প্রকাশিত: ০১/০৯/২০১৬ ৮:০১ এএম

নিউজ ডেস্ক::

উখিয়ার হাজাম রাস্তার মাথা গ্রামের খাইরুল হক সওদাগরের বিবাহিতা কন্যা বেলাল উদ্দিনের দ্বিতীয় স্ত্রী অপহরণ মামলা নাটকের নায়িকা ও বহুল আলোচিত হিমা সুলতানা মুন্নীকে (১৪) আদালত পুলিশ হেফাজতে প্রেরণ করেছে। গত ১৩ জুন রাত ১০ টায় মুন্নীকে অপহরণ করা হয়েছে মর্মে মুন্নীর মা লুৎফুর নাহার বেগম বাদি হয়ে ১৯ জুন নারী ও শিশুনির্যাতন দমন আইনে নিরীহ ৮ ব্যক্তিকে আসামি করে মামলা করেন। উক্ত মামলায় পুলিশ মুন্নীর স্বামী বেলাল উদ্দিনকে আটক করলেও পুলিশ বলছে, তার বিরুদ্ধে আরো মামলা আছে। দীর্ঘ ৬৯ দিন পর গত রোববার সকাল ১০টায় উখিয়া থানা পুলিশ গোপন সূত্রের সংবাদের ভিত্তিতে ফলিয়াপাড়া থেকে মুন্নীকে উদ্ধার করে আদালতে প্রেরণ করেন। পুলিশের কাছে দেয়া স্বীকারোক্তিতে হিমা সুলতানা মুন্নী অকপটে স্বীকার করে বলেন, তাকে তার মা লুৎফুর নাহার ইচ্ছাকৃত ও উদ্দেশ্যমূলকভাবে লুকিয়ে রেখে প্রতিপক্ষকে মিথ্যা মামলায় ফাঁসাতে অপহরণ মামলা দায়ের করেছে। গত ২৮ জুন মুন্নীকে আদালতে হাজির করা হলে সেতার বয়স ১৮ দাবি করলে আদালত তাকে পুলিশ হেফাজতে রাখার নির্দেশ দেন।
অপহরণ মামলার আসামি দানু মিয়া ও মোহাম্মদ আলী জানান, তাদেরকে অহেতুক মিথ্যা মামলায় জড়ানোর কারণে এলাকায় তাদের ভাবমূর্তি ও বংশমর্যাদা ক্ষুণ্ন হয়েছে। উক্ত অপহরণ মামলার সুষ্ঠু তদন্ত ও বিচার দাবি করে মামলার আসামিদ্বয় কক্সবাজার পুলিশ সুপারের নিকট অভিযোগ করেছেন। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই মশিউর রহমান জানান, নিজ মেয়েকে লুকিয়ে রেখে নিরীহ লোকজনকে হয়রানি করার দায়ে মুন্নীর মা লুৎফুর নাহার বেগমকে আইনের আওতায় আনা হতে পারে।

পাঠকের মতামত

রামুতে ৬টি ডায়াগনস্টিক সেন্টার ও ক্লিনিকে ভ্রাম্যমান আদালতের অভিযান

কক্সবাজারের রামুতে ডায়াগনস্টিক সেন্টার ও ডেন্টাল ক্লিনিকে অভিযান চালিয়েছে ভ্রাম্যমান আদালত। রবিবার, ৩ মার্চ দুপুরে ...