চট্টগ্রামে রোহিঙ্গা দম্পতির ঘরে ইয়াবা, গ্রেপ্তার ৩

চট্টগ্রাম নগরীর বায়েজিদ বোস্তামী এলাকায় রোহিঙ্গা দম্পতির ফ্ল্যাট বাসা থেকে ইয়াবাসহ তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে নগর গোয়েন্দা পুলিশ। গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন- মিয়ানমারের নুর আলম, তার স্ত্রী হাছিনা বেগম ও হাছিনা বেগম মুন্নি।

মঙ্গলবার (২৮ জুন) রাত ১০টায় বায়েজিদের শহীদনগর এলাকা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন নগর পুলিশের উপ-কমিশনার (গোয়েন্দা উত্তর বিভাগ) মুহাম্মদ আলী হোসেন।

তিনি জানান, মঙ্গলবার গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শহীদ নগরের জানে আলম টাওয়ারের ৫০২ নম্বর ফ্ল্যাটে অভিযান চালিয়েছে গোয়েন্দা পুলিশ। এ সময় তিনজনকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে ওই বাসার ফার্নিচারের নিচে বিশেষ কৌশলে লুকানো অবস্থায় ৪ হাজার ৫০০ পিস ইয়াবা, নগদ ১ লাখ ৫০ হাজার টাকা, বিভিন্ন ব্যাংকের চেকবই, ১০টি স্বর্ণের চুড়ি, ৬টি স্বর্ণের আংটি, একটি স্বর্ণের চেইন ও একজোড়া কানের দুল উদ্ধার করা হয়েছে।

তিনি আরও জানান, বাংলাদেশে আসার পর থেকে নূর আলমের পরিবার কক্সবাজারের বালুখালী রোহিঙ্গা ক্যাম্পে বসবাস করছে। এরপর স্ত্রী হাছিনা বেগমকে সঙ্গে নিয়ে মিথ্যা তথ্য দিয়ে বাংলাদেশের এনআইডি কার্ড ও জন্মনিবন্ধন তৈরি করেন। দীর্ঘ দিন ধরে চট্টগ্রাম শহরের বিভিন্ন স্থানে বসবাসের আড়ালে ইয়াবার কারবার চালিয়ে আসছেন এই দম্পতি। ইয়াবা বিক্রির মাধ্যমে অবৈধ আয় করে স্বর্ণালংকার, বিলাসবহুল মোবাইল সেট ও নগরীতে সম্পত্তি কিনেছেন। এর আগে তাদের নামে একাধিক মামলা বিচারাধীন রয়েছে। নতুন করে তাদের বিরুদ্ধে বায়েজিদ বোস্তামি থানায় একাধিক মামলা দায়ের করা হয়

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন