সেই উখিয়ার ‘মেসি’ এখন বাংলাদেশের ভরসা

উখিয়া নিউজ ডটকম::
এইতো মার্চ মাসেই যুব গেমসে ঢাকার হয়ে মাঠ মাতিয়েছিলেন ১৩ বছরের এক বিস্ময়বালিকা। বল পায়ে ক্ষিপ্রতা-ড্রিবলিং-নিয়ন্ত্রণ দেখে গ্রামের চট্টগ্রামবাসী নাম দিয়েছিলেন কক্সবাজারের উখিয়ার ‘মেসি’। ওই বয়সেই যুব গেমসে সেরার পুরস্কারের পাশাপাশি ঢাকাকে চ্যাম্পিয়ন করা এই ‘মেসি’ এখন বাংলাদেশ অনূর্ধ্ব-১৫ নারী ফুটবল দলে জায়গা করে নিয়েছেন।

তার নাম শাহেদা আক্তার রিপা। সমূদ্রসৈকতের জেলা কক্সবাজারের উখিয়ায় বেড়ে ওঠা এই দুরন্ত মেয়েটি এখন ভূটানে অনুষ্ঠিতব্য অনূর্ধ্ব-১৫ সাফ চ্যাম্পিয়নশিপে লাল-সবুজ জার্সির প্রতিনিধিত্ব করবেন। যুব গেমসে ১৩ গোল করা এই রিপাই এখন গোলমুখে বাংলাদেশের মূল ভরসার একজন।

এই টুর্নামেন্ট থেকেই মূলত জাতীয় দলে জায়গা করে নিয়েছেন বিকেএসপির এই শিক্ষার্থী। পাকিস্তানকে দিয়ে ভূটানে নিজেদের সাফ চ্যালেঞ্জ শুরু করবে গোলাম রব্বানী ছোটনের শিষ্যরা। সেই দলে আরেক নব্য স্ট্রাইকার পা রেখেছেন। নাম রেহেনা আক্তার। বরিশালের এই বিস্ময়বালিকা জেএফএ কাপে দুর্দান্ত নৈপুণ্য করে দলে জায়গা করে নিয়েছেন। এই দুই গোলমেশিনকে ক্যাম্পে নিয়ে তৈরি করেছেন ছোটন।

যেভাবে জাতীয় দলে রিপা:

এর আগে বঙ্গমাতা গোল্ড কাপে সেরা হয়েছিলেন। বিকেএসপির হয়ে প্রণব মুখার্জী কাপে ভারত জয়ের সেই টুর্নামেন্টেও নিজেকে চিনিয়েছেন তিনি। ম্যাচের ৪০ সেকেন্ডের মধ্যেই গোল করে সাড়া ফেলে দিয়েছিলেন এই ‘মেসি’ই।

ad

তবে ফুটবলে আসার গল্পটা নাকি তার ছেলেদের সঙ্গে পাল্লা দিয়েই। খেলতে খেলতে ফুটবলার হওয়া। রিপার মুখেই শুনুন গল্পটি, ‘ছোটবেলা থেকে ফুটবল পছন্দ। ছেলেদের সঙ্গে খেলতাম। এরপর চট্টগ্রাম বিভাগে সেরা হই। তারপর গতবছর বিকেএসপিতে ভর্তি হই।’ মেসি বলার কারণ কি? জিজ্ঞাসা করতেই মুচকি হেসে বললেন, ‘ড্রিবলিং ভালো করতে পারি। তাই কক্সবাজারের সবাই মেসি বলে ডাকেন।

দরিদ্র পরিবারের পাঁচ ভাই বোনের মধ্যে চার নম্বর রিপা। ফুটবল সংগঠক সানাউল্লাহ তুলে নিয়ে বিকেএসপি ভর্তি করিয়ে দিয়েছেন। তার প্রতিভা দেখে আর্থিক সহায়তা করেছেন তিনি।

বলেছেন প্রথমবারের মতো বাংলাদেশের জার্সিতে নামার অঙ্গীকারের কথা, প্রথমবারের মতো আন্তর্জাতিক পর্যায়ে বাংলাদেশের হয়ে নামছি। খুব ভালো লাগছে। এখানকার পরিবেশের সঙ্গে খাপ খাইয়ে নিয়েছি। গোল করেই নিজের ক্যারিয়ার শুরু করতে চাই।

বরিশালের শাহেদা আক্তারের মুখেও একই সূর। অনূর্ধ্ব ১৫তে ডিফেন্ডিং সাফ চ্যাম্পিয়নদের সামনে তাই আরেকটি চ্যালেঞ্জ। হয়তো এদের হাত দিয়েই শিরোপা ধরে রাখবে বাংলাদেশ।