রোহিঙ্গা ক্যাম্প ঘুরতে এসে সাবেক এক এনজিও কর্মী নিখোঁজ

উখিয়া-টেকনাফে রোহিঙ্গা ক্যাম্পে কর্মরত সাবেক এক এনজিও কর্মী পারভেজ রোহিঙ্গা ক্যাম্প বেড়াতে গিয়ে এক মাসের অধিক সময় ধরে নিখোঁজ রয়েছে। পরিবারের একমাত্র ছেলে নিখোঁজ থাকায় মা-বাবা গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েছে। কোন সুহৃদ ব্যক্তি এই ব্যক্তির সন্ধান পেলে মানবিক কারণে নিম্ম ঠিকানায় পরিবারের নিকট জানানোর জন্য সবিনয় আহবান জানানো হয়েছে।

পারিবারিক সুত্র জানায়, চট্টগ্রাম দক্ষিণ পতেঙ্গা থানার দক্ষিণ পাড়া মির্জা আলী বাড়ির আলী ওসমানের পরিবারে ফারজানা (২৪) ও রফিকুল ইসলাম (২৬) ওরফে পারভেজ নামে দুই ভাই-বোনের জন্ম। বেশ কিছুৃদিন আগে রোহিঙ্গা ক্যাম্পের একটি এনজিও সংস্থায় চাকরী করত। বেশ কিছুদিন ক্যাম্পে চাকরী করার সুবাদে সহকর্মী, ক্যাম্পের রোহিঙ্গা ও সাধারণ মানুষের সাথে সম্পর্ক গড়ে উঠে। এরই মধ্যে পুত্র শোকে কাতর পিতা তার ছেলেকে বাড়িতে নিয়ে যায়। সদ্য সমাগত হয়ে যাওয়া ৪র্থ রোজা তথা গত ৭ই এপ্রিল কক্সবাজার ও রোহিঙ্গা ক্যাম্প বেড়ানো এবং ঈদের আগে বাড়িতে ফিরে আসার কথা বলে চলে যায়। এরপর থেকে তার ব্যবহৃত মুঠোফোন-০১৭৭১-০১০১২৫ এবং ০১৩২৩-৯৩৯৫৪১ বন্ধ পাওয়া যায়। ১৪/১৫দিন পর একটি মোবাইল নাম্বার থেকে তার মোবাইলটি মাত্র ৪শ টাকা বিক্রি করে দিয়েছে বলে জানায়। নিখোঁজ যুবকের এক প্রতিবেশী টেকনাফের এক মসজিদে দেখতে পেয়েছিল বলে অনুমান করে পরিবারকে জানায়। এই ঘটনার বেশ কয়েকদিন পরেও ছেলের খোঁজ না পেয়ে পিতা মো: আলী ওসমান পতেঙ্গা থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী লিপিবদ্ধ করেন। এরপর থেকে সে এখনো বাড়ির কারো সাথে যোগাযোগ করেনি এবং বাড়িতে ফিরে আসেনি।

নিখোঁজ পারভেজের বোন ফারজানা জানান,আমার একমাত্র ভাইটি বেড়াতে গিয়ে মাসের অধিক সময় ধরে নিখোঁজ রয়েছে। তার গায়ের রং শ্যামলা। উচ্চতা ৫ফুট ৬ইঞ্চি। হালকা-পাতলা গঠনের। এখন পুত্রশোকে মধ্যবিত্ত এই পরিবারের মা-বাবা একেবারে অসুস্থ হয়ে পড়েছে। কোন সুহৃত ব্যক্তি উখিয়া-টেকনাফের রোহিঙ্গা ক্যাম্প সংলগ্ন এলাকা অথবা কক্সবাজারের প্রত্যন্ত এলাকায় উপরোক্ত ব্যক্তির সন্ধান পেলে আইন-শৃংখলা বাহিনী, সুশীল সমাজসহ সর্বস্তরের নজরদারীর আবেদন করেছেন।

মানবিক কারণে নিম্মোক্ত মুঠোফোন-০১৮৯২-৭৮৪১৪২, ০১৮৫২-৭৬২৪৫০ এবং ০১৩০৮-৭৭১৩৭৩ নাম্বারে অবহিত করে শোকে বিপর্যস্ত পরিবারকে জানানোর জন্য বিনিতভাবে আহবান জানানো হয়েছে। সুত্র, টেকনাফটুডে

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন