/০৮/২০১৮ ৪:২৬ পিএম


শফিক আজাদ,উখিয়া নিউজ ডটকম::

গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের অর্থায়নে গত ২০১১-১২ অর্থবছরে ১ কোটি ৫০ লাখ টাকা ব্যয়ে উখিয়ায় ফায়ার সার্ভিস স্টেশন নির্মাণ কাজ শুরু হয়। ঠিকাদার নির্ধারিত সময়ে নির্মাণকাজ সম্পন্ন করতে না পারায় ২০১৩ সালের ৩ সেপ্টেম্বর উখিয়ায় সফরে এসেও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা উখিয়াবাসীর স্বপ্নের ফায়ার সার্ভিস উদ্বোধন করতে পারেননি। এ সময় উখিয়ায় বিভিন্ন উন্নয়নমূলক প্রকল্প উদ্বোধনের সময় উখিয়া ফায়ার সার্ভিসও উদ্বোধনের কথা ছিল। কিন্তু গত ২০১৬সালের শেষ নাগাদ নির্মাণ কাজ শেষ হলেও বিভিন্ন জটিলতায় ফায়ার সার্ভিস ষ্টেশনটি উদ্ভোধন না হওয়ায় উখিয়াবাসির কোন কাজে আসছেনা।

উখিয়া ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি একেরাম জানান, নির্মিত ফায়ার সার্ভিস ষ্টেশনটি চালু হলে গতকাল বৃহস্পতিবার রাত দেড় টার দিকে কোটবাজারে সৃষ্ট অগ্নিকান্ড থেকে ব্যবসায়ীরা রক্ষা পেত, কিন্তু সংশ্লিষ্ঠ দপ্তরের খামখেয়ালিপনার কারণে এটি উদ্ভোধন বা চালু হচ্ছেনা। উখিয়ার প্রতিটি মানুষ আজ নিরাপত্তাহীনতায় ভোগছে। অথচ ফায়ার সার্ভিস উখিয়ার মানুষের গণদাবী ছিল। নির্মাণ কাজ শেষ হওয়ার পরও ফায়ার সার্ভিস চালু না হওয়া রহস্যজনক। ফায়ার সার্ভিস চালুকরণ গণদাবী স্বীকার করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাঈন উদ্দিন বলেন, দীর্ঘ এক বছর আগে ফায়ার সার্ভিস স্টেশনের নির্মাণ কাজ শেষ হলেও চালু না হওয়ায় পর পর ৫টি ভয়াবহ অগ্নিকান্ডের ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ কমানো সম্ভব হয়নি। এমনকি গতকাল বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত দেড় টার দিকে উখিয়া উপজেলার ব্যস্ততম ষ্টেশন কোটবাজারের হাকিম ট্রেড সেন্টার নামক মার্কেটের নিচ তলায় গলির ভেতরে অবস্থিত একটি মোবাইল অপারেটর ও সার্ভিস সেন্টারে রাত ১টার দিকে আগুন লাগে। একটি প্রায় অর্ধকোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতির সম্ভাবনা রয়েছে। আগুনের কুন্ডলী ও প্রচন্ড ধোয়া দেখতে পেয়ে মাকের্টের ্যবসায়ী ও এলাকার লোকজন এসে দ্রুত আগুন নিয়ন্ত্রণ আনার চেষ্টা চালায়। উখিয়া থানার অফিসার মোঃ আবুল খায়ের ঘটনার সত্যতার স্বীকার করে বলেন, আগুন লাগার খবর পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌছি এবং ফায়ার সার্ভিসকে খবর দিই। ফায়ার সার্ভিস এসে আগুন নিয়ন্ত্রণ আনতে সক্ষম হয়। ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা জানিয়েছে মার্কেটের ভেতর একটি দোকান সম্পূর্ণ পুড়েগেছে আর একটি দোকানের কিছু অংশ ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছে। যার ক্ষতির পরিমাণ প্রায় অর্ধ কোটি টাকা। কোথা থেকে আগুনের সুত্রপাত হয়েছে তা এখন পর্যন্ত নিশ্চিত হতে পারেনি। বিদ্যুৎ এর শটসার্কিট থেকে আগুন লাগতে পারে বলে ধারনা করা হচ্ছে। আগুনে পুড়ে যাওয়া দোকানটি স্থানীয় ব্যবসায়ী টিটুর দোকান বলে জানাগেছে।

এদিকে নির্মাণ শেষ হওয়ার পরও উখিয়াবাসির কাংখিত ফায়ার সার্ভিস ষ্টেশনটি চালু/উদ্ভোধন না হওয়ায় সাধারণ মানুষের মাঝে মিশ্র প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি হয়েছে। অনেকে বলছেন গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় ইচ্ছাকৃত ভাবে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের নিকট হস্তান্তর না করায় এটি উদ্ভোধন হচ্ছেনা। কিন্তু এর ক্ষতি ভার বহন করতে হচ্ছে উখিয়াবাসিকে।

পাঠকের মতামত

মিয়ানমারের আরেক গুরুত্বপূর্ণ শহর বিদ্রোহীদের দখলে

মিয়ানমারের বিদ্রোহীরা দেশটির আরও একটি গুরুত্বপূর্ণ শহরের দখল নিয়েছে। মিয়ানমারের জান্তাবিরোধী সশস্ত্র রাজনৈতিক গোষ্ঠী তা’আং ...

চট্টগ্রাম-কক্সবাজার ও দূরপাল্লার ট্রেন পটিয়া স্টেশনে যাত্রা বিরতির দাবি

চট্টগ্রাম–কক্সবাজার ও দূরপাল্লার ট্রেন পটিয়া স্টেশনে যাত্রা বিরতিসহ বিভিন্ন দাবিতে রেলমন্ত্রী জিল্লুল হাকিমকে স্মারকলিপি দিয়েছেন ...