রোহিঙ্গারা আর কত কলুষিত করবে শান্তির ধর্ম ইসলামকে!

লোকটিকে আজ সকালে রোহিঙ্গা ক্যাম্প হতে আটক করা হয়েছে, তার বোনকে এক লোক বিয়ে করতে চেয়েছিল, সেও রাজি ছিল, কিন্তু কথা ছিল বোনকে বিয়ে করতে হলে ২ ভরি স্বর্ণ দিতে হবে, কিন্তু লোকটি নাকি দিতে পারবে না বলে কিছুদিন আগে জানায়, তবে বিয়ে করার অভিপ্রায় থেকে পিছু হটে নি, ঘুরঘুর করছিল তার বোনের পেছনে তাদের বাড়ির আশেপাশে! কিন্তু মেয়ের ভাই অর্থাৎ আটককৃত লোকটি কিছুতেই রাজি নয়, বোনের বিয়ে সে অন্যত্র ঠিকও করেছিল! আজ সকালে এ নিয়ে মেয়ের ভাই এবং বিয়ে করতে চাওয়া সেই লোকের মধ্যে কথা কাটাকাটির এক পর্যায়ে মেয়ের ভাই নাকি আর নিজেকে কন্ট্রোল করতে পারেনি, অনেকটা প্রকাশ্যেই ছুরি দিয়ে ২/৩ বার আঘাত করে এবং সবশেষে জবাই করে হত্যা করে লোকটিকে।

সকাল ১০.৩০ টার দিকের ঘটনা। আটকের পর কথা বললাম তার সাথে, সব স্বীকারও করল অকপটে, জানলাম সে রোহিঙ্গা, পেশায় মাদ্রাসা শিক্ষক, ক্যাম্পের ভেতরেই একটি মাদ্রাসায় পড়ায় সে, আর যাকে হত্যা করা হয়েছে সেও রোহিঙ্গা এবং একজন আলেম! মাদ্রাসার শিক্ষক, তাই কুরআন নিয়ে বেশ কিছু তথ্য জিজ্ঞেস করলাম, দেখলাম একটাও জানেনা, এমনকি ‘সিরাতুল মুস্তাকিম’ এর অর্থও সে জানেনা, বুঝলাম শুধুই তোতা পাখির মতন মুখস্তই করে গেছে, কিছুই ধারণ করেনি জীবনে! নিজেই তো কিছু জানেনা, সেই লোক আবার মাদ্রাসায় বাচ্চাদের শিক্ষা দিচ্ছে ইসলামের! এভাবেই হয়ত ওর মতন আরো কিছু তোতা পাখি তৈরি হবে সমাজে আর কলুষিত করবে জগতকে আর আমাদের শান্তির ধর্ম ইসলামকে!!

লেখক -নিহাদ আদনান তাইয়ান

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার

উখিয়া -টেকনাফ সার্কেল

লিখাটি লেখকের ফেইসবুক আইডি থেকে নেওয়া

ইউটিউব সাবস্ক্রাইব করুন