শনিবার বাদ জোহর আল্লামা শফীর জানাজা

শায়খুল ইসলাম আল্লামা আহমদ শফী সাহেব হুজুরের জানাজা আগামীকাল জোহরের নামাজের পর হাটহাজারীর দারুল উলুম মাদ্রাসা ময়দানে অনুষ্ঠিত হবে। জানাজ শেষে তাকে মাদ্রাসার পাশেই দাফন করা হবে।

শুক্রবার (১৮ সেপ্টেম্বর) রাত ৮টার দিকে এ তথ‌্য নিশ্চিত করেন ইসলামী ঐক্যজোটের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা আলতাফ হোসেন।
এর আগে সন্ধ্যা ৬টা ২০ মিনিটে রাজধানীর আজগর আলী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান আল্লামা শফী।

বৃহস্পতিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) মধ্যরাতে চট্টগ্রাম মেডিক‌্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করার পর তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে তাকে ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটের (আইসিইউ) ৮ নম্বর বেডে স্থানান্তর করা হয়। সেখান থেকে শুক্রবার বিকেলে সাড়ে চারটার দিকে এয়ার অ্যাম্বুলেন্সে করে ঢাকায় নেওয়া হয়।

তাকে পুরান ঢাকার গেন্ডারিয়ায় আজগর আলী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সন্ধ্যা ৬টা ২০ মিনিটে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন আল্লামা আহমদ শফী।

১০৩ বছর বয়সী আল্লামা আহমদ শফী দীর্ঘদিন ধরে বার্ধক্যজনিত দুর্বলতার পাশাপাশি ডায়াবেটিস, উচ্চ রক্তচাপ ও শ্বাসকষ্টে ভুগছিলেন।

গতকাল বৃহস্পতিবার মধ্যরাতে ছাত্র আন্দোলনের মধ্যেই হাটহাজারী মাদ্রাসার মহাপরিচালকের পদ থেকে অব্যাহতি নেন আহমদ শফী।

আল্লামা আহমদ শফীর জন্ম চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজেলার পাখিয়ারটিলা গ্রামে। তার বাবার নাম বরকম আলী। মা মোছাম্মাৎ মেহেরুন্নেছা বেগম। আহমদ শফীর দুই ছেলে ও তিন মেয়ে। তার বড় ছেলে মাওলানা মোহাম্মদ ইউসুফ পাখিয়ারটিলা কওমি মাদ্রাসার পরিচালক। ছোট ছেলে আনাস মাদানি হেফাজতে ইসলামের প্রচার সম্পাদক।

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন