উখিয়া নিউজ ডেস্ক
প্রকাশিত: ১০/১১/২০২২ ২:৪০ পিএম

ব্র্যাক ব্যাংক ‘সুবিধা’ নামে দেশের প্রথম এন্ড-টু-এন্ড ডিজিটাল লোন অ্যাপ চালু করেছে।
অ্যাপটির মাধ্যমে গ্রাহকরা বাংলাদেশের যে-কোনো স্থান থেকে ডিজিটাল রিটেইল লোনের জন্য আবেদন করতে পারবে এবং তাৎক্ষণিকভাবে ঋণ অনুমোদন পাবেন। এছাড়া, গ্রাহকরা অ্যাপটি ব্যবহার করে ব্যাংকের পার্টনার আউটলেটগুলো থেকে পণ্য ও সেবা ক্রয় করতে পারবেন। আবেদনের কিছু সময়ের মধ্যে পার্টনারদের অ্যাকাউন্টে ডিজিটাল ঋণ বিতরণ করা হবে। ব্যাংকের লক্ষ্য হলো অ্যাপটিকে গ্রাহকদের জন্য ঋণ সংক্রান্ত সমাধানের একটি ওয়ান-স্টপ প্ল্যাটফর্মে পরিণত করা।
‘সুবিধা’ অ্যাপের দুইটি ভ্যারিয়েন্ট রয়েছে- একটি গ্রাহকরা ব্যবহার করবেন এবং আরেকটি ব্যাংকের ব্যবসায়িক পার্টনাররা। গ্রাহকরা গ্রাহক অ্যাপ ব্যবহার করে দ্রুত, সুরক্ষিত এবং সুবিধাজনক উপায়ে সম্পূর্ণ ডিজিটাল ঋণের অভিজ্ঞতা পাবেন। তারা তাদের সুবিধাজনক যে-কোনো স্থান থেকে ঋণ নিতে পারেন। ঋণ সুবিধা পেতে কোন শাখায় যেতে পরিদর্শন বা ব্যাংকের কোন প্রতিনিধির সাথে যোগাযোগ করার প্রয়োজন নেই। ব্যাংক চলাকালীন সময়ে আবেদন করা হলে, কয়েক মিনিটের মধ্যে গ্রাহকরা ঋণ অনুমোদনের বিষয়ে সিদ্ধান্ত জানতে পারবেন। অনুমোদন পাওয়ার পর, ব্যাংকের তালিকাভুক্ত পার্টনার আউটলেটগুলোতে গিয়ে গ্রাহকরা ঋণ সুবিধা ব্যবহার করে পছন্দসই পণ্য ক্রয় করতে পারবেন। সেই সময়ে, ঋণের প্রসেস সম্পন্ন করতে পার্টনার অ্যাপ ব্যবহার করবেন পার্টনাররা।
গ্রাহকদের সুবিধার পাশাপাশি, ব্যাংকের ঋণ প্রসেসিংয়ের সময় উল্লেখযোগ্যভাবে কমাতে সাহায্য করেছে ‘সুবিধা’ অ্যাপ। একই সাথে, ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে অনেক নতুন গ্রাহকের কাছে পৌঁছানোর একটি নতুন পথ উন্মোচিত হয়েছে।
পাইলট পর্যায়ে, ‘সুবিধা’ অ্যাপ ব্যবহারের সুবিধা দিতে ব্যাংকের নির্ধারিত গ্রাহকদের এসএমএস পাঠিয়ে ঋণটি অফার করছে ব্র্যাক ব্যাংক। এসএমএস পাওয়া গ্রাহকরা গুগল প্লে স্টোর বা অ্যাপ স্টোর থেকে ‘সুবিধা’ অ্যাপ ডাউনলোড করতে পারবেন। অতঃপর, ব্যাংকের তালিকাভুক্ত পার্টনার আউটলেটগুলো থেকে তারা তাদের পছন্দসই পণ্য ও সেবা কিনতে ডিজিটাল পার্সোনাল লোনের জন্য অ্যাপটি ব্যবহার করতে পারবেন। ট্রান্সকম ডিজিটাল, হাতিল ফার্নিচার এবং গ্যাজেট অ্যান্ড গিয়ার-এর পার্টনার আউটলেট থেকে অনেক গ্রাহক ইতিমধ্যেই পণ্য কিনেছেন। গ্রাহকদের জীবনধারার চাহিদা মেটাতে ব্যাংক বিভিন্ন সেক্টর থেকে আরও পার্টনারদের তালিকাভুক্ত করবে।
গ্রাহকরা তিন লাখ টাকা পর্যন্ত ডিজিটাল পার্সোনাল লোন নিতে পারবেন, যা ২৪ মাস পর্যন্ত সময়ে পরিশোধ করা যাবে। প্রতিযোগিতামূলক সুদের হার এবং প্রসেসিং ফি কারণে ঋণটি গ্রাহকদের জন্য সাশ্রয়ী হবে।
এই ডিজিটাল ঋণ অ্যাপ সম্পর্কে মন্তব্য করে, ব্র্যাক ব্যাংক-এর হেড অব রিটেইল ব্যাংকিং মোঃ মাহীয়ুল ইসলাম বলেন, “এই ডিজিটাল লোনটি ব্যাংকিং সেবায় উদ্ভাবনের একটি উদাহরণ, যা সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশের স্বপ্নের সাথে সামঞ্জস্যপূর্ণ। এই ঋণের অনন্য দিক হলো আবেদন, প্রেসেসিং ও ঋণ বিতরণ সবই ডিজিটালি সম্পন্ন করা হবে।”
তিনি আরও বলেন, “আমাদের পরিকল্পনা হলো গ্রাহকদের দৈনন্দিন প্রয়োজনীয়তার কথা মাথায় রেখে বিভিন্ন খাতের আরও পার্টনার এই প্ল্যাটফর্মের সাথে যুক্ত করা। আমরা এই প্ল্যাটফর্মের কলেবর আরও বড় করতে চাই এবং ‘সুবিধা’ অ্যাপটিকে দেশের সর্বত্র ডিজিটাল ঋণ সুবিধার একটি প্ল্যাটফর্ম হিসেবে পরিণত করতে চাই। গ্রাহককেন্দ্রিক ব্যাংক হিসেবে ব্র্যাক ব্যাংক গ্রাহকদের স্বাচ্ছন্দ্যময় ব্যাংকিং অভিজ্ঞতা নিশ্চিত করতে নতুন নতুন প্রযুক্তি নিয়ে আসার প্রচেষ্টা অব্যাহত রাখবে।”
উল্লেখ্য, ব্র্যাক ব্যাংক এর আগে গাজীপুর ও সাভার এলাকার এমপিও ভুক্ত শিক্ষকদের জন্য ল্যাপটপ কিনতে ডিজিটাল ঋণ সুবিধা চালু করে। ৫ সেপ্টেম্বর, ২০২২ মাধ্যমিক ও উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের (ডিএসএইচই) সাথে একটি সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরের মাধ্যমে এই উদ্যোগটি নেওয়া হয়েছে। স্বাধীন ফিনটেক সল্যুশনস লিমিটেড-এর তৈরি ব্যাংকের ল্যাপটপ লোন অ্যাপ্লিকেশন পোর্টাল-এর মাধ্যমে শিক্ষকরা ডিজিটালভাবে ঋণের জন্য আবেদন করতে পারছেন। তাদের আবেদন মূল্যায়ন করে সুবিধা অ্যাপের মাধ্যমে ডিজিটালভাবে ঋণ বিতরণ করা হচ্ছে।

পাঠকের মতামত