প্রকাশিত: ০৪/১১/২০১৬ ৮:৫৩ পিএম

মিয়ানমারের রোহিঙ্গা-অধ্যুষিত রাখাইন রাজ্যের পরিস্থিতি নিয়ে তদন্ত চলছে বলে জানিয়েছেন মিয়ানমারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী অং সান সু চি। শুক্রবার এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি এ কথা বলেন।

মিয়ানমারের রাখাইন প্রদেশে রোহিঙ্গারা নির্মম নির্যাতনের শিকার। অথচ সু চি রোহিঙ্গাদের দুর্দশা নিরসনে খুব কমই উদ্যোগ নিয়েছেন বলে তাঁর বিরুদ্ধে সমালোচনা রয়েছে। মানবাধিকার কর্মীদের অভিযোগ, সেখানকার সংঘাতের পর সেনাবাহিনীর নির্যাতনের শিকার হয়েছে জনগণ।

সু চি বলেন, সরকার কোনো কিছু লুকায়নি বরং ঘটনার মুল বিষয়টিতে যাওয়ার চেষ্টা করছে। যতক্ষণ না তদন্ত শেষ হচ্ছে ততক্ষণ কাউকে দোষী বলা যাবে না। যথাযথ আইনি প্রক্রিয়ার মাধ্যমে পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

রাখাইন প্রদেশে সংখ্যালঘুদের ওপর নির্যাতন, ধর্ষণ, খুনের বিষয়ে তদন্ত করতে মানবাধিকার কর্মীদের আবেদন নিয়ে সরাসরি কোনো মন্তব্য করেননি সু চি।

এর আগে ১৩ অক্টোবর রাখাইন রাজ্যে নিরাপত্তা বাহিনীর অভিযানে ৩৯ জন নিহত হয়। এর মধ্যে ১৩ জন পুলিশ ও নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্য। বাকি ২৬ জন সশস্ত্র হামলাকারী বলে দাবি করে দেশটির ওই দুই বাহিনীর কর্তৃপক্ষ। হামলার পরপরই মিয়ানমারের সেনা ও পুলিশ বাহিনী রাখাইনে অভিযান শুরু করে। এ ব্যাপারে দেশটির রাষ্ট্রনিয়ন্ত্রিত সংবাদপত্র গ্লোবাল নিউ লাইট অব মিয়ানমার জানায়, দেশটির নেতা অং সান সু চি বলেছেন, তাঁর সরকার হামলার জবাবে ‘আইনের শাসন প্রতিষ্ঠায়’ কাজ করছে।

পাঠকের মতামত

রাখাইনে গোলাগুলি নেই /কাজে ফিরেছেন সীমান্তের মানুষ

গোলাগুলি থেমেছে মিয়ানমারের রাখাইনে। গতকাল সারাদিন বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ির ঘুমধুম থেকে টেকনাফের সেন্টমার্টিন পর্যন্ত সীমান্তের ওপারে ...