ad

মমতাকে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী হওয়ার পরামর্শ বিজেপির বিধায়কের

জাতীয় নাগরিকপঞ্জী (এনআরসি) নিয়ে পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যেভাবে প্রতিবাদে সোচ্চার হয়েছেন তাতে ক্ষিপ্ত বিজেপি নেতারা। শনিবার উত্তর প্রদেশের বিজেপি বিধায়ক সুরেন্দ্র সিং বলেছেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যদি বাংলাদেশীদের নিয়ে রাজনীতি করতে চান তবে তার বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী হওয়ার চেষ্টা করা উচিত। সংবাদ সংস্থা এএনআই জানিয়েছে, বিজেপি বিধায়ক বলেছেন, মমতার দুর্দিন আসন্ন। এখনও তিনি তার ভাষাকে সংযত করার পরামর্শ দেয়ার পাশাপাশি বলেছেন, তিনি যদি বাংলাদেশীদের সমর্থন নিয়েই রাজনীতি করতে চান তবে তার বাংলাদেশে যাওয়া উচিত। আর তার যদি সাহস থাকে তবে সেখানে গিয়ে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী হোন। সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপচারিতায় সুরেন্দ্র সিং আরও বলেছেন, পশ্চিমবঙ্গে এনআরসি চালু হবেই। যারা ভারতীয় নাগরিকত্ব হিসেবে নিজেদের প্রমাণ করতে পারবেন না তাদের সম্মানের সঙ্গে নিজের দেশে ফেরত পাঠানো হবে। পশ্চিমবঙ্গের রাজনীতি নিয়ে বলতে গিয়ে উত্তরপ্রদেশের বিজেপি বিধায়ক রামায়ণের প্রসঙ্গ টেনে বলেছেন, শ্রীলঙ্কার মানুষ হনুমানজিকে সেখানে প্রবেশ করতে দিতে চাননি। কিন্তু হনুমানজি সেখানে গিয়েছিলেন। তেমনি যোগী আদিত্যনাথ এবং অমিত শাহ পশ্চিমবঙ্গে প্রবেশ করেছিলেন এবং গত লোকসভা নির্বাচনে অনেক আসন পেয়েছেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে লঙ্কিনী আখ্যায়িত করে সুরেন্দ্র সিং বলেছেন, সেখানে রামের প্রবেশ ঘটেছে। তাই পরিবর্তন হবেই। আর তারপরেই সেখানে চালু করা হবে এনআরসি। রাজ্যে থাকা সব বাংলাদেশিকে দুই প্যাকেট খাবার হাতে ধরিয়ে দিয়ে বাংলাদেশে ফেরত পাঠানো হবে। আসামে এনআরসি চালুর সময় থেকেই পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় প্রতিবাদে মুখর হয়েছেন। রাজ্যে এনআরসি চালুর চেষ্টা হলে তিনি যে কোনভাবেই মানবেন না সে কথাও বলেছেন। গত বৃহস্পতিবার এনআরসির প্রতিবাদে উত্তর কলকাতায় এক পদযাত্রায় অংশ নেয়ার পর জনসভায় দাঁড়িয়ে মমতা ঘোষণা করেছেন, প্রাণ থাকতে তিনি পশ্চিমবঙ্গে এনআরসি চালু করতে দেবেন না। ক্ষমতায় না থাকলেও তিনি সেটা হতে দেবেন না।
সুত্র:মানবজমিন

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন