প্রকাশিত: ১৫/০৬/২০২২ ৯:০৩ এএম

সরওয়ার আলম শাহীন :
উখিয়া উপজেলার বিভিন্ন স্টেশনের বাজারগুলো সড়কের ওপর উঠে পড়েছে। স্থানীয় ইজারাদাররা নিয়মিত এসব সবজি বিক্রেতাসহ ভ্রাম্যমান বিক্রেতা থেকে টাকা আদায় করার কারণে এটা বন্ধ করা যাচ্ছে না বলে স্থানীয়দের অভিমত। এতে স্টেশনগুলোতে যানজট লেগেই আছে। সবচেয়ে ভয়াবহ অবস্থা কুতুপালং স্টেশনে। এখানে বেশির ভাগ ক্রেতা-বিক্রেতা রোহিঙ্গা ।

সরেজমিনে দেখা গেছে, উখিয়া উপজেলার রোহিঙ্গা অধ্যুষিত এলাকা কুতুপালং বাজারে সড়কের দু’পাশে বসেছে বাজার। যা সড়কের ওপর উঠে পড়েছে। এতে যানজটে ঘণ্টার পর ঘণ্টা গাড়িগুলো আটকা পড়তে দেখা গেছে।

জানা গেছে স্থানীয় ইজারাদাররা এসব দোকান থেকে নিয়মিত টাকা আদায় করার কারণে এসব বাজার রাস্তার ওপর উঠে পড়েছে। এসব বাজারের ব্যবসায়ীদের অধিকাংশই আবার রোহিঙ্গা। ইজারাদাররা রোহিঙ্গাদের কাছ থেকে বেশি টাকা আদায় করতে পাড়ার কারনে সড়কের ওপর বাজার দিচ্ছে বলে স্থানীয় ক্রেতাদের অভিযোগ।
স্থানীয় বাসিন্দাদের কয়েকজন জানালেন, কুতুপালং বাজারের অধিকাংশ দোকানদার রোহিঙ্গা।এসব দোকানে প্রতিদিন কোটি কোটি টাকার লেনদেন হচ্ছে। সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত দোকানের মালামাল বিক্রি হলেও রাতে রোহিঙ্গাদের দোকান গুলোতে ইয়াবার কারবার চলে বলে জানা গেছে। রোহিঙ্গাদের দোকান ভাড়া না দেয়ার বিধি-নিষেধ থাকলেও কুতুপালং বাজারে তা মানা হচ্ছে না। বেশি ভাড়ার আশায় দোকান মালিকরা রোহিঙ্গাদের দিয়ে চালিয়ে নিচ্ছে পুরো কুতুপালং বাজার।
এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে সুশাসনের জন্য নাগরিক সুজনের সভাপতি সাংবাদিক নূর মোহাম্মদ সিকদার জানান, রোহিঙ্গাদের যত্রতত্র বিচরণের ফলে স্থানীয়রা হুমকির মুখে রয়েছে। তিনি রোহিঙ্গাদের নিয়ন্ত্রণে স্থানীয় প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

পাঠকের মতামত

উখিয়ায় ৩ জনের সিন্ডিকেট দ্রব্যমূল্য বাড়াচ্ছে, প্রশাসনের নজরদারি নেই

উখিয়ায় নিত্য প্রয়োজনীয় সামগ্রী গুদামজাত করে রমজানে কৃত্রিম সংকট সৃষ্টির পায়তারা করে যাচ্ছে কয়েকজন পাইকারি ...