প্রকাশিত: ১২/০৬/২০১৬ ৩:০৯ পিএম

নিউজ ডেস্ক : আলোচিত পুলিশ কর্মকতা এসপি বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা খানম মিতু হত্যাকাণ্ডের সাতদিনের মাথায় পাঁচ সদস্যের একটি অনুসন্ধান কমিটি করেছে চট্টগ্রাম নগর পুলিশ (সিএমপি)।

রোববার (১২ জুন) বাংলামেইলকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন সিএমপির মুখপাত্র এডিসি আনোয়ার হোসাইন।

নগর পুলিশের অতিরিক্ত উপকমিশনার শাহ মো. আব্দুর রউফকে প্রধান করে এ কমিটি করা হয়েছে। এতে বায়েজিদ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. মহসীনসহ আরো তিনজন চৌকস পুলিশ কর্মকতা রয়েছেন বলে জানিয়েছেন আনোয়ার হোসেন।

এদিকে হত্যাকাণ্ডে দায়েরকৃত মামলার তদন্ত কর্মকর্তাকে সমালোচনার মুখে পরিবর্তন করা হয়েছে। তদন্ত কর্মকর্তা নগর গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক কাজী রাকিব উদ্দিন আহমেদের বিরুদ্ধে এ হত্যাকাণ্ডে সম্পৃক্ত থাকার সন্দেহে আটক সাবেক ‘শিবির কর্মী’ আবু নছরকে ৩০ লাখ টাকা নিয়ে ফাঁসানোর অভিযোগ করেছে তার পরিবার।

এ হত্যাকাণ্ডে গত ৬ জুন মামলা করেন এসপি বাবুল আক্তার। এরপর থেকেই বিভিন্ন পক্ষ থেকে চাঞ্চল্যকর হত্যাকাণ্ডের জন্য বিভিন্ন পক্ষকে দায়ী করছেন। প্রথমে বাবুল আক্তারের জঙ্গি বিরোধী অভিযানে সম্পৃক্ততায় জঙ্গিরা এ ঘটনা ঘটিয়ে থাকতে পারে বলে বলা হলেও পরে ঢাকা থেকে গোয়েন্দা কর্মকর্তারা দায়ী করছেন বিদেশি চক্রকে। আবার সরকারের উচ্চ পর্যায়ের নেতারা দাবি করছেন, রাজনৈতিক সম্পৃক্ততার।

উখিয়া নিউজ ডটকমের   সর্বশেষ খবর পেতে Google News অনুসরণ করুন

গত এক সপ্তাহে ঘটনার সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকার অভিযোগে তিনজনকে আটক এবং হত্যাকাণ্ডে ব্যবহৃত মোটর সাইকেল ও সিসি ক্যামেরার ফুটেজ দেখে সন্দেহভাজন কালো রঙের মাইক্রোবাস উদ্ধার করা হলেও দৃশ্যমান কোনো অগ্রগতি হয়নি। উদঘাটন হয়নি ঘটনার প্রকৃত ‘রহস্য’। এরপর ঘটনার উচ্চতর তদন্তের স্বার্থে এ বিশেষ অনুসন্ধানী কমিটি গঠন করা হল।

এদিকে সমালোচনার মুখে পরিবর্তন করা হয়েছে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা নগর গোয়েন্দা পুলিশের পরিদর্শক কাজী রাকিব উদ্দিন আহমেদেকে। ঘটনায় জড়িত সন্দেহে আটক সাবেক শিবির কর্মী আবু নছরকে ৩০ লাখ টাকা নিয়ে ফাঁসানোর ‘অভিযোগ উঠেছে’ বর্তমান তদন্ত কর্মকর্তার বিরুদ্ধে।

গত ৫ জুন সকাল ৭টার দিকে নগরীর জিইসি মোড়ে প্রকাশ্যে গুলি করে পুলিশ কর্মকর্তা বাবুল আক্তারের স্ত্রী মাহমুদা আক্তার মিতুকে হত্যা করে দুর্বৃত্তরা। ছেলেকে নিয়ে ক্যান্টনমেন্ট স্কুলে যাওয়ার সময় এ ঘটনা ঘটে। অতি সম্প্রতি বাবুল আক্তারের পদোন্নতির পর ঢাকায় অবস্থান করলেও তার স্ত্রী ছেলে-মেয়েকে নিয়ে নগরীর জিইসি এলাকার একটি ফ্ল্যাটে থাকতেন।

বাংলামেইল২৪

পাঠকের মতামত

রোহিঙ্গা ক্যাম্পে টার্গেট কিলিং!

কক্সবাজারের রোহিঙ্গা ক্যাম্পগুলোতে চলছে ‘টার্গেট কিলিং’। ক্যাম্পে আধিপত্য বিস্তার, মাদক ব্যবসা, চাঁদাবাজিসহ নানা অপরাধ কর্মকাণ্ড ...

জান্নাতুলকে খুনের কথা আদালতে স্বীকার করলেন কক্সবাজারের রেজা

রাজধানীর পান্থপথে আবাসিক হোটেলে চিকিৎসক জান্নাতুল নাঈম সিদ্দিকা হত্যার দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন ...

খাদ্য সংকটে সেন্টমার্টিন

হেলাল উদ্দিন সাগর :: বৈরী আবহাওয়ার কারণে গত এক সপ্তাহ ধরে দেশের একমাত্র প্রবালদ্বীপ সেন্টমার্টিন ...