ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচন নিয়ে টেকনাফবাসীর উদ্দ্যেশে এড জিয়াবুল

এড জিয়াবুল আলম
প্রিয় টেকনাফবাসী সালাম/ নমস্কার।
বিশ্বব্যাপী ভয়াবহ করোনা ভাইরাসের সংক্রমণে বিপর্যস্ত পৃথিবী এবং বিপন্ন জনপদ। আধুনি যুগে এসে একটি ভাইরাসে পৃথিবী ব্যাপী চিকিৎসা বিজ্ঞানের এত সংকট মোকাবিলা করতে হবে কেউ কোন দিন হয়তো বা ভাবেনি।তার পরেও আমাদের সংবিধানের বর্ণিত ৫ টি মৌলিক চাহিদার প্রয়োজনে সমস্ত প্রকৃতিক এবং কৃত্রিম দূর্যোগ উপেক্ষা করে প্রাকৃতিক নিয়মের সাথে খাপ খেয়ে চলা একজন সংগ্রামী মানুষের প্রধান ধর্ম।
যাইহোক সে দিকে আর না যায়।কারণ প্রমধ চৌধুরীর মতে অল্প কথায় কাজ হলে বেশি কথার দরকার কি। এখন আসি মূল কথার দিকে। গত কয়েকদিন আগে সরকার ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করেছে। এখন গ্রামে গঞ্জে চায়ের আড্ডায় জমে উঠেছে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের হাওয়া। একটি আধুনিক কল্যাণমূলক রাষ্ট্রের গ্রামীন অর্থ ও সামাজিক অবস্হার উন্নয়ন এবং আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে ইউনিয়ন পরিষদ সহায়তা ভূমিকা পালন করে।
অনেকের মনে প্রশ্ন জাগতে পারে প্রশাসনির স্তরের সর্ব নিম্ন একটি স্তর কি ভাবে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্র মূখ্য ভূমিকা পালন করে? কারণ ইংল্যান্ডের রাষ্ট বিজ্ঞনী Dicey তাঁর Law and constitution বইতে আইনের শাসনের তিনটি উপাদানের কথা উল্লেখ করেন। যেমনঃsupremacy of law, equality before laws and predominance of legal spirit. পরবর্তীতে তার এই মতাবাদের উপর ব্যাপক আলোচনা সমালোচনার জন্ম দেওয়ার কারণ তার Administrative lawতে তিনি আইনের শাসনের মূল উপাদানের কথা উল্লেখ করতে গিয়ে তিনি বলেন আইনের শাসনের মূল উপাদান হল Laws and orderঅর্থাৎ শান্তি শৃঙ্খলা।
আর এই শান্তি শৃঙ্খলা রক্ষার ক্ষেত্রে ইউনিয়ন পরিষদ মূখ্য ভূমিকা পালন করে।
কারণ ইউনিয়ন পরিষদ পরিচালিত হয় The village court Act ২০০৬ অনুযায়ী। এখানে একজন ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানকে দেওয়ানী ও ফৌজদারী ৩০ ধরণের অপরাধের বিচার করার ক্ষমতা দিয়েছে। যে খানে ২৪ টি ফোজদারী এবং ৬ টি দেওয়ানী। যে অপরাধের বিচার দেশের বিচার অজ্ঞনে করতে গিয়ে ফৌজদারি এবং দেওয়ানি কার্যবিধির বিভিন্ন বিধি বিধান পালন বাধ্যতামূলক থাকার কারণে দীর্ঘ সময় ও টাকা ব্যয় হয়।।এই ক্ষেত্রে বিচার প্রক্রিয়া দীর্ঘ হয়।তখন Justice glade stone এর বিখ্যাত উক্তি Justice delay justice denied ণীতি বাস্ববায়িত হয়। তাই এই সব সমস্যা নিরসনে ইউনিয়নে যোগ্যনেতা ছাড়া কখনো সম্ভব নয়।
পাশাপাশি আমাদের জনপদে অনেকগুলো সমস্যা বিদ্যামান। যেমন মাদক, রোহিঙ্গা জঙ্গিগোষ্ঠীর উন্থানে আমাদের নতুন করে ভাবাচ্ছে। এই সব সমস্যাকে চিহ্নিত করে আমাদের একটি স্বপ্নের সোনার বাংলাদেশ গড়ে তুলার লক্ষ্যে দল মত জাতি বর্ণ ধর্ম নির্বিশেষে সবাইকে একত্রিত হয়ে কাজ করলে জনগণের আশা আকাঙ্খা পূরণ করা সম্ভব। পাশাপাশি মাদক সমস্যা সীমান্ত অঞ্চলে থাকবে। কারণ পৃথিবীর অধিকাংশ মাদক পাচার হয় আফগান ও ইরান সীমান্তে। ১৯৭৯ সালে ইরানে ইসলামি বিপ্লবের পর মাদক সমস্যা নিরসনে ইরান সরকার যুদ্ধ ঘোষণা করেছিল। কিন্ত তখন থেকে অদ্য পর্যন্ত এই সমস্যা নিরসন করতে পারেনি। সম্ভব গত কয়েক বৎসর আগে মাদকের বিরুদ্ধে সিঙ্গাপুরে যুদ্ধ করেছিল।কিন্ত কোন কাজে আসেনি।
তাই এই সব সমস্যা সচেতনতামূলক উদ্যাগ ছাড়া কখনো নিরসন করা সম্ভব নয়। জনগণকে সজাগ এবং সতর্ক করার জন্য জন্য মুসলিম জাগরণের করি ফররুখ আহমদ তার বিখ্যাত কবিতায় একজন যোগ্য এবং দক্ষ নেতার কথা উল্লেখ করেছেন। কারণ যোগ্য এবং দক্ষ নেতা ছাড়া কখনো আমাদের দুর্গম পথ পাড়ি দেওয়া সম্ভব নয়।
তাই আমি সবাইকে অনুরোধ করব অযোগ্য নেতাকে ভোট না দিয়ে একজন যোগ্য এবং দক্ষ ও সুশিক্ষিত নেতাকে ভোট দিয়ে আপনাদের নিদিষ্ট গন্তব্যের দিকে পৌঁছে দেওয়া জন্য সুযোগ করে দেওয়া আপনাদের সর্ব উত্তম কাজ।
ধন্যবাদ সবাইকে।

লেখক
এড জিয়াবুল আলম
আইনজীবী।

Loading...
ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন