বেতন না, দেশের টানে কাজ করে পুলিশ-র‍্যাব : কক্সবাজারে আইজিপি


পুলিশের মহাপরিদর্শক (আইজিপি) ড. বেনজীর আহমেদ জানিয়েছেন, পুলিশ ও র‍্যাব সদস্যরা বেতনের জন্য না, দেশের টানে কাজ করেন। র‍্যাবের দুঃসাহসিক অভিযান ও সাফল্যের কারণে সুন্দরবন দস্যুমুক্ত হয়েছে।

শুক্রবার (২৯ জুলাই) কক্সবাজার সমুদ্র সৈকতের লাবনী পয়েন্ট দীপংকর দীপন পরিচালিত ‌‘অপারেশন সুন্দরবন’ সিনেমার ট্রেলার উন্মোচন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য তিনি এসব কথা বলেন।

আইজিপি বলেন, র‍্যাব বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ সন্ত্রাস দমনে গঠিত একটি চৌকস বাহিনী। দেড় যুগ ধরে এই বাহিনী অত্যন্ত দক্ষতা ও সাহসিকতার সঙ্গে দেশের জঙ্গি, চরমপন্থি, সন্ত্রাস, মাদক চোরাচালান ও অপহরণসহ নানা অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড সাফল্যের সঙ্গে নিয়ন্ত্রণ করে আসছে। আমাদের ভুরি ভুরি সাফল্যের মধ্যে অন্যতম বিশ্বের সবচেয়ে বড় ম্যানগ্রোভ বনাঞ্চল সুন্দরবনকে দস্যুমুক্ত করা। র‍্যাবের সদস্যরা যে জীবন বাজি রেখে মানুষের পাশে থাকতে দৃঢ় প্রতিজ্ঞা ছিল তাই প্রতীয়মান হয়েছে। আমাদের র‍্যাব সদস্যরা আসল হিরো।

বেনজীর আহমেদ বলেন, প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে আমরা সুন্দরবনকে দস্যুমুক্ত করেছি। সুন্দরবনে সুষ্ঠু ও শান্তির পরিবেশ ফিরিয়ে আনা হয়েছে।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে র‌্যাবের ডিজি আব্দুল্লাহ আল মামুন বলেন, বিশ্বের সর্ববৃহৎ ম্যানগ্রোভ ফরেস্ট সুন্দরবনকে দস্যুমুক্ত করা র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়নের বড় একটি অর্জন। অপহরণ-হত্যার ঘটনা এখন আর শোনাই যায় না। জেলেদের কষ্টার্জিত উপার্জনের ভাগও এখন কাউকে দিতে হচ্ছে না। বন্যপ্রাণী, মাওয়ালি, বাওয়ালি ও বনজীবী ছাড়াও পর্যটকরা নির্বিঘ্নে সুন্দরবনে ভ্রমণ করতে পারছেন। অর্থনৈতিক গতিশীলতায় ব্যাপক প্রাণের সঞ্চার হয়েছে বনে। আর এসব সম্ভব হয়েছে সুন্দরবনকে দস্যুমুক্ত করার প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দূরদর্শী পরিকল্পনা থেকে।

অনুষ্ঠান চলাকালীন ‘অপারেশন সুন্দরবন’ নিয়ে কাজের অভিজ্ঞতা জানতে চাইলে সিনেমাটির অভিনেতা সিয়াম বলেন, প্রতিটি মুহূর্তেই অ্যাডভেঞ্চার ছিল। তীব্র শীতের মধ্যে সুন্দরবনে আট-দশ দিন টানা পানির ওপরে থেকে কাজ করতে হয়েছে। কাজের সময় নিজেকে র‍্যাবের একজন কর্মকর্তাই ভেবেছি। আমি লেফটেন্যান্ট কমান্ডার ছিলাম। র‍্যাবের সত্যিকার সদস্যরা সঙ্গে ছিলেন। মনে হচ্ছিল, তাদের বাস্তবেই লিড করছি।

‘রক্তের শেষ বিন্দু বাজি’ গানটি প্রসঙ্গে রোশান বলেন, অসাধারণ একটা গান। ভীষণ পছন্দ হবে সবার। র‍্যাব কর্মকর্তাদের চিয়ার-আপ (অনুপ্রাণিত) করার মতো গান। জীবন বাজি রেখে র‍্যাব বাহিনীর বিভিন্ন কর্মকাণ্ড ও অর্জনের কথা এই গানটির মাধ্যমে তুলে ধরা হয়েছে।

‘অপারেশন সুন্দরবন’ পরিচালনা করেছেন ‘ঢাকা অ্যাটাক’ খ্যাত নির্মাতা দীপংকর দীপন। ‘রক্তের শেষ বিন্দু বাজি’ গানটি সম্পর্কে তিনি বলেন, গানটি আমার খুব পছন্দ হয়েছে। আমি গোটা সিনেমায় র‍্যাব বাহিনীর যে শক্তি, সামর্থ্য ও অর্জনের কথা বলতে চেয়েছি, এই গানটিতে তারই প্রতিফলন ঘটেছে।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন- ‘অপারেশন সুন্দরবন’ সিনেমার অভিনয়শিল্পী রিয়াজ, সিয়াম, নুসরাত ফারিয়া, রোশান, দর্শনা, মনোজ প্রামাণিক, রাইসুল ইসলাম আসাদসহ প্রমুখ। অনুষ্ঠানে সিনেমার গানের সঙ্গে লাইভ পারফর্ম করেন অভিনয় শিল্পীরা। এছাড়া ট্রেলার প্রকাশ অনুষ্ঠানের আগে এ তারকারা কক্সবাজার শহরের বিভিন্ন জায়গা, হোটেল-রেস্তোরাঁ ও সমুদ্রসৈকতের বিভিন্ন পয়েন্টে সিনেমার প্রচারণায় অংশ নেন।

দেশের প্রথম ওয়াইল্ড লাইফ অ্যাকশন থ্রিলার সিনেমা হতে যাচ্ছে ‘অপারেশন সুন্দরবন’। এর মাধ্যমে জানা যাবে, র‍্যাব কীভাবে সুন্দরবনকে দস্যুমুক্ত করেছে। জেলেরা কীভাবে দস্যুদের কবলে পড়ে এবং সাধারণ মানুষ কীভাবে দস্যু হয়ে যায়। সিনেমাটি র‍্যাব ওয়েলফেয়ার কো-অপারেটিভ সোসাইটি লিমিটেড কর্তৃক প্রযোজিত

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন