উখিয়া নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ২৮/০৯/২০২২ ৯:১৯ এএম

হ্রদের শহর হিসেবে পরিচিত রাঙ্গামাটি পার্বত্য চট্টগ্রাম এলাকার একটি অনিন্দ্যসুন্দর জায়গা। পর্যটকদের স্বাগত জানাতে সবুজে-শ্যামলে ভরপুর প্রাকৃতিক পরিবেশ সমৃদ্ধ পর্যটন কেন্দ্রগুলো সদা প্রস্তুত। প্রতি বছরই কাপ্তাই হ্রদের অপূর্ব সৌন্দর্য, মনোমুগ্ধকর সাজেক ভ্যালির মনোরম পরিবেশ হাজার হাজার দেশি-বিদেশি পর্যটকদের আকর্ষণ করে।

১৯৯৭ সালে পার্বত্য চট্টগ্রাম শান্তি চুক্তির পর, রাঙ্গামাটির উন্নয়নশীল পর্যটন খাতকে সবচেয়ে প্রতিশ্রুতিশীল হিসেবে বিবেচনা করা হয়েছিল। এমনকি করোনাভাইরাস মহামারির সময়েও জেলার বিভিন্ন পর্যটন কেন্দ্রের সৌন্দর্য উপভোগ করতে গিয়েছিলেন।

রাঙ্গামাটি জেলার কিছু আকর্ষণীয় পর্যটন কেন্দ্র হলো:

রাঙ্গামাটিতে আসা পর্যটকদের মূল আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দু হচ্ছে জেলার ঝুলন্ত সেতু। নয়নাভিরাম বহুরঙা এই ঝুলন্ত সেতুটি দুটি বিচ্ছিন্ন পাহাড়ের মধ্যে হৃদ্যতার বন্ধন গড়ে দিয়েছে। ঝুলন্ত সেতুটি পার হওয়ার সময় সৃষ্ট কম্পন আগত দর্শনার্থীদের একটি ভিন্ন অভিজ্ঞতা উপহার দেয়।
এই ঝুলন্ত সেতুতে দাঁড়িয়েই কাপ্তাই হ্রদের মনোরম দৃশ্য অবলোকন করতে পারবেন পর্যটকরা। তবে নির্মাণের ৩৮ বছর পেরিয়ে গেলেও এখানকার মোটেল ও সেতুর সংস্কার করা হয়নি। কোনো নতুনত্ব না থাকায় আগের মতোই পড়ে আছে পুরোনো জরাজীর্ণ দোলনা আর বাচ্চাদের খেলনার বিভিন্ন রাইড।

উখিয়া নিউজ ডটকমের   সর্বশেষ খবর পেতে Google News অনুসরণ করুন

শুভলং জলপ্রপাত
যেসব পর্যটকরা পর্বত এবং অ্যাডভেঞ্চার প্রেমী, তারা সবসময় ভ্রমণের জন্য শুভলং জলপ্রপাত বেছে নেন। পাহাড় ও হ্রদের সান্নিধ্য পর্যটকদের মধ্যে অন্যরকম অনুভূতি সৃষ্টি করে।
তবে সমস্যা একটাই, শীতের মৌসুমে জলপ্রপাতটিতে তেমন পানি থাকে না। তাছাড়া, সারা বছর এই জলপ্রপাতটিকে সতেজ রাখতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কোনো সদিচ্ছা চোখে পড়েনি।

ডিসি বাংলো পার্ক
সান্ধ্যকালীন ভ্রমণের ক্ষেত্রে রাঙ্গামাটির পর্যটকদের জন্য ডিসি বাংলো পার্ক অন্যতম জনপ্রিয় পর্যটন কেন্দ্র। সেখানে গিয়ে যেমন কাপ্তাই লেকের মনোরম দৃশ্য উপভোগ করা যাবে, তেমনি শিশুদের জন্য রয়েছে দোলনা ও খেলার মাঠ।

পুলিশ পলওয়েল পার্ক
কাপ্তাই হ্রদের পাশে অবস্থিত পোলওয়েল পার্ক এবং কটেজগুলো জেলা পুলিশের তত্ববধানে এটি একটি নতুন সংযোজন। পর্যটকদের জন্য জায়গাটি আধুনিক, মার্জিত এবং নিরাপদ বিলাসবহুল রিসোর্ট।

রাঙ্গামাটিসহ দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে পর্যটকরা এই পার্কে ছুটে আসেন। এই পার্কে রয়েছে শিশুদের জন্য কিছু রাইড, একটি মিনি ঝুলন্ত ব্রিজ এবং কাপ্তাই হ্রদের তীরে বেশ কিছু নবনির্মিত কটেজ।

কাপ্তাই হ্রদ
এশিয়ার বৃহত্তম কৃত্রিম হ্রদ কাপ্তাই লেক অবস্থিত পার্বত্য জেলা রাঙ্গামাটিতেই। এই হ্রদের নীল জলরাশি যেকোনো পর্যটককেই মুগ্ধ করতে সক্ষম। শুধুমাত্র কাপ্তাই হ্রদের অপরূপ সৌন্দর্য উপভোগ করতেই প্রতি বছর শীতের মৌসুমে রাঙামাটিতে হাজার হাজার দর্শনার্থীর আগমন হয়।

তবে শীতের মৌসুমে হ্রদের পানি শুকিয়ে যাওয়ার ফলে কাপ্তাই লেকের স্বাভাবিক সৌন্দর্য হারিয়ে যায়। ফলে এখানে আগত পর্যটকরা তখন একরাশ হতাশা নিয়ে ফিরে যান।

পাঠকের মতামত

অনির্দিষ্টকালের জন্য বান্দরবান ভ্রমণে নিরুৎসাহিত করছে প্রশাসন

নিরাপত্তার স্বার্থে ১৮ অক্টোবর থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য বান্দরবানের রুমা ও রোয়াংছড়ি উপজেলায় পর্যটক ভ্রমণে নিরুৎসাহিত ...

সাউথ এশিয়ান ট্রাভেল অ্যাওয়ার্ড পেল কক্সবাজারের রিসোর্ট

সাউথ এশিয়ান ট্রাভেল অ্যাওয়ার্ডে (সাটা) তিন ক্যাটাগরিতে পুরস্কার পেয়েছে বাংলাদেশের সায়মন বিচ রিসোর্ট। শীর্ষস্থানীয় সার্ফ ...