সেরা ‘ইয়াবা ব্যবসায়ী’ সাইফুল পাচ্ছেন সেরা করদাতার পুরস্কার

নিউজ ডেস্ক::
আবারো সেরা করদাতার পুরস্কার পাচ্ছেন দেশের এক নম্বর ‘ইয়াবা ব্যবসায়ী’ হাজী সাইফুল করিম। পরপর তিনবারের মতো জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের সেরা করদাতা পাওয়ার জন্য সাইফুল করিমকে মনোনিত হয়েছেন দেশ সেরা এই ‘ইয়াবা ব্যবসায়ী’।

মিয়ানমার থেকে বাংলাদেশে ‘ইয়াবা আনার’ সবচেয়ে বড় ব্যবসায়ী এই সাইফুল করিম ও তার পরিবার। শুধু সাইফুল করিম নয় তার আরেক ভাই তালিকাভুক্ত ‘ইয়াবা ব্যবসায়ী’ মাহাবুবুল করিমও সেরা তরুণ করদাতা পুরষ্কারেরের জন্য মনোনয়ন পেয়েছে।

এছাড়াও টেকনাফের আরেক ‘ইয়াবা গডফাদার’ কামরুল হাসান রাশেলের পিতা হায়দার আলীও সেরা দীর্ঘ মেয়াদি করদাতার পুরষ্কারের জন্য মনোনিত হয়েছেন।

ইয়াবা ব্যবসা করে অবৈধ শতকোটি টাকার মালিক সাইফুল করিম সেরা করদাতা হওয়া সমাজের জন্য অশনী সংকেত বলে মনে করছেন সচেতন মহল।

২০১৭-২০১৮ অর্থ বছরে টেকনাফ থেকে সেরা করদাতা পুরষ্কারের জন্য মনোনিত হয়েছে দেশের শীর্ষ ইয়াবা ব্যবসায়ী সাইফুর করিম, তার ভাই তালিকাভূক্ত ইয়াবা ব্যবসায়ী মাহাবুবুল করিম ও শীর্ষ ইয়াবা ব্যবসায়ী কামরুল হাসান রাশেলের পিতা হায়দার আলী।

মায়ানমার থেকে বাংলাদেশে যেসব ব্যক্তি ইয়াবা নিয়ে আসে তাদের সবার শীর্ষে আছেন টেকনাফের শীলবনিয়া পাড়ার হাজী সাইফুল করিম। সাইফুল করিমের আরো ৪ ভাইয়ের নাম আছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের ইয়াবা ব্যাবসায়ীদের তালিকায়।

গতমাসে চট্টগ্রামে বিপুল পরিমাণ ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার হয়েছে সাইফুর করিমের বড়ভাই রেজাউল করিম মুন্না। বলতে গেলে সাইফুল করিমের পরিবারই দেশে ইয়াবা ছড়িয়ে দিচ্ছে।

ad

যেই ব্যাক্তি ও পরিবারের হাতে দেশ ধ্বংস হচ্ছে। যাদের দ্বারা ধ্বংস হচ্ছে দেশের লাখ লাখ যুব সমাজ। সেই ব্যাক্তিরাই মনোনিত হয়েছে সেরা করদাতা পুরস্কারের জন্য।

এই বিষয়ে চট্টগ্রামের কর অঞ্চল ৪’র সার্কেল ৮৭ অতিরিক্ত সহকারী কর কমিশনার রাজিব রানা মল্লিক জানিয়েছেন, কর সার্কেল ৮৭ এ ২০১৭-২০১৮ অর্থ বছরের ব্যাক্তি পর্যায়ে সবচেয়ে বেশি কর দিয়েছেন শিলবনিয়া পাড়ার হানিফ ডাক্তারের পুত্র হাজী সাইফুল করিম। এন এইট ইন্টান্যাশনাল, একে ইন্টারন্যাশনাল ও এম এম ইন্টারন্যাশনাল নামের তিনটি ব্যাবসা প্রতিষ্ঠানের সত্বাদিকারী হিসেবেই তিনি এই কর দিয়েছেন।

অপরদিকর সাইফুল করিমের ভাই মাহবুবুল করিম একই অর্থ বছরের যুবকদের মধ্যে সবচেয়ে বেশি কর দিয়েছেন। তাই নিয়ম অনুসারে তারা দুইজনের নাম পুরষ্কারের জন্য মনোনিত যাচাই বাছাইয়ের জন্য চট্টগ্রাম অাঞ্চলিক কর অঞ্চলে প্রেরন করা হয়েছে।

এই কর কর্মকর্তা জানান, যাদের মনোনিত করা হয়েছে তাদের যদি কোনো মামলার অভিযোগ প্রমাণিত হয় বা ঐ ব্যাক্তি ঋণ খেলাপি হয় তবে তাকে পুরস্কার দেয়া হবে না।

এই বিষয়ে কক্সবাজার চেম্বারের সভাপতি আবু মোরশেদ খোকা জানিয়েছেন, দেশের শীর্ষ ইয়াবা ব্যাবসায়ীরা সেরা করদাতার পুরস্কার পাওয়ার ঘটনা দুঃখজনক। সাইফুল করিমরা অবৈধভাবে টাকার পাহাড় গড়ে সেরা করদাতা হবে। এই অবৈধ ইয়াবা ব্যবসায়ীদের জন্য গত কয়েক বছর বৈধ ব্যবসায়ীরা পুরষ্কারের প্রতিযোগিতায় টিকতে পারছেনা। সেরা করদাতার তালিকা থেকে সাইফুল করিম ও তার ভাই মাহাবুবুল করিমের নাম বাদ দিয়ে সৎ ব্যবসায়ীকে পুরষ্কৃত করার দাবি জানান তিনি।

কক্সবাজারের পুলিশ সুপার মাসুদ হোসেন জানিয়েছেন, সাইফুল করিম ও মাহাবুবুল করিম দুজনই শীর্ষ ইয়াবা ব্যাবসায়ী। কর অধিদপ্তর থেকে পুলিশের ২০১৭-২০১৮ অর্থ বছরের সের করদাতা পুরষ্কারের তালিকা পুলিশ যাচাই বাছাই করেছে। যাচাই বাছাই শেষে পুলিশ ঐ ব্যাক্তিদের মামলা ও ইয়াবা ব্যবসার সকল তথ্য সংযোজন করে পাঠিয়ে দিয়েছে।

সুত্র- পরিবর্তন ডটকম