প্রকাশিত: ১২/০৩/২০১৭ ২:১৪ পিএম

নিজস্ব প্রতিবেদক::
টেকনাফ উপজেলার বাহারছড়া ইউনিয়নের শামলাপুরে আলোচিত মোস্তাফিজ হত্যা মামলার আসামীরা এখনো ধরাছোঁয়ার বাইরে ও মামলার বাদীকে আসামীরা বিভিন্ন ভাবে প্রাণনাশের হুমকি, ঘরবাড়ি জ্বালিয়ে দিয়ে এলাকা ছাড়া করার মত অভিযোগ পাওয়া গেছে। এতে মামলার বাদী জীবনের নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছেন বলে দাবি করেন। মামলার এজাহার ও সাধারণ ডায়েরির প্রেক্ষিতে জানা যায়, জমি সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে ২০১৫ সালের ২৫ ডিসেম্বর প্রকাশ্যে দিবালোকে নির্মমভাবে হত্যা করা হয় শামলাপুর পুরান পাড়া গ্রামের মোহাম্মদ কালুর পুত্র মোস্তাফিজুর রহমানকে। আর এই হত্যাকান্ডে শীলখালী গ্রামের মৃত ফকির মোহাম্মদের পুত্র আবু বক্কর, মৃত আক্কেল আলীর পুত্র আবুল বশর, প্রবাসী সেলিম উল্লাহর পুত্র ফয়সালসহ আরো বেশ কয়েকজন অজ্ঞাত সন্ত্রাসীরা অংশ নেয়। ঘটনার পর মোস্তাফিজুর রহমানের ছোট ভাই মোহাম্মদ নুরুন্নবী বাদী হয়ে টেকনাফ মডেল থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের করেন যার নং ০১/১৬। আর হত্যার মূল আসামীরা এখনো ধরা ছোঁয়ার বাইরে, আসামিরা গ্রেফতারী পরোয়ানা
মাথায় নিয়ে শামলাপুরে প্রকাশ্যে দিবালোকে চলাফেরা করলেও রহস্যজনক কারণে পুলিশ আসামিদের গ্রেফতার করছেনা বলে অভিযোগ করেন মামলার বাদী। এছাড়া আসামীরা মামলার বাদী মোহাম্মদ নুরুন্নবীকে প্রতিনিয়ত হত্যা, এলাকা ছাড়া ও বিভিন্ন মামলায় জড়ানোর হুমকি দিচ্ছে। বিভিন্ন মহলের মাধ্যমে মামলার আপোষ দিতে চাপপ্রয়োগ করছে। এদিকে প্রতিনিয়ত হুমকি ও হয়রানির প্রেক্ষিতে বাদী নুরুন্নবী গত বছরের শুরুর দিকে জীবনের নিরাপত্তা চেয়ে টেকনাফ মডেল থানায় একটি সাধারণ ডায়েরিও করেন। আর তিনি অভিযোগ করেন, মামলার আসামীরা প্রকাশ্যে ঘুরাফেরা করছে, কিন্তু পুলিশ কাউকে গ্রেফতার করছেনা। এছাড়া মামলার তিন নম্বর আসামী সৈয়দ করিম কারাগারে বন্দি থাকা অবস্থায়ও বিভিন্ন মাধ্যমে আমাকে হুমকি দিচ্ছে বলে জানান। ইতিমধ্যে বাদী নুরুন্নবীকে মিথ্যা হয়রানি করার জন্য দুটি নারী নির্যাতন, একটি বন মামলা ও একটি মারামারির মামলায় জড়িয়ে দেয়া হয়েছে বলে তিনি অভিযোগ করেন। এদিকে মোস্তাফিজ হত্যা মামলা আপোষ না দিলে মামলার ২নং আসামী আবুল বশর মামলার বাদীকে আরো বড়বড় মামলায় ঢুকিয়ে দেওয়ার হুমকিও দেন। আর আবুল বসর মামলার অন্যতম আসামী হলেও তিনি তার অবৈধ অর্থের দাপট দেখিয়ে গ্রেফতারী পরোয়ানা মাথায় নিয়ে স্বাধীন ভাবে ঘুরে বেড়াচ্ছে, কিন্তু পুলিশ রহস্যজনক কারণে তাকে গ্রেফতার করছেনা বলে বাদীসূত্রে জানা গেছে। এদিকে স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা যায়, আসামীদের বিরুদ্ধে হত্যা মামলার পাশাপাশি গুম, ধর্ষনসহ আরো বিভিন্ন ডজন খানিক মামলা রয়েছে। এছাড়া মামলার অন্যতম আসামী ফয়সাল,ও আবুল বসরের বিরুদ্ধে ইয়াবা পাচার ও প্রভাব খাটিয়ে নিরীহ মানুষের জমি দখল সহ নানান অভিযোগ রয়েছে। এদিকে অব্যাহত হুমকির কারণে বাদীর স্বাভাবিক জীবন-যাপন ব্যাহত হচ্ছে জানিয়ে নুরুন্নবী বলেন, আসামীদের প্রতিনিয়ত প্রাণনাশের হুমকিতে আমি দিশেহারা হয়ে গেছি, তাই প্রশাসনের কাছে আমি ও আমার পরিবারের সকলের সার্বিক নিরাপত্তা দাবি করছি।

পাঠকের মতামত