প্রকাশিত: ০৪/০৫/২০১৭ ৭:৩৩ এএম

উখিয়া প্রতিনিধি ::
মাদক বিরোধী যৌথ বাহিনীর হাতে বিপুল পরিমাণ ইয়াবা ট্যাবলেট নিয়ে মিয়ানমারের বাংলাদেশ সীমান্ত সংলগ্ন মংডুতে আটক হয়েছে সেনাবাহিনীর এক কর্মকর্তা, এক সিপাহীসহ অপর দুই পাচারকারী। গতকাল বুধবার সে দেশের রাষ্ট্রীয় গণমাধ্যম সহ একাধিক অনলাইন মিডিয়া সূত্রে জানা গেছে সোমবার ভোরে রাখাইন প্রদেশের বুচিডং থেকে মংডু আসার পথে ৮শ’ ৮০ মিলিয়ন কিয়াত সমমূল্যের চার লক্ষ পিস ইয়াবা ট্যাবলেট, একটি লাক্সারি পাজেরো জিপ সহ তাদের আটক করা হয়। মাদক বিরোধী বাহিনীর ধারণা, এগুলো বাংলাদেশে পাচারের উদ্দেশ্যে সীমান্তের দিকে নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল।

মংডুর পিংপিয়া পুলিশ স্টেশনের বর্ডার পুলিশ কর্মকর্তা মেজর ঝ ঝ নে ইন জানান, বুচিডং এলাকার সেনাবাহিনীর মেজর ইজিআর ও তার ব্যক্তিগত প্রহরী সেনা সিপাহী তেইন নাইং সহ মাদক পাচারকারী থেইন তান নাইং ও ঝ ও কে উল্লিখিত মাদক সহ আটক করে সংশ্লিষ্ট থানায় সোপর্দ করা হয়েছে।

উল্লেখ্য, গত ফেব্রুয়ারিতে রাখাইনের মংডু জেলার বাংলাদেশ সীমান্ত সংলগ্ন দক্ষিণ মংডুর সুই বাহু গ্রামের বৌদ্ধ বিহার অধ্যক্ষ আরশারাকে ৪৬ লাখ ইয়াবা, অস্ত্র ও গোলাবারুদসহ আটক করা হয়। মিয়ানমারের রাষ্ট্রীয় পরামর্শক অং সান সু চি কার্যালয়ের তথ্য সেলের উদ্ধৃতি দিয়ে ইয়াবা সহ আটক সেনা কর্মকর্তা ও অন্যদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থার প্রক্রিয়া চলছে বলে এএফপি জানিয়েছে গতকাল। মাদক বিরোধী পুলিশের কর্মকর্তা কর্নেল সোয়ে নাইয়ার মং গতকাল নেপিডুতে জানিয়েছেন, বাংলাদেশে স্থল সীমান্ত ছাড়াও প্রতিবেশী সীমান্ত রাষ্ট্র চীন, থাইল্যান্ড এবং ভারত সহ কয়েকটি দেশ মিয়ানমার থেকে মাদক প্রবাহ রোধে দাবি জানিয়ে আসছে দীর্ঘদিন ধরে। এ প্রেতে মাদক পাচারকারীরা এসব দেশে ইয়াংগুন সমুদ্র বন্দরকে ব্যবহার করে জলপথে মাদক পাচারের অপতৎপরতা চালাচ্ছে বলে ইরাওয়াদ্দি অনলাইন জানিয়েছেন।

পাঠকের মতামত

স্বাভাবিক পথে সেন্টমার্টিনে যাচ্ছে খাদ্যপণ্য, টেকনাফে ফিরছে যাত্রী

অবশেষে স্বাভাবিক হচ্ছে টেকনাফ-সেন্টমার্টিন নৌরুটে নৌযান চলাচল। দীর্ঘ ৩৩ দিন পর টেকনাফ-সেন্টমার্টিন নৌরুটে যাতায়াত করছে ...