সারাদেশের ২০২ মাদ্রাসা বন্ধের নির্দেশ

নিউজ ডেস্ক::
দীর্ঘদিন ধরে অগ্রগতি নেই, কোনও শিক্ষার্থী নেই, এমনকি দু’একজন শিক্ষার্থী থাকলেও পাবলিক পরীক্ষায় পাস করতে পারে না সারাদেশের এমন ২০২টি মাদ্রাসা বন্ধের নির্দেশ দিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অন্তর্গত বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ড। এ বছর থেকে এসব মাদ্রাসায় আর শিক্ষা কার্যক্রম না চালানোর নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। এসব মাদ্রাসায় অধ্যয়নরত শিক্ষার্থীদের আশেপাশের স্বীকৃত মাদ্রাসাগুলোতে রেজিস্ট্রেশন করার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

গত সোমবার শিক্ষা মন্ত্রণালয়ে অনুষ্ঠিত এক বৈঠকে এই ২০২ টি মাদ্রাসা বন্ধের সিদ্ধান্ত হয়। পরে বুধবার মন্ত্রণালয় থেকে এ সংক্রান্ত নোটিশ দেওয়া হয়েছে। এছাড়া মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের অফিসিয়াল ওয়েব সাইটেও নোটিশটি প্রকাশ করা হয়েছে।জানতে চাইলে মাদ্রাসা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর এ কে এম সাইফুল্লাহ বাংলা ট্রিবিউনকে এর সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, ‘এসব মাদ্রাসায় দীর্ঘদিন ধরে শিক্ষার্থী ভর্তি বন্ধ ছিল। তাদের কার্যক্রম সন্তোষজনক নয়। সরেজমিনে পরিদর্শনে গিয়েও ভয়াবহ চিত্র দেখা গেছে। পরে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিলে তাতেও সন্তোষজনক তথ্য পাওয়া যায়নি। এসব কারণে মাদ্রাসাগুলো বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে।’

মাদ্রাসা বন্ধের নোটিশে বলা হয়েছে, ২০১৭ ও ২০১৮ সালের দাখিল পরীক্ষায় কোনও শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেনি। এর কারণ জানতে চেয়ে মাদ্রাসা প্রধানকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়। অনেকেই এর জবাব দেননি। যারা জবাব দিয়েছে তাতে বোর্ড সন্তুষ্ট হতে পারেনি। এ কারণে এসব মাদ্রাসার অনুমতি ও একাডেমিক স্বীকৃতি বাতিলসহ অনলাইনে পাসওয়ার্ড, মাদ্রাসার কোড নম্বর ও ইআইআইএন নম্বর বন্ধ করে দেওয়া হলো।তালিকা ঘেঁটে দেখা গেছে, সিরাজগঞ্জের ১০টি, দিনাজপুরের ১৯টি, চাঁদপুরের একটি, চাঁপাই নবাবগঞ্জের দুইটি, নাটোরের ১১টি, চট্টগ্রামের একটি, কুমিল্লার তিনটি, গাইবান্ধার ১২টি, ঠাকুরগাঁওয়ের ২৬টি, যশোরের পাঁচটি, ঝিনাইদহে একটি, জয়পুরহাটে দুইটি, বাগেরহাট জেলার চারটি, বরগুনার পাঁচটি, বরিশালের দুইটি, ভোলার ছয়টি, বগুড়ার চারটি, ব্রাহ্মণবাড়িয়ার একটি, খাগড়াছড়ির একটি, খুলনার চারটি, কিশোরগঞ্জের একটি, কুড়িগ্রামে একটি, কুষ্টিয়ার তিনটি, লালমনিরহাটের পাঁচটি, নোয়াখালীর একটি, পাবনার পাঁচটি, পঞ্চগড়ের সাতটি, পটুয়াখালীর সাতটি, মেহেরপুরের একটি, ময়মনসিংহের চারটি, নওগাঁ জেলার একটি, নড়াইলের একটি, নেত্রকোনার একটি, নীলফামারীর তিনটি, রাজবাড়ির দুইটি, রাজশাহীর ১১টি, রংপুরের নয়টি, সাতক্ষীরার পাঁচটি ও সিলেটের একটি মাদ্রাসা বন্ধের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।