ডেস্ক নিউজ
প্রকাশিত: ০৬/১২/২০২২ ৯:৩২ পিএম

হাফেজ মুহাম্মদ কাশেম, টেকনাফ
টেকনাফের উপকুলীয় ইউনিয়ন বাহারছরার ৩ গ্রামে অপহরণ আতংক চরম আকার ধারণ করেছে। গ্রাম ৩টি হচ্ছে মারিশবনিয়া, মাথাভাঙ্গা ও বড়ডেইল। বড়ডেইল মাদ্রাসার সাবেক পরিচালক (মুহতমিম) আলহাজ্ব মাও. নেজাম উদ্দিন জানান, পাহাড়ে অবস্থানরত অবৈধ অস্ত্রধারী রোহিঙ্গা অপহরণকারী চক্রের অপহরণ তৎপরতায় ইউনিয়নের মারিশবনিয়া, মাথাভাঙ্গা ও বড়ডেইল তিন গ্রামের মানুষ চরম আতংকে রয়েছে। চরম দুমুর্ল্যরে সময়ে মুক্তিপণের টাকা জোগাড় করতে
জমি-জমা, চাষের গবাদিপশু, স্বর্ণালংকার বিক্রি হচ্ছে।
বাহারছরা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মাও. আজিজ উদ্দিন জানান,লম্বালম্বি ইউনিয়ন বাহারছরার একদিকে বঙ্গোপসাগর অন্যদিকে পাহাড়। মাঝখানে
বাহারছরা ইউনিয়ন। স্থানীয় বাসিন্দাদের চাষাবাদ, পানের বরজ, সুপারী বাগান, মৌসুমী ক্ষেত সবই পাহাড়ের পাদদেশে। কিন্ত ক্ষেত-খামারে কাজ করতে গেলেই
অপহরণের শিকার হচ্ছে। জীবিকার তাগিদে না গিয়েও উপায় নেই। গত দুই সপ্তাহে ১০-১১ জন স্থানীয় বাসিন্দা অপহরণের শিকার হয়েছে। পাহাড়ে রয়েছে অবৈধ
অস্ত্রধারী রোহিঙ্গা অপহরণকারী চক্র। অপহরণের শিকার স্থানীয় বাসিন্দরা জনপ্রতি এক থেকে দেড় লক্ষ টাকা মুক্তিপণ দিয়ে ফিরছে। এ ব্যাপারে আইনশৃংখলা বাহিনীর তৎপরতা জরুরী হয়ে পড়েছে।

পাঠকের মতামত

রাষ্ট্রপতি হতে চান জগদীশ, কয়েকদিন ধরে ঘুরলেও মনোনয়নপত্র কিনতে পারেননি

দেশের ২২তম রাষ্ট্রপতি হওয়ার আগ্রহ প্রকাশ করে নির্বাচন কমিশনে ঘুরছেন কক্সবাজারের বাসিন্দা জগদীশ বড়ুয়া পার্থ। ...

সেনাবহরে যুক্ত টাইগার মিসাইল, আঘাত হানবে ১২০ কিমি অঞ্চলে

বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর আধুনিকায়নের ধারায় এবার সেনাবহরে নতুন সংযোজিত হয়েছে তুরস্কের তৈরি ‘টাইগার মিসাইল সিস্টেম’। প্রথমবারের ...