ব্যারিস্টার সুমনকে মামলা থেকে অব্যাহতি

হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের কটূক্তি করার অভিযোগে করা ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলার দায় থেকে ব্যারিস্টার সৈয়দ সায়েদুল হক সুমনকে অব্যাহতি দিয়েছেন ট্রাইব্যুনাল।

রোববার বাংলাদেশ সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক আস-শামস জগলুল হোসেন পুলিশের দেয়া প্রতিবেদন গ্রহণ করে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের মামলা থেকে তাকে অব্যাহতি দেন।

এর আগে রাজধানীর ভাষানটেক থানার পুলিশ আদালতে একটি প্রতিবেদন দাখিল করেন। প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, ব্যারিস্টার সুমনের ফেসবুক থেকে এ ধরনের কোনো ঘটনা ঘটেনি। তাই তাকে মামলার দায় থেকে অব্যাহতির আবেদন করছি।

ট্রাইব্যুনালের পেশকার শামীম আল মামুন বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, আজ পুলিশের প্রতিবেদন আদালতে উপস্থাপন করা হয়। মামলার বাদী আদালতে উপস্থিত ছিলেন। তিনি কোনো নারাজি দেননি। আদালত পুলিশের দেয়া প্রতিবেদন গ্রহণ করে মামলার দায় থেকে ব্যারিস্টার সুমনকে অব্যাহতি দেন।

এর আগে গত বছরের ২২ জুলাই বাংলাদেশ সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক আস-শামস জগলুল হোসেনের আদালতে গৌতম কুমার এডবর নামে রাজধানীর ভাষানটেকের এক সমাজসেবক মামলাটি করেন। পরে আদালত বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ শেষে ভাষানটেক থানার পুলিশের পরিদর্শককে তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, গত ১৯ জুলাই ব্যারিস্টার সুমন ফেসবুকে বলেন, পৃথিবীর মধ্যে নিকৃষ্ট এবং বর্বর জাতি হচ্ছে হিন্দু ধর্মাবলম্বী, যাদের ধর্মের কোনো ভিত্তি নেই। মনগড়া বানানো ধর্ম। হয়তো দু-একটি খবর নিউজে প্রকাশিত হয়। এছাড়া আরও অনেক ঘটনা ধামাচাপা পড়ে যায়, তাদের নৃশংসতার আড়ালে।

অভিযোগে আরও বলা হয়, গত ১৯ জুলাই সনাতন ধর্ম ও হিন্দু ধর্মাবলম্বীদের নিয়ে মিথ্যা, অশ্লীল চরম আপত্তিকর মন্তব্য করেন। ফলে হিন্দুসমাজ তথা গোটা জাতির মধ্যে এ বিষয় নিয়ে চাপাক্ষোভ বিরাজ করছে। আসামির এ রকম আচরণ এবং সোশ্যাল মিডিয়ার অশ্লীল অবমাননাকর ও অরুচিপূর্ণ বক্তব্যের ফলে রাষ্ট্র ও হিন্দুসমাজের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন হয় এবং ধর্মীয় অনুভূতিতে আঘাত হানে। আসামির এ ধরনের উসকানিমূলক বক্তব্যের ফলে সাধারণ জনগণ নীতিভ্রষ্ট,অসৎ হইতে উদ্ধত হওয়ার ফলে আইনশৃঙ্খলা বিঘ্ন হওয়ার সম্ভাবনা আছে।

কিন্তু এ ব্যাপারে ব্যারিস্টার সুমন আগে থেকেই বলে আসছেন, তার এ ফেসবুক আইডিটি ফেক। গত ২০ জুলাই ভেরিফাইড ফেসবুকে তিনি লেখেন, ‘আমার নাম ব্যবহার করে একটি ফেক পেজ হিন্দু সম্প্রদায়ের বিরুদ্ধে বিষোদগার করছে। আমি এ বিষয়টি পুলিশকে জানিয়েছি। আপনারা সচেতন থাকবেন। এটাই আমার একমাত্র পেজ, যার ফলোয়ার ২০ লাখের অধিক।’

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন