প্রকাশিত: ১৪/০৪/২০১৭ ৩:০৩ পিএম , আপডেট: ১৪/০৪/২০১৭ ৩:০৫ পিএম

এম বশিরুল আলম, লামা :
শুক্রবার ভোরের আলো ফুটতে না ফুটতেই হাজির বাঙালির প্রাণের উৎসব পহেলা বৈশাখ। ‘এসো হে বৈশাখ, এসো এসো…’ বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের কালজয়ী গানটির মধ্য দিয়ে লামা উপজেলায় শুরু হয় বৈশাখী আয়োজন। পুরনো বছরের জরা-খরা-গ্লনি ঘুচিয়ে বাংলা নববর্ষবরণ করেছে লামাবাসী। রং-বেরংয়ের বাহারি পোশাকে বাঙালির চিরাচরিত সাজে লামা পৌরবাসী মেতে উঠে আনন্দ-উৎসবে। জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সবাই মিলিত হয়েছে একই কাতারে।
বৃহস্পতিবার বাংলাবর্ষ ১৪২৩ বিদায়, ব্যবসায়ীরা শেষ করেছে চৈত্র সংক্রান্তি। শুক্রবার ১৪২৪ বাংলার প্রথমদিন পহেলা বৈশাখ, বর্ষবরণ অনুষ্ঠান ঘিরে ব্যস্ত হয়ে উঠে লামাবাসী। চৈত্রের তীব্র দাবদাহ উপেক্ষা করে বৈশাখের মনমাতানো আয়োজনে মেতে উঠেন সকলে। জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক, সামাজিক, ব্যবসায়ীক ও প্রশাশনের লোকজনের সমন্বয়ে সকাল ৮টায় বাঙালির ইতিহাস-ঐতিহ্যের শুভ মঙ্গল শোভাযাত্রা উপজেলা চত্বর থেকে শুরু হয়ে শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। পূর্বাতিহ্যানুযায়ী সকাল ৯ টায় শিশুপার্কে পান্তাভোজ করেন সবাই।
‘এসো হে বৈশাখ এসো এসো’ এই স্লোগানে নানা কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে। দীর্ঘ পথপরিক্রমায় উপজেলা চত্বরে সৃ¥তিসৌধ ব্যদিতে এবারও রয়েছে নববর্ষকে স্বাগত জানিয়ে উদ্বোধনী সঙ্গীত, চিরায়ত বাংলা গান, একক ও দলীয় সংগীত, স্থানীয় শিল্পীদের পরিবেশনায় অনুষ্ঠানমালা, আবৃত্তি, নৃত্য, লালনগীতি, লোকগান, স্থানীয় সংগঠনের সাংস্কৃতিক পরিবেশনা এবং পুরুস্কার বিতরণী অনুষ্ঠান।
নতুন বছরকে স্বাগত জানাতে শুধু উপজেলা বা পৌর শহরে নয়, উপজেলার কলেজ-মাধ্যমিক-প্রাথমিক বিদ্যালয়গুলোতেও কচিকাচাদের উপস্থিতিতে মূখরিত হয় পহেলা বৈশাখের আয়োজন। সব মিলিয়ে বৈশাখ ঘিরেই অপরূপ সাজে সেজেছে ঘোটা উপজেলা। যে দিকে চোখ যায় সেদিকে বৈশাখী আবহ। উৎসব সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে সম্পন্নের লক্ষ্যে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী তৎপর রয়েছে।
অপরদিকে পাহাড়িদের প্রধান সামাজিক উৎসব বৈসাবি উপলক্ষে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। বৈসাবি উদযাপন কমিটির উদ্যোগে সকালে পালিটুল প্রাঙ্গণে অনুষ্ঠান উদ্বোধন করেন স্থানীয় মারমা সম্প্রদায়। ঐতিহ্যবাহী নিজেদের পোশাকে পাহাড়ি তরুণ-তরুণীরা শোভাযাত্রা বের করেন। বৈসাবি উৎসবকে কেন্দ্র করে পাহাড়ীরা ঘরে ঘরে এক সপ্তাহ আগে থেকে নানা অনুষ্ঠান পালনের প্রস্ততী শুর করেন।
লামা উপজেলা সদরে পহেলা বৈশাখের মূল অনুষ্ঠানস্থল উপজেলা চত্বর ও লামা কেন্দ্রীয় পালিটুল। কাছাকাছি দূরত্বে আলাদা মঞ্চে বৈশাখের প্রথম দিনে নানা অনুষ্ঠান ঘিরে মানুষের বাঁধভাঙা জোয়ার সৃষ্টি হয়। এই দুই অনুষ্ঠানকে ঘিরে আনন্দ উপভোগ করছেন পৌরবাসীরা। অপরদিকে লামা সাবেকবিলছড়ি বৌদ্ধ বিহার প্রাঙ্গণে ৪দিন ব্যপি বর্নাঢ্য কর্মসূচী শুরু হচ্ছে আজ শনিবার থেকে। এ উপলক্ষে প্রয়োজনীয় সকল প্রস্তুতী সেরেছে বৈ-সা-বি মেলা উদযাপন পরিষদ।

পাঠকের মতামত

উখিয়ার বন কর্মকর্তা সাজ্জাদুজ্জামান হত্যা: পালিয়েও শেষ রক্ষা হলোনা ঘাতক বাপ্পীর!

উখিয়া রেঞ্জের দোছড়ি বিট কর্মকর্তা মো. সাজ্জাদুজ্জামান সজলকে সরকারি দায়িত্ব পালনকালে গত ৩১মার্চ রাত আনুমানিক ...

মুখোমুখি সংঘর্ষ থেকে রক্ষা পেল কক্সবাজার এক্সপ্রেস ও পর্যটক এক্সপ্রেস

দুই ট্রেনচালকের সতর্কতায় বড় ধরনের দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা পেয়েছে কক্সবাজার এক্সপ্রেস ও পর্যটক এক্সপ্রেস। স্টেশনমাস্টার ...

মিয়ানমারে বন্দি ১৪ বাংলাদেশি জেলে, ভিক্ষা করে চলছে মুবিনার সংসার!

কক্সবাজারের টেকনাফের সাবরাং ইউনিয়নের শাহপরীর দ্বীপের জালিয়াপাড়া। নাফ নদী সংলগ্ন বেড়িবাঁধ এলাকার বাইরে অবস্থিত গ্রামটিতে ...

উখিয়া থেকে অপহৃত স্কুলছাত্রী চট্টগ্রামে উদ্ধার, অপহরণকারী গ্রেপ্তার

কক্সবাজারের উখিয়ায় অপহৃত স্কুলছাত্রীকে চট্টগ্রাম থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। এসময় অপহরণকারীকে গ্রেপ্তার করা হয়। গত ...